সুস্থ থাকতে রোজ রাতে খান 'ইমিউনিটি বুস্টার গোল্ডেন মিল্ক'

সুস্থ থাকতে রোজ রাতে খান 'ইমিউনিটি বুস্টার গোল্ডেন মিল্ক'

আগেকার দিনের লোকজন প্রচুর ঘরোয়া টোটকা জানতেন। অল্প জ্বর বা সর্দি কাশি হলে মুঠো মুঠো ওষুধ না খেয়ে তাঁরা নানা ঘরোয়া টোটকা কাজে লাগিয়েই সমস্যার সমাধান করে ফেলতেন। আর যে সব জিনিস বা উপকরণ তাঁরা ব্যবহার করতেন, তা এখনও আমাদের সবার রান্না ঘরেই মজুদ থাকে। মধু, লেবু, ঘি, আদা, রসুন, গুড় ইত্যাদি নানা রান্নার উপকরণ কিন্তু অনেকেই ঘরোয়া টোটকা হিসেবে ব্যবহার করেন। ইদানিং চারদিকে এত বেশি জীবাণু সংক্রমণের সমস্যা দেখা দিয়েছে যে ভিতর থেকে শরীর সুস্থ রাখাটা খুব জরুরি। আর শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য প্রয়োজন কিছু আয়ুর্বেদিক সমাধানের। আজ আপনাদের সঙ্গে একটি রেসিপি শেয়ার করছি যা আপনাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তো বৃদ্ধি করবেই, একই সঙ্গে জ্বর-সর্দি-কাশির মত সমস্যাও দূর করবে। দেখে নিন ‘ইমিউনিটি বুস্টার গোল্ডেন মিল্ক’-এর রেসিপি (immunity booster golden milk recipe)।

জেনে নিন ‘ইমিউনিটি বুস্টার গোল্ডেন মিল্ক’ তৈরি করবেন কিভাবে

কুইজিন – পানীয়

কতক্ষণ সময় লাগবে – ১০ মিনিট (গোছগাছের জন্য পাঁচ মিনিট, তৈরি করতে পাঁচ মিনিট)

কতজন খেতে পারবেন – দুই জনের জন্য

উপকরণ

  • দুই গ্লাস গরুর দুধ (আপনি চাইলে ফ্রেশ দুধ নিতে পারেন, প্যাকেটের দুধ বা কার্টনের দুধও নিতে পারেন)
  • এক টেবিল চামচ হলুদ গুঁড়ো (সম্ভব হলে অরগানিক হলুদ গুঁড়ো ব্যবহার করুন)
  • এক চা চামচ কাঁচা জোয়ান
  • দুই চা চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো
  • চার-পাঁচটা লবঙ্গ
  • দুটো ছোট এলাচ
  • তিন ইঞ্চি আদা (থেঁতো করে নেবেন)
  • স্বাদ অনুযায়ী চিনি
গোল্ডেন মিল্ক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে (ছবি - ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে)

প্রণালী

প্রথমেই একটি সসপ্যানে দুই গ্লাস দুধ দিয়ে মিডিয়াম আঁচে বসান। এবারে এতে হলুদ গুঁড়ো ও চিনি দিন। আঁচ কমিয়ে দিন একদম। তা না হলে দুধ ফুটে উঠবে এবং পড়ে নষ্ট হতে পারে। একটি হামান দিস্তায় জোয়ান, গোলমরিচ, ছোট এলাচ এবং লবঙ্গ নিয়ে ভাল করে পিষে নিন। একদম মিহি পাউডার যেন হয় সেভাবে পিষবেন। এবারে এই পাউডার দুধে মিশিয়ে দুধ ফুটিয়ে নিন। এবার দুধে থেঁতো করে রাখা আদা মিশিয়ে ভাল করে একবার নাড়িয়ে নিন। আরও একবার ফুটিয়ে নিন দুধ। আঁচ বন্ধ করে পাত্রটি দুই মিনিট ঢাকা দিয়ে রাখুন। এবারে গ্লাসে ছেঁকে নিন আপনার ‘ইমিউনিটি বুস্টার গোল্ডেন মিল্ক’।  গরম গরম পান করুন। immunity booster golden milk recipe

আপনি চাইলে চিনি ব্যবহার নাও করতে পারেন। চিনির বদলে মধু ব্যবহার করতে পারেন। তবে যদি মধু ব্যবহার করেন, সেক্ষেত্রে দুধ ছাঁকার পর স্বাদ অনুযায়ী গ্লাসেই মধু মেশাবেন। মধু কখনও ফোটাবেন না।

উপকারিতা

ইমিউনিটি বুস্টার গোল্ডেন মিল্ক (immunity booster golden milk recipe) যে সুস্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী তা তো বুঝতেই পারছেন। এতে যেহেতু গরুর দুধ রয়েছে কাজেই শরীরে, ভিটামিন বি, ডি এবং ক্যালসিয়ামের অভাব পূরণ হবে। তাছাড়া লবঙ্গ ও গোলমরিচ বুকে ও গলায় জমে থাকা কফ ও সর্দি পাতলা করে তা বার করতে সাহায্য করে। ফলে শরীরে অস্বস্তি কমে। হলুদ অ্যান্টিসেপ্টিকের কাজ করে। ফলে ইমিউনিটি বুস্টার গোল্ডেন মিল্ক প্রতিদিন পান করলে শরীরে জীবাণু ঢুকতে পারে না এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বেড়ে যায়।

এছাড়াও গলা ব্যাথা বা শরীর ম্যাজ ম্যাজ করলেও এই ইমিউনিটি বুস্টার গোল্ডেন মিল্ক (immunity booster golden milk recipe) আপনি পান করতে পারেন। শরীর বেশ চনমনে লাগবে।

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!