মুখের অবাঞ্ছিত লোমের হাত থেকে মুক্তি পেতে ভরসা রাখুন প্রাকৃতিক ব্লিচে

মুখের অবাঞ্ছিত লোমের হাত থেকে মুক্তি পেতে ভরসা রাখুন প্রাকৃতিক ব্লিচে

আমাদের এক একজনের শরীরে অবাঞ্ছিত লোমের (unwanted hair) পরিমাণ এক এক রকমের হয়। যাদের শরীরে অবাঞ্ছিত লোমের (unwanted hair) সংখ্যা কম, তাঁরা একদিকে কিন্তু খুবই ভাগ্যবতী। ওয়াক্সিং-এর ব্যথাটা তাঁদের সহ্য করতে হয় না। তবে অনেকেরই শুধুমাত্র হাতে-পায়ে না, মুখেও অবাঞ্ছিত লোম (facial hair) থাকে। কেউ কেউ পার্লারে গিয়ে ওয়াক্সিং করান আবার কেউ কেউ রাসায়নিকযুক্ত ফেসিয়াল ব্লিচ ব্যবহার করেন এই অবাঞ্ছিত লোমের সমস্যা (unwanted hair) থেকে মুক্তি পেতে। কিন্তু এই দুটো পদ্ধতিতেই ত্বকের ক্ষতি হয়। তাহলে উপায়? আমাদের চারদিকে অনেক প্রাকৃতিক ব্লিচ (natural bleach) রয়েছে যা আপনি ব্যবহার করতে পারেন মুখের অবাঞ্ছিত লোমের (facial hair) সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে। সেগুলো কী কী দেখে নিন

লেবুর রস

উপকরণ – একটি গোটা পাতিলেবুর রস

কীভাবে ব্যবহার করবেন এই প্রাকৃতিক ব্লিচ (natral bleach)  – লেবুর রসে ভিটামিন সি রয়েছে এবং এটি সাইট্রিক অ্যাসিডে সমৃদ্ধ, কাজেই যে-কোনও দাগছোপ হালকা করতে খুবই কার্যকরী। সুতরাং আপনার যদি অবাঞ্ছিত লোমের (facial hair) সমস্যা থেকে থাকে তাহলে এই ঘরোয়া টোটকাটি ব্যবহার করতে পারেন। একটি কাচের বাটিতে লেবুর রস নিংড়ে নিন এবং তুলোর সাহায্যে মুখে লাগিয়ে নিন। মিনিট ২০ পর ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন।

কতদিন ব্যবহার করতে হবে – মুখের অবাঞ্ছিত লোম ব্লিচ (natural bleach) করার জন্য প্রতিদিন এই ঘরোয়া টোটকা প্রয়োগ করুন।

বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ: আপনার যদি সংবেদনশীল ত্বক হয়, সেক্ষেত্রে লেবুর রস দিয়ে ব্লিচ করবেন না। ত্বকে র‍্যাশ বেরতে পারে। যদি ত্বকে জ্বলুনি হয় তাহলে এই প্রাকৃতিক ব্লিচিং এজেন্টটি ব্যবহার না করাই ভাল।

আলু

আলুর রস প্রাকৃতিক ব্লিচের কাজ করে (ছবি - শাটারস্টকের সৌজন্যে)

উপকরণ – মাঝারি মাপের একটি আলু

কীভাবে ব্যবহার করবেন এই প্রাকৃতিক ব্লিচ – ভাল করে আলু ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে নিন এবং গ্রেটারের সাহায্যে গ্রেট করে নিন। এবারে একটি পরিষ্কার কাপড়ের সাহায্যে গ্রেট করা আলু থেকে চেপে চেপে রস নিংড়ে নিন। তুলো অথবা কটন প্যাডের সাহায্যে সারা মুখে আলুর রস লাগিয়ে নিন। আধ ঘণ্টা অপেক্ষা করুন এবং ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন। আলু প্রাকৃতিক ব্লিচের কাজ করে ফলে মুখের অবাঞ্ছিত লোম (facial hair) হালকা করে তুলতে সাহায্য করে।

কতদিন ব্যবহার করতে হবে – প্রতিদিন একবার করে এই ঘরোয়া টোটকাটি ট্রাই করুন।

হলুদ ও লেবুর রস

উপকরণ – আধ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো, এক টেবিল চামচ লেবুর রস

কীভাবে ব্যবহার করবেন এই প্রাকৃতিক ব্লিচ (natural bleach) – যেহেতু লেবুর রসে ভিটামিন সি রয়েছে এবং হলুদ প্রাকৃতিক একটি ব্লিচিং এজেন্ট, কাজেই এই দুটি উপকরণের মিশ্রণ ত্বকের কোনওরকম ক্ষতি ছাড়াই মুখের অবাঞ্ছিত লোম (facial hair) হালকা করতে সাহজ্য করে। উপকরণ দুটি একটি কাচের বাটিতে ভাল করে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন এবং মুখে লাগিয়ে রাখুন। ভ্রু-তে লাগাবেন না। মিনিট দশেক পর মাইল্ড কোনও ফেল ওয়াশ বা ক্লেনজার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিন।

কতদিন ব্যবহার করতে হবে – সপ্তাহে একবার করে করুন যখন না পর্যন্ত মনের মতো ফল পাচ্ছেন।

বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ: বেশি হলুদ ব্যবহার করবেন না, এতে মুখে একটা হলদে ছোপ পড়ে যেতে পারে। সম্ভব হলে চেষ্টা করুন হলুদ বেটে ব্যবহার করতে, তা না হলে অরগানিক হলুদ গুঁড়ো ব্যবহার করুন।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!