দীর্ঘদিন ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছেন, ভবিষ্যতেও তাই চান; শরীরের জন্য ভাল তো?

দীর্ঘদিন ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছেন, ভবিষ্যতেও তাই চান; শরীরের জন্য ভাল তো?

প্যানডেমিক আমাদের জীবনের চেনা ছকটা যেন মুহূর্তেই বদলে দিয়েছে। আমরা যাঁরা কোনওদিনও অফিসের বাইরে বসে কাজ করার কথা ভাবিনি, তাঁদের মধ্যে অনেকেই এখনও ওয়ার্ক ফ্রম হোম (working from home) করে যাচ্ছি। বাড়ি থেকে কাজ করা অনেকের কাছে চয়েস ছিল, অনেককে বাধ্য হয়েই ওয়ার্ক ফ্রম হোম করতে হয়েছে। বাড়ি থেকে কাজ করতে গিয়ে একাধিক সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়েছে। প্রথমেই যা সমস্যা করেছে তা হল, কম যোগাযোগ বা লেস কমিউনিকেশন। কম যোগাযোগের জন্য বুঝতে সমস্যা হয়েছে। অনেকের বাড়িতেই অফিসের সেট আপ ছিল না, সেটাও একটা সমস্যা তৈরি করেছে।

যদিও এখন অনেকেই অফিসে ফিরছেন। আবার অনেকেই বাড়ি থেকে কাজ করছেন। অনেকে আবার প্যানডেমিকের পরেও বাড়ি থেকেই কাজ করার কথা চিন্তা করেছেন। আপনিও কি প্যানডেমিকের পরেও ওয়ার্ক ফ্রম হোমের কথা চিন্তা করেছেন? তাহলে বলি আপনি কি কখনও ভেবে দেখেছেন, দীর্ঘমেয়াদী ওয়ার্ক ফ্রম হোম আপনার শরীর ও স্বাস্থ্যে কতটা প্রভাব ফেলতে পারে? দীর্ঘমেয়াদী ওয়ার্ক ফ্রম হোম আদৌ কি আপনার জন্য ভাল?

 

স্ট্রেস বাড়ছে না তো?

যাঁরা অফিসে কাজ করেন, তাঁরা প্রায়ই বলে থাকেন, "ওয়ার্ক ফ্রম হোমে আবার চিন্তা কীসের?" আসলে ওয়ার্ক ফ্রম হোমেই (working from home) চিন্তা। কারণ, কাজের চেনা ছক বদলে যায়। বদলে যায় আপনার চারপাশের পরিবেশ। ফলত, তার প্রভাব পড়ে আপনার শরীরে (WFH bad for health)। আর সেই প্রভাব নিয়ে কিন্তু আজ থেকেই সতর্ক হন।

কম ফিট থাকছেন না কি বেশি ফিট থাকছেন?

যখন প্রথম ওয়ার্ক ফ্রম হোম করতে শুরু করি, মনে করেছিলাম অনেক সময়। কাজের পরে একটু ব্যায়াম করে নেওয়া যাবে। অফিসে থাকার সময় সেটা হয়ে ওঠে না। কিন্তু আদৌ কি তাই হল? আপনার অভিজ্ঞতাই বলুন না। বেশিরভাগ মানুষের সঠিক ওয়ার্ক স্পেস নেই। বিছানায় বসে ল্যাপটপেই অনেকে কাজ করছেন দিনের পর দিন। তার জন্য যে কোনও রকম পজিশনে বসছেন। আর তার ফলে পিঠে ও কোমরে ব্যথা হতে থাকছে (WFH bad for health)। এক সময় গিয়ে তা মারাত্মক আকার নিচ্ছে। 

 

যেখানে সেখানে বসে কাজ করা কি ভাল?

অনেক কর্মী ওয়ার্ক ফ্রম হোমে কাজের সময়ের মধ্যে ব্রেক পান। যে সময়ে তিনি হয়তো একটু হেঁটে আসতে পারলেন কিংবা স্ট্রেচ করতে পারলেন। কিন্তু অনেক কর্মীই পান না (working from home) । আর তার সংখ্যাই বেশি। ফলে কোনও মুভমেন্ট নেই। ওজন বাড়ছে। শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যথা হচ্ছে। আর দীর্ঘমেয়াদী হলে এই সমস্যা আরও বাড়তে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Beauty

Ultimate Germ Defence 35 Sanitizing Wipes + 30 Sanitizing Towels + 4 Moisturizing Hand Sanitizers

INR 999 AT MyGlamm

আপনি কী করবেন

কাজের চাপ অনেক বেশি থাকে। কিন্তু তার মধ্য়েও একটা রুটিন তৈরি করে নেওয়ার চেষ্টা করুন। অন্তত আধ ঘণ্টা ব্যায়াম করুন। কাঠের চেয়ারে বসে টেবিলে ল্যাপটপ রেখে কাজ করুন। যতটা সম্ভব অফিসের মতো ওয়ার্ক স্পেস তৈরি করার চেষ্টা করুন। চেয়ার, টেবিল সব সময় জীবাণুমুক্ত রাখুন।

কাজের চাপ কম না বেশি?

