ডিপ নেক পোশাক পরারও কায়দা আছে, মেনে চলুন এই টিপসগুলো

ডিপ নেক পোশাক পরারও কায়দা আছে, মেনে চলুন এই টিপসগুলো

সব মহিলাই ফ্যাশন করতে পছন্দ করেন, কেউ একটু বেশি কেউ একটু কম। আমরা অনেকেই বেশ ডিপ নেক (deep neck) বা লো নেক অর্থাৎ বড় গলার পোশাক পরি। পোশাকটি পরার পর দেখতে তো ভালই লাগে, কিন্তু  অনেক সময়ই গলার কাট বড় হওয়ায় একটু সমস্যা হতে পারে। ঠিকভাবে যদি ক্যারি না করা যায় সেক্ষেত্রে লো-নেক ব্লাউজ বা টপ পরলে অনেক সময়ই আপনার বিভাজিকা (cleavage) দেখা যেতে পারে যা মোটেও কাম্য নয়। তবে, সুখবর এই যে আমরা তো আছি আপনার মুশকিল-আসান। আমরা এমন বেশ কয়েকটি টিপস (hacks) দেব যাতে আপনি আপনার পছন্দের পোশাকটি পরতে পারেন এবং দেখতেও দৃষ্টিকটু না লাগে!

ডিপ নেক পোশাক পরলেও কীভাবে পরবেন যাতে দৃষ্টিকটু না লাগে – কাজে লাগান এই টিপসগুলো

ডিপ নেক পোশাক পরুন, তবে বুদ্ধি করে (ছবি - শাটারস্টক)

১। যদি আপনার এমন কোনও পোশাক থাকে যা ওয়ান পিস আর তার গলার কাট বেশ বড় এবং গভীর হয়, সেক্ষেত্রে আপনার বিভাজিকা দেখা যাওয়ার একটা আশঙ্কা থেকেই যায়। এক্ষেত্রে একটা কাজ করতে পারেন, আপনার পোশাকের ভিতর দিকে বুকের কাছে মানাসই একটা লেসের পট্টি লাগিয়ে নিন। দেখতেও ভাল লাগবে আবার একইসঙ্গে বিভাজিকা দেখা যাওয়ার সমস্যাও দূর হবে।

২। আপনি হয়ত অনেক শখ করে একটা ড্রেস কিনেছিলেন যেটি ডিপ নেক হওয়ার জন্য আর পরা হয়নি, আলমারির ভিতরে কোনও এক কোণে পড়ে আছে। কিন্তু প্রাণে ধরে ফেলে দিতেও পারছেন না। সেক্ষেত্রে এক কাজ করতে পারেন। ড্রেসটির উপরে কোনও সেমি ট্রান্সপারেন্ট টপ পরে নিতে পারেন। দেখেতেও স্টাইলিশ লাগবে।

৩। যদি সেমি ট্রান্সপারেন্ট বা শিয়ার টপ না থাকে সেক্ষেত্রে কিন্তু ড্রেসের নীচে একটা বডি হাগিং টি শার্ট পরে নিতে পারেন। একটা সময়ে কিন্তু ফ্যাশন বেশ জনপ্রিয় ছিল। আপনি না হয় পুরনো দিনই আবার ফিরিয়ে আনলেন।

৪। অনেকেই আজকাল অন্তর্বাস নিয়েও নানা ফ্যাশন করে থাকেন। আর সত্যি বলতে কী, এখন দারুণ ডিজাইনের নানারকমের অন্তর্বাস পাওয়া যায়। শুধু যে ব্রা তা তো নয়, এখন ব্রালেট কিন্তু ফ্যাশনে ইন থিং। যদি আপনার কোনও ডিপ নেক পোশাক থাকে যা আপনি পরতে পারেন না, সেক্ষেত্রে অবশ্যই পোশাকের নীচে ব্রালেট পরে নিতে পারেন।

৫। উপরে দেওয়া টিপসের মধ্যে কোনওটাই যদি পছন্দ না হয়, সেক্ষেত্রে এক কাজ করুন। আপনার কাছে নিশ্চয়ই অনেক জাঙ্ক জুয়েলারি আছে? সেগুলো বার করুন এবং লম্বা নেকপিস পরে নিন বেশ কয়েকটি। বিভাজিকা দেখা যাওয়ার কোনও আশঙ্কাই নেই! সঙ্গে কিন্তু মেকআপ ও হেয়ারস্টাইল অবশ্যই মানানসই হতে হবে।

৬। শাড়ির সঙ্গে অনেকেই বেশ স্টাইলিশ ব্লাউজ পরেন। তবে এক এক সময়ে ব্লাউজের গলার কাট বেশ গভীর হওয়ায় সমস্যায় পড়তে হয়। হয়ত ব্লাউজের ডিজাইন্টি বা পিঠের কাজটি খুব সুন্দর কাজেই পরতেও ইচ্ছে করে। কিন্তু বিভাজিকা দেখা যাওয়ার আশঙ্কায় পরতে পারেন না। সেক্ষেত্রে বেশ চওড়া পাড়ের শাড়ি পরে নিন বালুজের সঙ্গে।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!