ওজন কমানো থেকে মুড সুইং ঠিক করা - প্রতিদিন মাছ খাওয়ার এই দশটি উপকারিতা জেনে নিন

প্রতিদিন মাছ খাওয়ার এই দশটি উপকারিতা জেনে নিন in bengali

কথায় বলে, মাছে-ভাতে বাঙালি! কথাটি অক্ষরে-অক্ষরে সত্যি। ভারতের অন্যান্য প্রদেশেও মাছ খাওয়ার (health benefits of eating fish everyday) প্রচলন আছে। তবে নানা প্রকারের মাছ বিভিন্ন স্টাইলে রান্না করায় বাঙালিকে কেউ হারাতে পারবে না। পশ্চিমবঙ্গে মাছ শুধু একটি পদ হিসেবে নয়, পূজা অর্চনাতেও মাছ লাগে। পূর্ববঙ্গের বাঙালি বা যারা বাঙাল তাঁরা লক্ষ্মী ও স্বরস্বতী পুজোর সময় জোড়া ইলিশ দেবিকে দান করে। কারণ বাঙালরা মনে করে এই দুই দেবীই বিবাহিতা ফলে তাঁদের মাছ খাওয়া উচিত। বহু বাঙালি বাড়িতে আজও বিবাহিতা মহিলারা বৃহস্পতিবার মাছ ছাড়া খান না। কারণ তাঁরা মনে করেন এতে তাঁদের স্বামীদের আয়ু বৃদ্ধি হয়। বিয়ের সময়ও ছেলের বাড়ি থেকে মেয়ের বাড়িতে গায়ে হলুদের ত্বত্তে মাছ দেওয়া হয়। বোঝাই যাচ্ছে মাছের গুরুত্ব। এটি শুধু একটি পদ নয়, এটি আমাদের সংস্কৃতির অংশ। মাছ খেলে কী-কী লাভ হয় সেই নিয়ে আজকের প্রতিবেদন। আসুন দেখে নেওয়া যাক স্বাস্থ্যরক্ষায় মাছ খাওয়ার (health benefits of eating fish everyday) উপকারিতা।

প্রতিদিনের ডায়েটে মাছ খেলে এই দশটি উপকার হবেই হবে

বাঙালীদের প্লেটেই অ্যাকোরিয়াম (ছবি সৌজন্য - পেক্সেলস ডট কম)

১। অন্যান্য খাবারের চেয়ে মাছ অনেক বেশি সহজপাচ্য। তাই মাছ খেলে আপনার মেটাবোলিজম অনেক দ্রুত হয় ফলে ওজনও অনেক নিয়ন্ত্রণে থাকে। মাছ খেলে মোটা হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা একেবারেই থাকে না।  

২। যাঁদের চোখের সমস্যা হয় তাঁদের ডাক্তার মাছ খেতে বলেন। বিশেষ করে মাছের ছাল বা তেল তাঁদের পক্ষে খুবই ভাল। ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড যা মাছে থাকে সেটি চোখ ভাল রাখে। রেটিনা সুস্থ রাখে এবং ড্রাই আইজ বা চোখের শুষ্কতা প্রতিরোধ করে।

৩। ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড ছাড়াও এতে আছে ভিটামিন ডি, আয়োডিন, অসংখ্য ভিটামিন ও খনিজ। এর প্রত্যেকটাই আমাদের সুস্থ থাকার জন্য এবং রোগ প্রতিরধের জন্য দরকার। তাই মাছ খেলে (health benefits of eating fish everyday) আমাদের অনেকগুলো সমস্যার সমাধান একসঙ্গে হয়ে যাবে।

ছোটবেলায় কে কে মাছের মাথা খেয়েছেন বুদ্ধি বাড়াতে? (ছবি সৌজন্য - পেক্সেলস ডট কম)

৪। এতে আছে ভিটামিন ডি। ভিটামিন ডি হাড় মজবুত রাখে। তাই মাছ খেলে হাড়ের সমস্যা অনেকটাই দূর হয়। বিশেষ করে যাঁদের আরথারাইটিস আছে তাঁদের পক্ষে এটা খুব ভাল।

৫। মাছে যেহেতু ফাইবার আছে সেহেতু দেখা গেছে যে মাছ খেলে আস্থেমা বা হাঁপানির প্রকোপ অনেকটাই কমে যায়। বিশেষ করে শিশুদের খাবারে মাছ দিলে তাঁদের হাঁপানি হওয়ার আশঙ্কা কম হয়।

৬। ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড এবং ডিএইচএ, গর্ভস্থ ভ্রুনের বুদ্ধির বিকাশে খুব কার্যকরী। শিশুর চোখ, হাড় ইত্যাদির বিকাশ ছাড়াও কেন্দ্রীয় স্নায়ু মণ্ডলের বিকাশেও মাছ সাহায্য করে। তাই গর্ভবতী মহিলাদের মাছ খাওয়া দরকার।

৭। এর মধ্যে যে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড আছে অর্থাৎ ইপিএ আর ডিএইচএ মস্তিষ্কের বিকাশে অত্যন্ত কার্যকরী। এই উপাদান ব্রেনের কোষ তাজা রাখে এবং বুদ্ধির বিকাশ ঘটায় (health benefits of eating fish everyday)।

Beauty

Glow Skincare Everyday Essentials Kit

INR 3,585 AT MyGlamm

৮। প্রতিদিন মাছ খেলে শরীরে কোলাজেন বৃদ্ধি পায়। যেহেতু কোলাজেন ত্বক এবং চুল, দুটোর জন্যই ভাল, সেহেতু মাছ খেলে এই দুটোই উজ্জ্বল ও সুস্থ থাকে। মাছের এই গুণ আছে যে সে সেল মেম্ব্রেনের মধ্যে তরল ভাব বজায় রাখে। জার জন্য শুষ্ক ত্বকে আর্দ্রতা আবার ফিরে আসে এবং চুলও নরম আর শাইনি হয়।

৯। মাছ খেলে হার্ট ভাল থাকে, কারণ এতে আছে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড। এটি কোলেস্টরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ রাখে। শুধু তাই নয়, ডিম, দানা শস্য এবং মুরগির মাংস থেকে আমাদের শরীরে ওমেগা সিক্স ফ্যাটি অ্যাসিড ঢোকে। এটি রক্ত ঘন করে দেয়। মাছের ওমেগা থ্রি এই ওমেগা সিক্সকে বেশি শক্তিশালী হতে দেয়না।

১০। প্রতিদিন মাছ খেলে (health benefits of eating fish everyday) শুধু মানসিক অবসাদ নয়, মানসিক অস্থিরতাও কমায় এবং যখন তখন মুড সুইং হওয়াও রোধ করে।

মূল ছবি সৌজন্য - পেক্সেলস ডট কম

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!