ডুরে শাড়ি কিন্তু ভোল পাল্টে এখন 'স্ট্রাইপ শাড়ি' নামে বাজার কাঁপাচ্ছে!

ডুরে শাড়ি কিন্তু ভোল পাল্টে এখন 'স্ট্রাইপ শাড়ি' নামে বাজার কাঁপাচ্ছে!

ফ্যাশনে (fashion) শাড়ির (saree) চল কোনও দিন পুরনো হয় না। ঐতিহ্যবাহী শাড়ির সঙ্গেই হাল ফ্যাশনের নানারকম ডিজাইনার শাড়িও আজকাল সবাই খুব পছন্দ করেন। আজকাল শাড়ির মধ্যেও স্ট্রাইপের প্যাটার্ন (stripe pattern) খুব জনপ্রিয়। স্ট্রাইপ প্যাটার্নে আসলে বেশ রোগা দেখতে লাগে, খুব সম্ভবত সেই কারণেই এই ধরনের ডিজাইন অনেকে বেশি পছন্দ করেন।  আমরা নানা ধরনের পোশাকে যেমন, শার্ট, স্কার্ট, ড্রেস, প্যান্টস এবং টপের ডিজাইনে স্ট্রাইপের প্যাটার্ন দেখেছি; তবে ইদানিং কিন্তু স্ট্রাইপ শাড়ির ডিজাইনেও দেখা যাচ্ছে। আসলে শাড়ি আপনি যে-কোনও সময়ে, যে-কোনও অনুষ্ঠানে পরতে পারেন;আর ঠিক এই কারণেই হয়ত শাড়ির ডিজাইনেও স্ট্রাইপের প্রভাব দেখা যাচ্ছে। নারীর রূপ যে শাড়িতেই সবচেয়ে বেশি খোলে, একথা বললে অত্যুক্তি করা হবে না। আর সত্যি কথা বলতে কী, শুধুমাত্র আমার আপনার মত সাধারণ মহিলারাই না, স্ট্রাইপ প্যাটার্নের শাড়িতে মন মজেছে সেলিব্রেটিদেরও! কিন্তু কেন?

স্ট্রাইপ প্যাটার্নের শাড়ি স্টাইল করবেন কিভাবে

১। স্ট্রাইপ প্যাটার্নের শাড়ির সবচেয়ে বড় সুবিধে হল যে-কোনও বয়সের মহিলাকেই এই ডিজাইন মানায়।  আপনার পছন্দের রঙের স্ট্রাইপ শাড়ি আপনি আপনার বয়স অনুযায়ী পরতে পারেন। যদি আপনার বয়স কম হয়, সেক্ষেত্রে জমকালো স্ট্রাইপ প্যাটার্নের শাড়ি পরুন। সঙ্গে মানানসই ব্লাউজ ও গয়না পরুন। যাঁদের শরীরে মেদের বাহুল্য কম, তাঁরা চাইলে ব্যাকলেস ব্লাউজও পরতে পারেন। স্ট্রাইপ প্যাটার্নের শাড়ির সঙ্গে কখনওই প্রিন্টেড ব্লাউজ পরবেন না, এতে দেখেতে ভাল লাগে না।

২। স্ট্রাইপ প্যাটার্নের শাড়ি সুতি বা লিনেন – যে-কোনও ফ্যাব্রিকেই পাওয়া যায়। অনেকেরই ধারণা আছে যে শুধুমাত্র শিফন বা পলিয়েস্টরের ফ্যাব্রিকেই স্ট্রাইপ প্যাটার্নের শাড়ি পাওয়া যায়। আর সুতির শাড়ি মানেই তা খুব একটা স্টাইলিশ হয় না! তবে এ’ধারনা যে কত বড় ভুল, তা আপনি সুতি বা লিনেনের স্ট্রাইপ প্যাটার্নের শাড়ি না দেখলে বুঝবেন না। আর হ্যাঁ, এই শাড়িগুলো কিন্তু খুব আরামদাওকও!

৩।  এই ধরনের শাড়ির সঙ্গে গয়না কেমন পরবেন, তা তো অবশ্যই ভাবতে হবে। যেহেতু স্ট্রাইপ প্যাটার্নের শাড়িগুলি হাল্কা হয় এবং দেখতেও খুব বেশি জমকালো হয় না, কাজেই গয়না বেশ ভারী পরতে পারেন। ভারী চোকার, কানে পাশা অথবা ঝুমকো পরতে পারেন। আবার যদি ইচ্ছে করে গলায় একটু ঝোলানো ভারী নেকলেসও পরতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন, গয়নার রং যেন শাড়ির সঙ্গের সঙ্গে কনট্রাস্টে থাকে। তাহলে দেখতে ভাল লাগবে।

৪। এই ধরনের শাড়ির সঙ্গে কেমন হেয়ারস্টাইল মানাবে, একথা ভাবতে ভাবতে দিন কাটিয়ে দেওয়ার কোনও প্রয়োজন নেই। আপনার চুলের টেক্সচার বা লেন্থ অনুযায়ী আপনি হেয়ারস্টাইল করুন। যদি আপনার চুলের লেন্থ ছোট বা মাঝারি হয়, সেক্ষেত্রে চুল খুলে রাখতে পারেন। চুল স্ট্রেট করিয়ে নিতে পারেন। আবার যাঁদের চুল বেশ লম্বা, তাঁরা চাইলে চুল খুলেও রাখতে পারেন আবার ঘাড়ের কাছে একটা খোঁপাও করতে পারেন। আজকাল মেসি বান হেয়ারস্টাইল খুব জনপ্রিয়, ইচ্ছে করলে ট্রাই করতে পারেন সেটিও।

মূল ছবি - ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে 

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!