বেতন বৃদ্ধির কথা অফিসে বলবেন কীভাবে?

বেতন বৃদ্ধির কথা অফিসে বলবেন কীভাবে?

আপনি কি প্রফেশনাল? কতদিন বা কত বছর এই পেশায় রয়েছেন? না! এ ধরনের ব্যক্তিগত প্রশ্ন আমরা করছি না। কিন্তু একটা জিনিস বলুন তো, আপনি যতটা এক্সপেক্ট করেন, সেই হারে কি আপনার বেতন বৃদ্ধি হয়? অনেকেই হয়তো এই প্রশ্নের উত্তরে হ্যাঁ বলবেন। কিন্তু তথ্য বলছে, বেশিরভাগ কর্মীই তাঁর বেতন (salary) বৃদ্ধির হার নিয়ে সন্তুষ্ট নন। নিজের বেতন বৃদ্ধির কথা নিজে বলতে না পারলে সমস্যা আরও বাড়ে। ফলে কাজে তার নেগেচিভ প্রভাব পড়ে। কাজের মান খারাপ হয়ে যায়।

তাহলে উপায়? দেখুন, আমার যোগ্যতার কথা নিজে মুখে বলতে হবে না, অন্য কেউ বুঝে নেবে, এটাই হয়তো অনেকের কাছে আদর্শ সিচুয়েশন। কিন্তু এখন তো নিজের ঢাক নিজে পেটানোর যুগ। অন্তত আপনার যোগ্যতা বা পারদর্শীতার কথা তো কর্ত্পক্ষকে জানাতে হবে। আপনি তো যোগ্য হিসেবে বেতন বৃদ্ধির দাবি করছেন। এতে তো কোনও অন্যায় নেই। কিন্তু কীভাবে, নিজের বেতন বৃদ্ধির কথা নিজে বলবেন, এ নিয়ে সমস্যা তৈরি হয় অনেকের মধ্যে। সমাধান খুঁজে পান না। আমরা কিছু সাজেশন দেওয়ার চেষ্টা করলাম। দেখুন তো, আপনার কাজে লাগে কিনা।

 

১) বেতন বাড়ানোর কথা বলতে যাওয়ার আগে নিজের দক্ষতা, যোগ্যতা সম্পর্কে কনফিডেন্ট হতে হবে আপনাকে। যাতে কর্ত্পক্ষ কাজ নিয়ে কোনও প্রশ্ন করলে আপনি জবাব দিতে পারেন। আপনার বেতন বৃদ্ধির দাবি যাতে কোনওভাবেই অযৌক্তিক না মনে হয়, সেটা ভেবে নেওয়া জরুরি।

২) সকলের মধ্যেই কিছু নেগেটিভ থাকে। কর্মক্ষেত্রেও সেই নেগেটিভিটি এফেক্ট করতে পারে। ফলে নিজের দুর্বলতা স্বীকার করতে হবে। সে ব্যাপারে সৎ থাকতে হবে। ফলে সেই না পারাটাও যদি স্পষ্ট ভাবে আপনি তুলে ধরেন, তা বেতন বৃদ্ধির ক্ষেত্রে সহায়ক হতে পারে।

৩) বেতন বৃদ্ধির কথা বলতে যাওয়ার আগে মার্কেট সার্ভে করে নিন। আপনার পেশায় অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে আপনারই সমকক্ষরা কেমন বেতেন পাচ্ছেন, সে সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা থাকা জরুরি। সেই অনুযায়ী আপনি নিজের কথা বলতে পারবেন।

৪) কর্মক্ষেত্রে আপনার অক্ষমতা, বা যে সব টার্গেট মিট করতে পারেননি, সে সব নিয়ে কথা বলতেই পারেন কর্তৃপক্ষ। কেন আপনি টার্গেট মিট করতে পারেননি, সে সম্পর্কে নিজের কাছে পরিষ্কার ধারণা থাকতে হবে। তবেই আপনি সেটা বুঝিয়ে বলেও কেন আপনার বেতন বৃদ্ধি হওয়া উচিত, তা নিয়ে সওয়াল করতে পারবেন। 

৫) প্রত্যেক কোম্পানির নিজস্ব এমপ্লয়ি হ্যান্ডবুক থাকে। সেটাও পড়ে নিন। অর্থাৎ কোম্পানির নিজস্ব নিয়ম সম্পর্কে ধারণা থাকলে কোনও অযৌক্তিক কথা বলতে হবে না। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!