ঠাম্মীর রান্নার খাতা : পৃষ্ঠা উল্টাতেই ব্রিটিশ আমল, খুঁজে পেলাম 'চিকেন ডাকবাংলোর' রেসিপি

ঠাম্মীর রান্নার খাতা : পৃষ্ঠা উল্টাতেই ব্রিটিশ আমল, খুঁজে পেলাম 'চিকেন ডাকবাংলোর' রেসিপি

আগেই বলেছিলাম ঠাম্মীর রান্নার খাতা যেন একটা আস্ত রহস্য। প্রতি পৃষ্ঠায় যেমন বিভিন্ন মশলার গন্ধ লেগে আছে, আবার প্রতি পাতাতেই আছে রহস্যজনক সব রান্নার হদিশ। প্রতি রান্নাতেই নতুন নতুন রকম মশলা। কয়েক পাতা পড়ে ফেললেই সেই পদের স্বাদ বেশ অনুভব করা যায়। আজ ঠাম্মীর রান্নার খাতা থেকে যে পদের কথা লিখব, সেই রান্নার বয়স আমার ঠাম্মীর(ঠাকুমা) চাইতেও বেশি। ঠাম্মী সেই রান্না শিখেছিলেন তাঁর মায়ের থেকে। কারণ এই রান্না সেই ব্রিটিশ যুগ থেকে হয়ে আসছে। আজ গল্প হবে চিকেন ডাকবাংলোর রেসিপি (chicken dak bungalow recipe) নিয়ে...

 

ঠাম্মীর মা ও বাবা থাকতেন অসমে। সেখানেই ডাক্তারি করতেন ঠাম্মীর বাবা। কাছে পিঠেই সব ব্রিটিশ ডাকবাংলো। বড় বড় কর্মকর্তারা সেই ডাকাবংলোয় থাকতেন আবার অনেকে বিশ্রাম নিতেও আসতেন। ডাকবাংলোর এক ঠাকুরের থেকে এই রান্না (chicken dak bungalow recipe)শিখে নিয়েছিলেন ঠাম্মীর মা। আর শিখিয়েছিলেন ঠাম্মীকেও। সঙ্গে বলেছিলেন মজাদার ঐতিহাসিক গল্প।

ডাকবাংলো কী

ব্রিটিশ আমলে সরকারী কর্মীদের বড় বড় বাড়ি থাকত। এক একটি ডাকবাংলো। থাকার ও খাওয়ার ব্যবস্থাও থাকত সেখানে। বড় বড় সরকারী কর্মী ও কখনও ভ্রমণকারীদের বিশ্রামের জন্যই তৈরি হয়েছিল এই ডাকবাংলোগুলি। ডাক শব্দ ডাক ব্যবস্থাকে (চিঠি পাঠানো) বোঝাতেই ব্যবহার করা হত। ব্রিটিশ আমলে ঘোড়ার পিঠে চেপেই এক জায়গা থেকে আর এক জায়গায় চিঠি পৌঁছাতেন ডাকের কর্মকর্তারা। ডাক রুটের কাছেই তৈরি থাকত ডাকবাংলো। প্রশাসনিক কর্মকর্তারা যাতে সেই বাংলোয় বিশ্রাম নিতে পারেন।

চিকেন ডাকবাংলো নামকরণ কেন

ডাকবাংলোয় যেহেতু খাবারের ব্যবস্থা থাকত। সেইজন্য নানা রকম রান্না হত সেখানে। রান্নার ঠাকুররা রান্না করতেন। তার মধ্যে অন্য়তম বিখ্যাত হল মুরগীর ডাকবাংলো (chicken dak bungalow recipe)। ডাকবাংলোতেই এই রেসিপি প্রথম রান্না হয়েছিল বলে এর নাম চিকেন ডাকবাংলো। পরবর্তী সময়ে নানা ভাবে এর রেসিপি ভেঙেচুড়ে নতুন নতুন ভাবে রান্না করা হয়েছে। তবে শোনা যায়, এই রান্নায় সব উপকরণ গোটা গোটা দেওয়া হত। আবার অনেক ঠাকুর না কি তাঁদের সাহেবের ঘোড়ার আওয়াজ পেয়েই রান্না বসিয়ে দিতেন।

ছবি সৌজন্য - ইনস্টাগ্রাম

ডাকবাংলোয় ঠাম্মী স্পেশাল মশলা

ডাকবাংলো রান্না করার জন্য বিশেষ এক ধরনের মশলা প্রয়োজন। তার জন্য আপনার প্রয়োজন

গোটা জিরে
শুকনো লঙ্কা দুটি
এলাচ চারটি
লবঙ্গ চারটি
দারচিনি দুটো
গোলমরিচ গোটা চার পাঁচটা

এইগুলি রোস্ট করে নিয়ে মিক্সারে গ্রাইন্ড করে নেবেন। আপনার কাছে তৈরি থাকবে চিকেন ডাকবাংলোর আসল মশলা।

মাংস ম্যারিনেশন

আপনার পরিমাণ মতো মুরগীর মাংস নেবেন। তা ভাল করে ধুয়ে নেবেন। টক দই, সর্ষের তেল, পরিমাণ মতো নুন, কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো, আদা-রসুন-কাঁচা লঙ্কা বাটা ও হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে নেবেন। ভাল করে মাংস মেখে নেন। রেখে দেবেন অন্তত এক ঘণ্টা।

রান্নার পদ্ধতি

মাংসের পরিমাণ অনুযায়ী (আমি ৫০০গ্রাম মাংসের জন্য় তিনটি বড় সাইজের পেঁয়াজ নিই) পেঁয়াজ জিরে জিরে করে কেটে নেবেন। কড়াইয়ে তেল গরম করে নিন। তারপর সেই তেলে একটা এলাচ, দারচিনি ও লবঙ্গ এবং তেজ পাতা দিয়ে পেঁয়াজ দিয়ে দিন। এই সময়ে তেলে একটু চিনি দিয়ে দেবেন। তারপর পরিমাণ মতো নুন দিয়ে পেঁয়াজ ভেজে নিন। ও তারপর আদা ও রসুন বাটা দিয়ে দেবেন। এরপর ম্যারিনেট করা মাংস দিয়ে দিন। ভাল করে কষাতে থাকুন। এই সময়ে ওই করে রাখা মশলা অল্প পরিমাণে মিশিয়ে কষাতে থাকুন।

ছবি সৌজন্য - ইনস্টাগ্রাম

অন্যদিকে...

আলু ও ডিম সিদ্ধ করে নিন। মনে রাখবেন আলু দেবেন গোটা গোটা। গোটা আলু আধ সিদ্ধ করে ভেজে নিন। ডিমও ভেজে নেবেন।

এরপর সেই আলু মিশিয়ে দিন। পরিমাণ মতো জল দিন। ভাল করে ফুটিয়ে নিন। নামানোর আগে করে রাখা মশলা আবার মিশিয়ে দিয়ে অল্প আঁচে কিছুক্ষণ রেখে দেবেন। এই সময় নুন ও চিনির পরিমাণ চেখে দেখে নেবেন। আপনার চিকেন ডাকবাংলো(chicken dak bungalow recipe) তৈরি।

মূল ছবি - ইনস্টাগ্রাম

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!       

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!