এসেনশিয়াল অয়েল ও ইনফিউজড অয়েলের মধ্যে কি কোনও তফাৎ আছে?

এসেনশিয়াল অয়েল ও ইনফিউজড অয়েলের মধ্যে কি কোনও তফাৎ আছে? in bengali

বহুদিন ধরেই ত্বক-চুলের যত্নে এবং শরীর সুস্থ রাখতে বিকল্প চিকিৎসা হিসেবে অ্যারোমাথেরাপি জনপ্রিয়তা পেয়েছ। আর এই অ্যারোমাথেরাপির অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ হল রকমারি এসেনশিয়াল অয়েল (all you need to know about essential oil and infused oil)। ত্বক-চুলের যত্নে তো বচেই, স্ট্রেস থেকে অ্যাংজাইটি, এমনকী ডিপ্রেশনের মতো সমস্যার প্রকোপ কমাতেও অ্যারোমাথেরাপির উপর ভরসা রাখেন অনেকেই। কিন্তু জানেন কি, ইচ্ছে থাকলে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলতে পারেন নানা ধরনের এসেনশিয়াল অয়েল। কীভাবে, সেটাই বলা হবে এখানে।

Beauty

Tinted Perfection Brightening Banana Primer

INR 1,095 AT MyGlamm

এসেনশিয়াল অয়েল কী?

ল্যাভেন্ডার ফুলের নির্যাস থেকে তৈরি এসেনশিয়াল অয়েল

বিশেষ কিছু গাছের পাতা এবং ফুল থেকে সংগ্রহ করা অয়েলকে বিশেষ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে শুদ্ধ করে তৈরি হয় এসেনশিয়াল অয়েল (all you need to know about essential oil and infused oil)। পাতা এবং ফুলের নির্যাস থাকার কারণে এই অয়েল যেমন সুগন্ধিযুক্ত হয়, তেমনই নানা উপকারী উপাদানও মজুত থাকে এতে। তাই তো এসেনশিয়াল তেলের ব্যবহারে মেলে নানা উপকার। একাধিক গাছের পাতা এবং ফুল থেকে তৈরি হয় নানা ধরনের এসেনশিয়াল অয়েল। যেমন, পুদিনা পাতা থেকে যে অয়েল তৈরি হয় তা ক্লান্তি দূর করতে এবং হজম ক্ষমতার উন্নতিতে কাজে আসে। আবার ল্যাভেন্ডার অয়েল নিমেষে স্ট্রেস কমায়। স্যান্ডালউড অয়েল যেখানে নার্ভকে শান্ত রাখে এবং মনোযোগ বাড়ায়, সেখানে গোলাপ ফুল থেকে তৈরি এসেনশিয়াল অয়েলকে কাজে লাগালে অ্যাংজাইটির প্রকোপ কমে। আবার ক্যামোমাইল অয়েল, টি ট্রি অয়েল এবং লেমন অয়েল (all you need to know about essential oil and infused oil), মাথা যন্ত্রণা কমাতে এবং অবসাদ দূর করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

এসেনশিয়াল অয়েল ও ইনফিউজড অয়েল কি এক?

তেলের মধ্যে নানা গুল্ম-ফুল ইত্যাদি ভিজিয়ে তৈরি করা হয় ইনফিউজড অয়েল

প্রথম পার্থক্য হল এসেনশিয়াল অয়েল তৈরি হয় গাছের পাতা অথবা ফুলের নির্যাস থেকে। তাই এই তেল খুব কড়া হয়। এই কারণেই সরাসরি ত্বকের উপরে এসেনশিয়াল অয়েল লাগাতে বারণ করা হয়। অন্যদিকে ইনফিউজড অয়েলে ফুল বা গাছের নির্যাস ব্যবহার করা হয় না। পরিবর্তে ফুল-পাতা-গুল্ম মেশানো হয় নানা ধরনের তেলের মধ্যে। তাই এই তেল অপেক্ষাকৃত হলকা হয়। আর তাই তা বেশি মাত্রায় ব্যবহারের প্রয়োজন পড়ে। এক্ষেত্রে আর একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে। তা হল, কালো কাঁচের শিশিতে এসেনশিয়াল অয়েল না রাখলে সহজে তা খারাপ হয়ে যায়। কিন্তু ইনফিউজড অয়েল (all you need to know about essential oil and infused oil) যে-কোনও শিশিতেই রাখা যেতে পারে।

Beauty

LIT Velvet Matte Liquid Lipstick - My Oh My

INR 395 AT MyGlamm

রইল দুই ধরণের ইনফিউজড অয়েল তৈরির পদ্ধতি

১। রোজ ইনফিউজড অয়েল: হাফ কাপ গোলাপের পাপড়ি নিয়ে থেঁতো করে নিন। তারপর থেঁতো করা গোলাপের পাপড়িগুলি একটা পাত্রে নিয়ে তাতে হাফ কাপ সুইত আমন্ড অয়েল মিশিয়ে মুখটা বন্ধ করে দিন। এবার ভাল করে নাড়ান, যাতে গোলাপের পাপড়ির সঙ্গে তেলটা মিশে যেতে পারে। এভাবে ২৪ ঘন্টা অন্ধকার জায়গায় রেখে দিন। পরের দিন মিশ্রণটা ছেঁকে নিয়ে গোলাপের পাপড়িগুলো ফেলে দিন। এরপরে আবার হাফ কাপ গোলাপের পাপড়ি নিয়ে ওই তেলে ২৪ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। সময় হয়ে গেলে খেয়াল করুন গোলাপের পাপড়িগুলি ঠিক মতো তেলে মিশে গেছে কিনা। যদি এমনটা হয়, জানবেন আপনার রোজ ইনফিউজড অয়েল (all you need to know about essential oil and infused oil) তৈরি। এবার তেলটা একটা কাঁচের শিশিতে ঢেলে রেখে দিন।

২। জ্যাসমিন-ল্যাভেন্ডার ইনফিউজড অয়েল: একটা পাত্রে হাফ কাপ করে জুঁই এবং ল্যাভেন্ডার ফুল নিয়ে ভাল করে থেঁতো করে নিন। তারপর সেই ফুলগুলি একটা পাত্রে নিয়ে তাতে এক কাপ এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল মিশিয়ে মুখটা ভাল করে বন্ধ করে দিন। ৪৮ ঘণ্টা পরে তেলটা ছেঁকে নিয়ে ফুলের পাপড়িগুলি ফেলে দিন। এবার তেলটা (all you need to know about essential oil and infused oil) একটা কাঁচের শিশিতে ঢেলে রেখে দিন। 

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!        

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!