জেনে নিন কিভাবে লিকুইড আর পাউডার হাইলাটার এক সঙ্গে লাগাতে পারেন

জেনে নিন কিভাবে লিকুইড আর পাউডার হাইলাটার এক সঙ্গে লাগাতে পারেন in bengali

যারা নিয়মিত মেকআপ করেন, তাঁদের কাছে হাইলাইটার একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রোডাক্ট। লিকুইড হোক বা পাউডার – হাইলাইটার (difference between liquid and powder highlighter) কিন্তু নিমেষে জেল্লা বাড়াতে সক্ষম। বেশিরভাগই যদিও যে-কোনও এক ধরণের হাইলাইটার ব্যবহার করেন, আবার অনেকেই আছেন যারা পাউডার ও লিকুইড, দু’রকম হাইলাইটার মিশিয়ে মেকআপ করতে পছন্দ করেন। আপনি হয়ত ভাবছেন যে দুটোর মধ্যে তফাৎ কী? সেই তো স্কিন চকচকে করবে! আজ্ঞে না, তফাৎ আছে।

লিকুইড হাইটার ও পাউডার হাইলাইটারের মধ্যে কী তফাৎ

Make Up

K.PLAY FLAVOURED HIGHLIGHTER

INR 645 AT MyGlamm

নাম শুনেই নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন, এই দু’রকম হাইলাইটারের মূল তফাৎটা (difference between liquid and powder highlighter) কী। লিকুইড হাইলাইটার ও পাউডার হাইলাইটারের মূল তফাৎ হল এঁদের টেক্সচার। একটি তরল এবং অন্যটি কমপ্যাক্ট পাউডারের মত।

লিকুইড হাইলাইটার বেশ ঘন হয় এবং এঁর পিগমেন্ট ক্ষমতাও অনেক বেশি হয়। পিগমেন্ট ক্ষমতা, অর্থাৎ, এটি একটু বেশি কালারফুল হয় এবং চিকবোনে লাগানোর পর ভাল করে ব্লেন্ড না করলে স্পষ্ট বোঝা যায় যে কিছু একটা লাগানো হয়েছে।

অন্যদিকে, পাউডার হাইলাইটার অনেক বেশি ন্যাচারাল লুক দেয়। আপনার চিকবোন চকচক করবে ঠিকই, কিন্তু কৃত্রিম মনে হবে না।

আপনি চাইলে যে-কোনও এক ধরনের হাইলাইটার লাগাতে পারেন, আবার দুটোই (difference between liquid and powder highlighter) মিশিয়ে লাগাতে পারেন। চলুন দেখে নেওয়া যাক, লিকুইড ও পাউডার – দু’রকম হাইলাইটার মিশিয়ে কিভাবে প্রফেশনালের মত মেকআপ করবেন।

লিকুইড হাইলাইটার ও পাউডার হাইলাইটার মিশিয়ে কিভাবে মেকআপ করবেন

এখন যখন আপনি জেনে গেছেন যে লিকুইড হাইলাইটার আর পাউডার হাইলাইটারের মূল তফাৎগুলো (difference between liquid and powder highlighter) কী কী, তাহলে চলুন শিখে নেওয়া যাক, কিভাবে এই দুটো মিশিয়ে প্রফেশনাল মেকআপ আর্টিস্টের মত করে মেকআপ করা সম্ভব। আপনি যদি চান বেশ গ্লোয়িং অথচ ন্যাচারাল একটা মেকআপ লুক, তাহলে এই স্টেপগুলো মেনে মেকআপ করতে পারেন।

All Eye Need- Highlighter + Eyeshadow + Primer

INR 1,195 AT MyGlamm

ক) প্রথমেই প্রাইমার ও ফাউন্ডেশন লাগিয়ে ভাল করে ব্লেন্ড করুন।

খ) ফাউন্ডেশন ঠিকভাবে ব্লেন্ড করা হয়ে গেলে কয়েক ফোঁটা লিকুইড হাইলাইটার নিয়ে চিকবোনে, ঠোঁটের উপরে আর নাকের ডগায় লাগিয়ে নিন। ব্লেন্ড করুন, তবে বিউটি ব্লেন্ডার বা মেকআপ ব্রাশের সাহায্যে না, আঙুলের ডগা দিয়ে। আঙুলের ডগা দিয়ে আলতো করে চেপে চেপে লিকুইড হাইলাইটার ব্লেন্ড করে নিন। এমনভাবে ব্লেন্ড করবেন যাতে কৃত্রিম মনে না হয় এবং ত্বকের সঙ্গে তা খুব ভালভাবে মিশে যায়।

গ) মুখে একটু সেটিং স্প্রে অথবা পাউডার লাগান এবং মিনিট পাঁচেক অপেক্ষা করুন।

ঘ) এবারে একটি ফ্যান ব্রাশ নিয়ে তার সাহায্যে যেখানে যেখানে লিকুইড হাইলাইটার লাগিয়েছেন সেখানে পাউডার হাইলাইটার লাগিয়ে নিন এবং ভাল করে ব্লেন্ড করে নিন।

ঙ) অতিরিক্ত পাউডার ও হাইলাইটার ব্রাশের সাহায্যে ঝেড়ে নিন।

মনে রাখুন

আগেই বলেছি পাউডার হাইলাইটারের তুলনায় লিকুইড হাইলাইটার অনেক বেশি পিগমেন্টেড হয়, কাজেই লিকুইডের উপরে যখন পাউডার লাগাবেন, তা যেন একদম সামান্য পরিমানে হয়। এতে একটা ন্যাচারাল গ্লো দেখা যাবে।  তাছাড়া অল্প প্রোডাক্ট লাগালে, অনেক দিন ধরে ব্যবহারও করতে পারবেন

যদি আপনার ডার্ক সার্কেল থাকে অথবা চোখের নিচের অংশ ফোলা হয়, সেক্ষেত্রে সেখানে সামান্য লিকুইড হাইলাইটার লাগিয়ে নিন এবং ব্লেন্ড করে নিন। চোখের ইনার কর্নার অর্থাৎ নাকের দিকে সামান্য লিকুইড হাইলাইটার (difference between liquid and powder highlighter) লাগাবেন। এতে চোখ বেশ ব্রাইট দেখাবে আর মেকআপও সুন্দর লাগবে।

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!