আরও ফাঁকা সময় না কি আরও কাজের চাপ?

যাঁরা ওয়ার্ক ফ্রম হোম করেন না, তাঁরা মনে করেন ওয়ার্ক ফ্রম হোমে কাজের চাপ অনেক কম। কিন্তু তাঁরা জানেন না, আসলে ওয়ার্ক ফ্রম হোমে কাজের চাপ কিন্তু বেশি। যাঁরা বাড়ি থেকে কাজ করেন তাঁরা বোধ হয় জানেন। অফিসের কাজের বাঁধা সময়ের থেকে অনেক বেশি সময় কাজ করতে হয় অনেককে। আর তার জন্য বেশি স্ট্রেস পড়ে, ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে এবং তার ফল উচ্চ রক্তচাপ (WFH bad for health)।

আপনি কী করবেন

কাজ শুরু করার আগে অন্তত আধ ঘণ্টা হেঁটে আসবেন। কাজের পর মেডিটেশন করবেন প্রতিদিন।

একা হয়ে যাচ্ছেন না তো?

কম ডিস্ট্র্যাকশন না কি একাকিত্ব?

বাড়ি থেকে কাজ করলে না কি 'অত্যন্ত মনযোগ' দিয়ে কাজ করা যায়। কর্মীর জন্য যে গোল তৈরি করা থাকে, কোনও রকম বাধা ছাড়াই সেই কাজটা তিনি করতে পারেন। অত্যন্ত মন দিয়ে করতে পারেন। বাড়ি থেকে যাঁরা কাজ করেন, বিশ্বাস করা হয় তাঁরা পরিবারকে আরও বেশি সময় দিতে পারেন। অর্থাৎ, কাজের মধ্যে ১৫ মিনিট ব্রেকে সন্তানকে খাইয়ে নিতে পারেন। কাজের পর বাবা, মায়ের সঙ্গে কোথাও ঘুরতে যেতে পারেন। পরিবারের আরও কাছের হয়ে উঠতে পারেন তাঁরা। কিন্তু কতজন কর্মী এই কাজটা করতে পারেন? প্রশ্ন কিন্তু এটাই।

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায়, একা ঘরে কর্মীকে বসে কাজ (working from home) করতে হয়। অনেক সময় দরজা বন্ধ করে কাজ করতে হয়। একটা ঘরে একা একা কাজ করার পরিণতি কী হতে পারে জানেন? অফিসে চার, পাঁচটা মানুষের সঙ্গে হলেও আপনার বার্তালাপ হত। মনে করে দেখুন, আপনারা টি-ব্রেক নিতেন। কিন্তু এখন সেসব কোথায়? ভার্চুয়ালি তা হয় না। অর্থাৎ, আপনি একাই। যার জন্য ইনসোমনিয়া হতে পারে। এমনকী ডিপ্রেশন (WFH bad for health)পর্যন্ত গড়াতে পারে পুরো বিষয়টি। একাকিত্ব কিন্তু মাদাকসক্তির মতোই ক্ষতিকারক।

 

অনেক বেশি সময় কাজ করছেন

অর্গানাইজেশনগুলি তাদের কর্মীদের জন্য 'ভার্চুয়াল ক্যাফে'-র আয়োজন করতে পারে (working from home) । কিংবা, চারদিন বাড়ি থেকে কাজ করলেও একদিন অফিসে এসে কাজ করতে পারেন তাঁরা।

আপনি কী করবেন

কাজের মধ্য়ে অন্তত আধ ঘণ্টার ব্রেক নিন। সেই সময়টা পরিবারের কয়েকজন মানুষের সঙ্গে কথা বলুন। কিংবা কাজের পর হেঁটে আসুন। রাস্তায় বেরিয়ে মানুষ দেখলেও আপনার মস্তিষ্কের কাছে সেই বার্তাটা পৌঁছাবে। সাবধানে থাকুন, সুস্থ থাকুন।

তথ্যসূত্র - দ্য কনভারসেশন

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন
#POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন
নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!