ত্বকের জেল্লা ফেরাতে নুন-মধুর টোটকা

ত্বকের জেল্লা ফেরাতে নুন-মধুর টোটকা

যারা নিয়মিত রূপচর্চা (beauty routine) করেন, তারা নিজেদের সৌন্দর্য ধরে রাখতে নানা উপাচার করে থাকেন। তার মধ্যে ফেসপ্যাক অন্যতম। বেশিরভাগ মানুষই বাজারচলতি নানা ফেসপ্যাক ব্যবহার করেন। তবে এই ফেসপ্যাকগুলো প্রথমত বেশ দামী হয় এবং দ্বিতীয়ত, নানারকমের ক্ষতিকর রাসায়নিক থাকে যা আমাদের ত্বকের জন্য একেবারেই ভাল নয়। অনেকেরই আবার বাজারচলতি ফেসপ্যাক থেকে অ্যালার্জি হয়। তার চেয়ে বরং ঘরোয়া কিছু ফেসপ্যাক যদি ব্যবহার করতে পারেন তাহলে বোধহয় সুবিধে হয়। কিন্তু আজ যে ফেসপ্যাকের কথা বলব, তা নুন (salt) দিয়ে তৈরি!

ব্রন-ফুসকুড়ি ও ত্বকের অন্যান্য সমস্যা দূর করুন নুন-মধুর ফেসপ্যাকে

নুন ও মধুর এই ফেসপ্যাক ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়িয়ে তোলে

যাদের ত্বক তৈলাক্ত, তাঁদের শীতকাল বাদে বছরের বাকি সময়টা মোটামুটি ব্রণ-ফুসকুড়ির সমস্যা থেকেই থাকে। আসলে তৈলাক্ত ত্বকে ময়লা বেশি আটকে যায় এবং তা লোমকূপের ভিতরে জমে ত্বকের নানা সমস্যা সৃষ্টি করে। সেক্ষেত্রে নুন ও মধুর এই ফেসপ্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন।

এক টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে এক টেবিল চামচ নুন মিশিয়ে নিন। এবারে এই পেস্টটি মুখে, গলায় ও ঘাড়ে লাগিয়ে নিন। চোখের চারপাশে লাগাবেন না, জ্বলুনি হতে পারে। পনের মিনিট পর ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন। মধু ত্বকের গভীরে গিয়ে পরিস্কার করে এবং ত্বকে আর্দ্রতা যোগায়; অন্যদিকে নুন জীবাণুনাশ করতে সাহায্য করে।

এই ফেসপ্যাকটি ব্যবহারের ফলে ত্বকের লোমকূপ খুলে যায় এবং ময়লা বেরিয়ে যেতে সুবিধে হয়। সপ্তাহে একবার করে এই ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন। নুন যেহেতু প্রাকৃতিকভাবে শরীরের টক্সিন দূর করতে সাহায্য করে, কাজেই বুঝতেই পারছেন যে নুন ও মধু দিয়ে তৈরি ফেসপ্যাকটি কতটা কার্যকরী।

শুধুমাত্র ব্রণ-ফুসকুড়ি দূর করতেই না, এই ফেসপ্যাকটি ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধি করতেও সাহায্য করে।

স্নানের সময়ে নুনের ব্যবহার

স্নানের জলে অনেকেই নুন মিশিয়ে স্নান করেন

শুধুমাত্র ফেসপ্যাক হিসেবে না, সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে নানাভাবে নুনের ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আসলে নুনের মধ্যে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা শরীরের টক্সিন দূর করতে সাহায্য করে। টক্সিন দূর হলে ত্বক স্বাভাবিকভাবেই উজ্জ্বল হয়ে উঠবে এবং কিছু না করেও আপনার সৌন্দর্য দশগুণ বেড়ে যাবে।

অনেকেই সল্ট বাথ নেন। স্নানের সময়ে নুন ব্যবহার করেন। আসলে আমরা ঠিক যেভাবে মুখের থেকে ময়লা দূর করার জন্য নানা প্রক্রিয়া করি, ঠিক একইভাবে কিন্তু শরীরের বাকি অংশের ময়লা দূর করাটা জরুরি। আমাদের শরীরে ঘাম থেকে নানা জীবাণু তৈরি হয় এবং অনেকসময়েই দূষণের প্রভাবও আমাদের ত্বকে পড়ে। সেক্ষেত্রে স্নানের সময়ে আপনি যতই সাবান বা বডি ওয়াশ ব্যবহার করুন, জীবাণুনাশ হয় না। কাজেই স্নানের জলে দুই টেবিল চামচ পিঙ্ক সল্ট বা বাথ সল্ট মিশিয়ে স্নান করতে পারেন।

আধ কাপ অলিভ অয়েলের সঙ্গে দুই টেবিল চামচ পিঙ্ক সল্ট এবং সামান্য জল মিশিয়ে একটা পেস্ট তৈরি করে নিন। এবারে এটি বডি স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন প্রতিদিন স্নানের সময়ে। নুন শরীরের জীবাণুনাশ করবে আর অন্যদিকে অলিভ অয়েল ত্বক শুষ্ক হতে দেবে না।  

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!