সারাক্ষণই কি মোবাইলে চোখ? কম্পিউটার ভিশন সিনড্রমের সমস্যা শুরু হওয়ার আগে সাবধান হন

চোখে ব্যথা? জল পড়ে? দৃষ্টি ঝাপসা হয় যাচ্ছে? কম্পিউটার ভিশন সিনড্রমের সমস্যা হতে পারে in bengali

কম্পিউটার আর মোবাইল ছাড়া চলে নাকি! কাজে-কর্মে তো লাগেই। আজকাল বিনোদনের মাধ্যম হিসেবেও মোবাইল-কম্পিউটারের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে উঠেছে। আর যেদিন থেকে এদেশে সোশ্যাল মিডিয়ার দাপাদাপি শুরু হয়েছে, সেদিন থেকে তো সিংহভাগই মোবাইলের দাস! আর এই সব কারণে আমাদের চোখের যে বারোটা বাজছে, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। বিশেষ করে কম্পিউটার ভিশন সিনড্রমের (computer vision syndrome) মতো রোগে আক্রান্তের সংখ্যা তো লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। তাই এই রোগের খপ্পর থেকে বেঁচে থাকার উপায় সম্পর্কে ঝটপট জেনে নিন...

কম্পিউটার ভিশন সিনড্রম কেন হয়

ছবি - পেক্সেলস ডট কম

দীর্ঘক্ষণ মোবাইল বা কম্পিউটারে মুখ গুঁজে বসে থাকলে চোখের উপর মারাত্মক চাপ পড়ে। বিশেষ করে চোখের পেশীগুলি প্রয়োজন অতিরিক্তি ঘাম ঝরানোর কারণে স্বাভাবিকভাবেই তাদের ক্ষমতা কমতে শুরু করে। একই কারণে ঘাড়ের পেশীও দুর্বল হতে থাকে। ফলে দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়ার পাশাপাশি চোখের ক্লান্তিও বাড়ে। ঘাড়েও মারাত্মক ব্যথা হয়। এই কারণে মাথার যন্ত্রণাও হতে পারে। তাই দিনের পর দিন এমন সব লক্ষণ প্রকাশ পেতে শুরু করলে মনে কোনও সন্দেহ রাখবেন না যে আপনি computer vision syndrome-এ আক্রান্ত হয়েছেন।

সমাধান কী?

ছবি - পেক্সেলস ডট কম

১। একটু চেষ্টা করলেই চোখের ক্ষতি আটকাতে পারবেন। কী করতে হবে তার জন্য? তেমন কিছু নয়! একটু ডায়েটের দিকে নজর ফেরাতে হবে। এক্ষেত্রে নিয়মিত সবুজ শাকসবজি খেতে হবে। তাতে রীশরীরে ভিটামিন এ-এর মাত্রা বাড়তে শুরু করবে। সঙ্গে lutein এবং zeaxanthin নামক উপকারী অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের ঘাটতিও দূর হবে, যে কারণে চোখের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটতে সময় লাগবে না।

২। ঘুমোতে যাওয়ার আগে অনেকেই দীর্ঘক্ষণ মোবাইল ব্যবহার করেন, যা মোটেই স্বাস্থ্যকর অভ্যাস নয়। কারণ, অন্ধকারে মোবাইলের নীল আলো চোখের উপর মারাত্মক চাপ ফেলে। তাতে চোখের ভীষণ ক্ষতি হয়। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই কম্পিউটার ভিশন সিনড্রমের (computer vision syndrome) মতো রোগের খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়।

৩। বিশেষজ্ঞদের মতে দীর্ঘক্ষণ কম্পিউটার বা মোবাইল ব্যবহারের কারণে চোখের যাতে কোনও ক্ষতি না হয়, তা সুনিশ্চিত করতে মিনিট কুড়ি কম্পিউটার অথবা মোবইল ব্যবহারের পরে কম করে কুড়ি সেকেন্ড দূরে তাকিয়ে থাকতে হবে। প্রতি কুড়ি মিনিট অন্তর অন্তর এই ভাবে যদি চোখের ব্যায়াম করা যায়, তাহলে চোখের ক্লান্তি তো দূর হবেই, সেই সঙ্গে মাথা যন্ত্রণা এবং দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়ার মতো সমস্যার খপ্পরে পড়ার আশঙ্কাও দূর হবে।

৪। আপনি কি প্রতিদিন ঘন্টা আটেক কম্পিউটারের সামনে কাটান? তাহলে এবার থেকে রিডিং গ্লাস ব্যবহার করা শুরু করুন। তাতে কী হবে? চশমা পরা শুরু করলে কম্পিউটার বা মোবাইলের নীল আলোর কারণে (computer vision syndrome) চোখের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা কমবে। তাই বুঝতেই পারছেন, চোখের স্বাস্থ্যের খেয়াল রাখতে হলে, চশমা পরা ছাড়া আর কোনও গতি নেই!

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!        

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!