বিয়ে করবেন ভাবছেন, কিন্তু ম্যাট্রিমোনিয়াল সাইটে কোনটা ফেক প্রোফাইল ধরবেন কিভাবে?

বিয়ে করবেন ভাবছেন, কিন্তু ম্যাট্রিমোনিয়াল সাইটে  কোনটা ফেক প্রোফাইল ধরবেন কিভাবে? in bengali

বর থেকে বিরিয়ানি, সবই এখন অনলাইনে মেলে। একটা ক্লিকেই খেল খতম! নিমেষেই মিলবে রাজপুত্রের হদিস। তাই তো দিনে-দিনে পাত্রপাত্রীর পাতায় বিজ্ঞাপনের সংখ্যা কমছে। পয়সা যখন খরচ হবেই, তখন অনলাইনে বিজ্ঞাপন দিতে ক্ষতি কী! তাতে আরও দ্রুত সুপাত্রের সন্ধান পাওয়া যাবে। তাই বিয়ের বয়স হওয়ামাত্রই সিংহভাগ পরিবারই matrimonial website-এ প্রোফাইল তৈরিতে ব্যস্ত হয়ে পরে। কিন্তু সেখানেও যে এখন গোল বেধেছে। আজকাল বেশিরভাগ ম্যাট্রিমোনিয়াল সাইটেই ভেজাল প্রোফাইলের (tips to identify fake matrimonial profiles) ছড়াছড়ি। কে আসল, কেই বা নকল, তা বুঝি উঠতেই কালঘাম ছুটছে অনেকের। নকলের খপ্পরে পড়ছেনও অনেকে। তাই তো এই টিপসগুলি মাথায় রাখা জরুরি। তাতে প্রোফাইলের সত্যতা যাচাই করতে আর সময় লাগবে না।

১। প্রোফাইলে দেওয়া তথ্যের উপরে ভাল করে চোখ বোলান

matrimonial site-এ প্রোফাইল খুলতে গেলে প্রথম ধাপেই নিজের সম্পর্কে কিছু তথ্য দিতে হয়। আপনি যাঁকে পছন্দ করেছেন, তাঁকেও সেই কাজটি করতে হয়েছে। তাই প্রোফাইলে দেওয়া তথ্যে (tips to identify fake matrimonial profiles) একবার চোখ বুলিয়ে নিন। যদি লক্ষ করেন কোনও অসামঞ্জস্য রয়েছে, তা হলে আর এক পাও এগবেন না।

২। বিয়ে নিয়ে তাড়াহুড়ো?

কয়েক দিন দেখা করার পরেই যদি পাত্র বিয়ের জন্য জোরাজুরি করে, তা হলে বাড়ির বড়দের সে বিষয়ে জানিয়ে রাখাটাই বুদ্ধিমানের কাজ। অনেকেই নানা অসৎ উদ্দেশ্য বিয়ে করতে মরিয়া হয়ে ওঠে। আপনার ক্ষেত্রেও যে এমন ঘটনা ঘটছে না, তা যাচাই করে দেখে নেওয়াটা আপনার কর্তব্য। মাথায় রাখবেন, ফেক প্রোফাইলের থেকেও ভয়ঙ্কর হল অসৎ ব্যক্তি। তাই যাঁকে জীবনসঙ্গী হিসেবে বেঁছে নেওয়ার কথা ভাবছেন, সে যে আপনাকে ব্যবহার করে দূরে ছুড়ে ফেলে দেবেন না, তা সুনিশ্চিত করতে হবে। সন্দেহ দানা বাধলেই কাঁচি করে দিন

৩। ছবি দেখুন ভাল করে

যে সব প্রোফাইলে কোনও ছবি নেই, তাতে ক্লিক করা চলবে না। নকল প্রোফাইলেই (tips to identify fake matrimonial profiles) মূলত ছবি থাকে না। তবে আজকাল অসাধু ব্যক্তিরা খুব স্মার্ট হন। ফেক প্রোফাইলে ছবি দিতেও অনেকে পিছপা হন না। সেক্ষেত্রে কী করণীয়? এমন পরিস্থিতিতে কিছু 'গোল্ডেন রুল' মেনে চলতে হবে। যেমন ধরুন, প্রোফাইলে দেওয়া বয়সের সঙ্গে যদি ছবির মিল না থাকে, তা হলে এই নিয়ে সরাসরি প্রশ্ন তুলতে দেরি করবেন না। আজকাল নানা এডিটিং টুলের সৌজন্যে ছবি এডিট করা জলভাত হয়ে গেছে। কোনও প্রোফাইল পিক-এ খুব বেশি এডিটের ছাপ থাকলে তেমন প্রোফাইল এড়িয়ে চলাই বাঞ্ছনীয়। এক্ষেত্রে আরেকটা কাজও করতে পারেন। প্রোফাইলে যে নাম দেওয়া রয়েছে, সেই নামে ফেসবুকে সার্চ করুন। দুটো প্রোফাইল মিলছে কিনা, সেটা খুঁটিয়ে একবার দেখে নিন। কোনও সন্দেহ হলে সঙ্গে-সঙ্গে প্রোফাইল থেকে বেরিয়ে আসুন।

৪। বারেবারে এডিট করছে কি?

যাঁরা নকল প্রোফাইল তৈরি করেন, তাঁরা কিছুদিন অন্তর-অন্তরই সাধারণত প্রোফাইলে লেখা নানা তথ্য বদলে দেন। অনেকে তো ধর্ম, চাকরি এবং হবির কলামে প্রায়ই তথ্য বদলাতে থাকেন। জানবেন, অসাধু ব্যক্তিরাই সাধারণত এমন কাজ করে থাকেন। তাই কোনও ছেলেকে পছন্দ হওয়ামাত্রই তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করবেন না। বরং কয়েক সপ্তাহ একটু নজর রেখে দেখুন। যদি প্রোফাইলে দেওয়া তথ্য প্রায়ই বদলে যায় (tips to identify fake matrimonial profiles), তা হলে মনে কোনও সন্দেহ রাখবেন না যে নকল ব্যক্তির পাল্লায় পড়েছিলেন আপনি।

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!       

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!