রুক্ষ ও ডগা চেরা চুল? কলার হেয়ার মাস্ক ব্যবহার করে দেখেছেন?

রুক্ষ ও ডগা চেরা চুল? কলার হেয়ার মাস্ক ব্যবহার করে দেখেছেন?

রুক্ষ চুল বা ডগা চেরা চুল, এই সব ধরনের সমস্যাই সমাধান করতে পারে একটাই ফল। বাজারে যেমন সহজলভ্য, একইভাবে তার পুষ্টিগুণেও সে সেরা। বুঝতে পারছেন না কোন ফলের কথা বলছি? কলার মতো পুষ্টিগুণ কোন ফলে রয়েছে বলুন দেখি। যেমন দামও কম, আবার পুষ্টিতেও ভরপুর। তাই প্রতিদিন একটা করে কলা খাওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু আপনি কি জানেন, একইভাবে চুলের যত্নে কলা খুবই উপকারী কলা। আপনি যদি নিয়মিত কলার হেয়ারমাস্ক  (banana hair mask)  চুলে লাগাতে পারেন, তবে আপনার চুলের হারিয়ে যাওয়া জেল্লা ফিরবে। রুক্ষভাব দূর হবে। চুল হবে সুন্দর ও ঝলমলে।

সুন্দর ও কোমল চুল কে না চান?

কারা এই হেয়ার মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন

কলার হেয়ার মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন সবাই। তবে যাঁদের চুল খুব রুক্ষ ও দুর্বল। অল্পেই ভেঙে ঝরে যায় তাঁরা এই হেয়ার মাস্ক অবশ্যই ব্যবহার করুন। কিংবা আপনার চুলের ডগা লালচে হয়ে ফেটে গেলেও কলার মাস্ক লাগাতে পারেন। সপ্তাহে অন্তত একবার ব্যবহার করুন। পরিবর্তন আপনার চোখে পড়বে। চুল হবে মোলায়েম ও রেশমের মতো ঝলমলে  (banana hair mask) ।

Beauty

Ultimate Germ Defence 35 Sanitizing Wipes + 30 Sanitizing Towels + 4 Moisturizing Hand Sanitizers

INR 999 AT MyGlamm

কীভাবে বানাবেন

আপনার চুল কতটা লম্বা তার উপর ভিত্তি করে দুটো বা তিনটে কলা নেবেন। যেকোনও কলাই আপনি নিতে পারেন। তার সঙ্গে দুই টেবিলচামচ মধু মিশিয়ে নিন। তার সঙ্গে মিশিয়ে নিন দুই টেবিল চামচ নারেকেলর দুধ। আর এক টেবিল চামচ নারকেল তেল অবশ্যই নেবেন। দুই টেবিল চামচ অলিভ অয়েল নিন। কয়েক ফোঁটা গোলাপ জল মিশিয়ে নিন। মাস্ক ঘন করার জন্য দুই টেবিল চামচ টক দই মেশাতে পারেন। তবে মনে রাখবেন, এই পরিমাণ আপনার চুলের ঘনত্ব ও দৈর্ঘ্য অনুযায়ী নেবেন। বেশি কিংবা কম নয়  (banana hair mask) ।

কলাগুলো খোসা ছাড়িয়ে চাকা চাকা করে কেটে বাটিতে রাখুন। তার সঙ্গে নারকেলের দুধ আর মধু যোগ করে ভালো করে চটকে মিশিয়ে নেবেন। এবার নারকেল তেল আর অলিভ অয়েল সেই মিশ্রণে মিশিয়ে দিন। সমস্ত উপাদান খুব ভাল ভাবে মেশাতে পারেন। প্রয়োজনে আপনি ব্লেন্ড করেও নিতে পারেন। সুগন্ধের জন্য কয়েক ফোঁটা গোলাপ জল মিশিয়ে নিতে পারেন।

চুলের যত্ন নিতে হবে নিজেকেই

কীভাবে ব্যবহার করবেন

চুল প্রথমে ভালো করে আঁচড়ে জট ছাড়িয়ে নেবেন। চুল জল দিয়ে ভিজিয়ে নেবেন। কন্ডিশনার লাগানোর মতো করে কলার মিশ্রণটা চুলের গোড়া থেকে ডগা পর্যন্ত ভাল ভাবে লাগিয়ে নেবেন। চিরুনি দিয়ে আঁচড়ে নিতে পারেন। তাতে চুলের প্রতিটি অংশে মিশ্রণটি লেগে যাবে। অন্তত আধ ঘণ্টা কলার হেয়ার মাস্ক চুলে রাখুন। আধ ঘণ্টা পর প্রথমে জল দিয়ে চুল ভালো করে ধুয়ে নেবেন। তারপর শ্যাম্পু করে নিন। প্রাকৃতিক হাওয়ায় চুল শুকিয়ে নিন। ড্রায়ার ব্যবহার করবেন না।

চুলে পরিবর্তন আপনার চোখে পড়বেই। আপনার চুল থাকবে সুন্দর ও জেল্লাদার। আর অপেক্ষা কীসের, কলার হেয়ার মাস্ক  (banana hair mask) এই সপ্তাহেই ট্রাই করুন।

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!       

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!