ত্বক ও চুলের যত্নে কাজে লাগান জোজোবা অয়েল

ত্বক ও চুলের যত্নে কাজে লাগান জোজোবা অয়েল

বহু পুরনো একটি কথা আছে, ‘জলে চুন তাজা, তেলে চুল তাজা’। জলে যে চুন তাজা থাকে তা তো ঠিক, কিন্তু ‘তেলে চুল তাজা’ কথাটি অর্ধেক সত্য। কারণ, কিছু কিছু তেল এমন রয়েছে যা শুধু চুলের (hair) জন্যই নয়, ত্বকের (skin) জন্যও দারুণ উপকারী (benefits)! সেরকমই একটি তেল হল জোজোবা অয়েল (jojoba oil)। জোজোবা অয়েল নামটা অনেকেরই চেনা। অনেকেই হয়তো ব্যবহার করেছেন আবার অনেকে হয়তো ব্যবহার করেননি, কিন্তু নাম শুনেছেন। জোজোবা নামের একটি গাছ থেকে এই তেল পাওয়া যায়। আর এই তেলে রয়েছে ফ্যাটি অ্যাসিড, যা চুল ও ত্বক – দুয়ের যত্নেই ভারী কাজে লাগে।

ত্বকের যত্নে জোজোবা অয়েলের গুরুত্ব

জোজোবা অয়েলের গুণে ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জ্বল

১। আমরা অনেকেই ফেসিয়াল অয়েল ব্যবহার করি। কিন্তু রাসায়নিকযুক্ত প্রসাধনীর বদলে যদি আপনি জোজোবা অয়েল ব্যবহার করেন, তাহলেও একই কাজ দেবে। যেহেতু এই তেলে ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে কাজেই ত্বকের জন্য দারুণ ময়শ্চারাইজারের কাজ করে জোজোবা অয়েল।

২। জোজোবা অয়েলের মধ্যে রয়েছে অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল ও অ্যান্টিফাঙ্গাল উপাদান। ফলে, জোজোবা অয়েল ব্যবহার করলে কোনও রকম জীবাণুসংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কাই থাকে না।

৩। অনেকেরই অ্যাকনের সমস্যা থাকে, বিশেষ করে যাদের তৈলাক্ত ত্বক, তাঁদের এই সমস্যা খুব বেশি হয়। অ্যাকনের ফলে যে শুধু দেখতে খারাপ লাগে তা নয়, এগুলো খুব কষ্টদায়কও। জোজোবা অয়েল কিন্তু অ্যাকনে দূর করতে সাহায্য করে। আগেই বলা হয়েছে যে এই তেলের মধ্যে অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল উপাদান রয়েছে আর অ্যাকনের মূল কারণ হল ব্যাকটেরিয়া; ফলে জোজোবা অয়েল লাগালে ব্যাকটেরিয়া বিনাশ হয় এবং অ্যাকনের সমস্যা দূর হয়।

৪। জোজোবা অয়েলে ভিটামিন ই রয়েছে, যা ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। ত্বক মোলায়েম ও মসৃণ করে তুলতে ভিটামিন ই কার্যকরী। তবে জোজোবা অয়েল শুধুমাত্র ত্বক মোলায়েম ও উজ্জ্বল করে তোলে না, ত্বকের দাগ-ছোপ, কাটা দাগ বা পোড়া দাগ মেটাতেও সাহায্য করে।

চুলের যত্নে জোজোবা অয়েল

চুলের নানা সমস্যা দূর করতে ভরসা রাখুন জোজোবা অয়েলে

১। নানা রকম স্টাইলিং করে অনেক সময়ই নিজের অজান্তে আমাদের চুলের ক্ষতি হয়। বেশিরভাগ সময়ে চুলের ন্যাচারাল অয়েল ব্যালান্স হারিয়ে ফেলে ও শুষ্ক হয়ে যায়। এই সমস্যা দূর করতে জোজোবা অয়েল দিয়ে মাসাজ করতে পারেন। চাইলে হেয়ার মাস্কে জোজোবা অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। কিছুদিনের মধ্যেই চুল মোলায়েম ও জেল্লাদার হয়ে উঠবে।

২। যদি আপনার খুশকির সমস্যা থাকে তাহলে সপ্তাহে দু’দিন মাথার তালুতে ভাল করে জোজোবা অয়েল মাসাজ করুন। এতে তালুর রুক্ষভাব দূর হবে এবং আর্দ্রতা ফিরে আসবে। এছাড়া যেহেতু জোজোবা অয়েলে অ্যান্টিফাঙ্গাল উপাদান রয়েছে, কাজেই খুশকির সঙ্গে অন্যান্য ফাঙ্গাল ইনফেকশনও দূর হবে।

৩। অকালে চুল ঝরে যাওয়া আরও একটি বড় সমস্যা। চুলে পুষ্টির অভাব হলে চুল দুর্বল হয়ে যায় এবং অকালে ঝরে পড়ে। সপ্তাহে দু-তিন দিন জোজোবা অয়েল মাসাজ করুন। এতে চুল গোড়া থেকে মজবুত হবে এবং অকালে ঝরে পড়বে না। এছাড়া নতুন চুলও গজাবে।

মূল ছবি - পেক্সেল ডট কম 

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!