এই কঠিন সময়ে যোগাসনের সাহায্যে ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বাড়ান, সুস্থ থাকুন

এই কঠিন সময়ে যোগাসনের সাহায্যে ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বাড়ান, সুস্থ থাকুন

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ অনেক বেশি ভয়ানক। কোনও ব্যক্তি করোনায় সংক্রমিত হয়ে সুস্থ হওয়ার পরেও অনেকরকম জটিলতা তাঁর শরীরে থেকে যাচ্ছে। বেশি প্রভাব পড়ছে শ্বাসযন্ত্রের উপর। সংক্রমিত হওয়ার সময়ে অনেকের অক্সিজেন স্যাচুরেশন ফল করছে, অক্সিজেন সাপোর্ট দিতে হচ্ছে। এরকম পরিস্থিতি এড়ানোর জন্য ব্রিদিং এক্সারসাইজের পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। প্রোনিংয়ের মতো ব্রিদিং এক্সারসাইজকে স্বীকৃতি দিয়েছে চিকিৎসা শাস্ত্র। প্রোনিংয়ের সাহায্য়ে শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বাড়ানো যাচ্ছে। এছাড়াও করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তি যিনি হোম আইসোলেশনে রয়েছেন, তাঁকেও প্রতি নিয়ত অন্যান্য ব্রিদিং এক্সারসাইজের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

যোগাসনও কিন্তু হোম আইসোলেশনে থাকা আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য খুবই হেল্পফুল। যোগাসনের মাধ্যমে আপনি ফুসফুসের কার্যক্ষমতাও বাড়াতে পারেন। ফলে, সাধারণের থেকে বেশি পরিমাণ অক্সিজেন আপনি গ্রহণ করতে পারবেন। করোনায় যোগাসন খুবই কার্যকর। আসুন জেনে নেওয়া যাক, কোন কোন যোগাসনের সাহায্যে আপনি শ্বাসপ্রশ্বাস প্রক্রিয়া (yogasanas to ease breathing difficulties) আরও সচল করতে পারেন। ফুসফুসের কার্যক্ষমতা বাড়াতে পারেন, সর্বোপরি সুস্থ থাকতে পারেন।

কী কী যোগাসন করতে পারেন এই করোনা পরিস্থিতিতে

  • আপনি দিনের শুরুই করুন প্রাণায়ম দিয়ে। অনুলোম বিলোম করুন।
  • এরপর কয়েকটি আসন করবেন। উষ্ট্রাসন, ভুজঙ্গাসন, ধনুরাসন অবশ্যই করতে হবে।
  • এই সব কটি আসনেই চেস্ট এক্সপ্যানশন হয়। যার ফলে ফুসফুসের শ্বাস-প্রশ্বাস প্রক্রিয়া (yogasanas to ease breathing difficulties) চালানোর ক্ষমতা বাড়ে।
  • আসনের শেষে অবশ্যই শবাসন করতে হবে।

অনুলোম বিলোম

বাবু হয়ে বসুন। সাধারণভাবেই বসবেন। পদ্মাসনে বসার প্রয়োজন নেই। ডান হাতের মাঝের দুটো আঙুল ভাঁজ করে নেবেন। আপনার কাছে বুড়ো আঙুল, অনামিকা ও কণিষ্ঠা খোলা থাকবে। বুড়ো আঙুল দিয়ে ডান নাক বন্ধ করবেন। বাঁ নাক দিয়ে শ্বাস নেবেন। সবসময় প্রথমে বাঁ নাক দিয়ে শ্বাস নেবেন। এরপর প্রথম দুই আঙুল দিয়ে বাঁ নাক চেপে ধরে ডান নাক দিয়ে শ্বাস নেবেন। চোখ বন্ধ রাখবেন। এইটাই রিপিট করবেন। যতক্ষণ পারছেন, এই প্রাণায়ম করবেন। শ্বাস নেওয়ার সময় অবশ্যই বুক ভরে শ্বাস নেবেন। যতটা শ্বাস আপনি একবারে নিতে পারেন। কয়েকদিন পর থেকে আপনার ফুসফুসের ক্ষমতা বাড়বে। আপনার শ্বাসনালিও পরিষ্কার থাকবে। শ্বাসের সমস্যায় যোগাসন আপনাকে খুবই সাহায্য করবে। করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিরাও প্রতিদিন অন্তত দুইবার এই প্রাণায়ম করবেন (yogasanas to ease breathing difficulties) ।

ভুজঙ্গাসন

এই প্রাণায়ম করার পর উপুর হয়ে শুয়ে পড়ুন। দুটো হাত বুকের দু পাশে রেখে কোমর থেকে শরীর তুলুন। দুটো হাতে ভর দিয়েই শরীর তুলবেন। আপনি বুঝতে পারবেন আপনার চেস্ট এক্সপ্যানশন হচ্ছে। কোমর থেকে শরীর তোলার সময় বুক ভরে শ্বাস নেবেন। এভাবে অন্তত ১ মিনিট থাকুন। দিনে দুইবার এই আসন করবেন। শ্বাস নেওয়ার সময়কাল ধীরে ধীরে বাড়াবেন।

উষ্ট্রাসন

উঠে বসুন । হাঁটুর উপর সোজা হয়ে বসুন। দুই হাত দিয়ে গোড়ালি ধরার চেষ্টা করুন। প্রথমদিনই পারবেন না, একটা একটা হাত দিয়ে করার চেষ্টা করুন। আস্তে আস্তে পুরোটাই করতে পারবেন। এতে আপনার শ্বাসকষ্টের সমস্যা অনেকটাই কমে যাবে।

ধনুরাসন

উপুর হয়ে শুয়ে পড়ুন। দুই পা ভাঁজ করে নিন। দুই হাত দিয়ে গোড়ালি ধরে শরীরটা টানটান করে তোলার চেষ্টা করুন। প্রথম প্রথম কষ্ট হলেও পরে অভ্যাস হয়ে যাবে। এই আসন খুবই ভাল। করোনায় যোগাসন হিসেবে এই আসন অবশ্যই করতে হবে।

শবাসন

এই আসনগুলি করার পর শেষে অবশ্যই শবাসন করবেন। মাটির উপর সোজা হয়ে শুয়ে পড়ুন। দুই হাত দুই দিকে ফেলে দিন। মাথা একদিকে ফেলে শুয়ে থাকুন। চোখ বন্ধ রাখবেন। স্বাভাবিকভাবে শ্বাস-প্রশ্বাস চালান।


এই যোগাসনগুলি নিয়মিত করুন। আপনার ফুসফুসের কার্যক্ষমতা অনেকটাই (yogasanas to ease breathing difficulties) বাড়বে। সহজেই অক্সিজেনের ঘাটতি তৈরি হবে না। অ্যাস্থমার রোগীদের জন্যও এই আসনগুলি খুবই উপকারী।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!      

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!