logo
Logo
User
home / রাশিফল সম্পর্কিত আর্টিকেল
১১৭৬ হরে কৃষ্ণ – পুরো ব্যাপারটাই ‘ভাঁওতা’, বললেন নৃসিংহ প্রসাদ ভাদুড়ী

১১৭৬ হরে কৃষ্ণ – পুরো ব্যাপারটাই ‘ভাঁওতা’, বললেন নৃসিংহ প্রসাদ ভাদুড়ী

আপনি যদি ফেসবুকে বেশ অ্যাক্টিভ হন, তাহলে গত অয়েক দিনে একটি বিষয় নিশ্চয়ই আপনার চোখে পড়ে থাকবে। একটি নির্দিষ্ট সংখ্যা সমষ্টি এবং তার সঙ্গে কৃষ্ণের নাম লিখে দেদার শেয়ার চলছে। ‘১১৭৬ হরে কৃষ্ণ’ এই তিনটি সংখ্যা-শব্দ ভাইরাল হয়ে গিয়েছে মাত্র কয়েক দিনে। নেট পাড়ায় দলে দলে মানুষজন নিজেদের টাইমলাইনে এবং নানা গ্রুপে লিখছেন এই তিনটি সংখ্যা-শব্দ। শুধু তাই নয়, বেশ অনেকের দাবী, তাঁরা নাকি এই মিরাকুলাস নম্বরটি লিখে হাতেনাতে ‘সুফল’ পেয়েছেন। আবার অনেকের বক্তব্য ‘১১৭৬ হরে কৃষ্ণ’ নাকি একটি বিশেষক্ষমতাসম্পন্ন মন্ত্র যা অচিরেই এনে দেয় সৌভাগ্য। কেউ কেউ তো আবার দাবী করেছেন এই বিশেষ সংখ্যা-শব্দ লিখে তাঁদের মনোবাসনা পূর্ণ হয়েছে এক-দুই দিনেই! (1176 Hare Krishna is just a hoax said expert Nrishingha Prasad Bhaduri)

ফেসবুকের একটি বিশেষ ‘জ্যোতিষশাস্ত্র চর্চা’-র গ্রুপ থেকে ভাইরাল হয় এই সংখ্যা-শব্দ সমষ্টি। কিন্তু পরে ব্যাপারটা নিয়ে শোরগোল পড়ে যায় নেট দুনিয়ায়। অনেকেই ব্যাপারটা নিয়ে হাসাহাসি করেন, আবার কেউ কেউ মিম তৈরি করেন। হাসির রোল ওঠে নেট পাড়ায়। কিন্তু যারা এই সংখ্যা-শব্দের প্রতি অগাধ বিশ্বাস রেখেছেন, তাঁরা আবার দাবী করেন যে এই বিশেষ নম্বরটির সঙ্গে নাকি কৃষ্ণ নামের যোগ রয়েছে বেদ, পুরাণ এবং উপনিষদে। যদিও কোনও রকমের প্রমাণ তাঁরা কেউই দিতে পারেননি।

এমতাবস্থায় এই বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন পুরাণ বিশেষজ্ঞ নৃসিংহ প্রসাদ ভাদুড়ী। একটি প্রথম সারির দৈনিকে সাক্ষাৎকারে তিনি স্পষ্ট জানিয়েছেন এই বিষয়টি ‘ভাঁওতা’ ছাড়া আর কিছু নয়। মানুষকে বোকা বানানোর ফিকির। তিনি ওই সাক্ষাৎকারে বলেন, “’যাঁরা ব্রহ্মে বিশ্বাস করেন, তাঁরা কখনওই এই ধরনের বিশেষ নম্বরের কথা বলবেন না। কখনও এইসবে বিশ্বাসও করবেন না। আমি কখনওই শাস্ত্র ঘেঁটে এই ধরনের কোনও নম্বর পাইনি। এই ধরনের নম্বর লিখে সৌভাগ্য পাওয়ার চেষ্টা নিতান্তই বোকামি ছাড়া আর কিছুই না। আমার অন্তত এ নিয়ে কিছুই জানা নেই।’” (1176 Hare Krishna is just a hoax said expert Nrishingha Prasad Bhaduri)

অবশ্য এরই মধ্যে অনেকে সুস্থভাবে সুইচওয়ার্ড, এঞ্জেল নম্বর এবং বৈদিক শাস্ত্র নিয়ে ব্যাপারটা বিশদে বোঝানোর চেষ্টা করেছেন। সুস্থ আলোচনা করার চেষ্টাও অনেকেই করেছেন। তবে এই নতুন ভাইরাল ট্রেন্ডে গা ভাসাতেই ব্যস্ত নেটিজেনরা এই মুহূর্তে। লকডাউন, ওমিক্রন, কোভিড-১৯ এবং অন্যান্য স্ট্রেস থেকে মুক্তি পেতেই হয়ত এই পন্থা বেছে নিয়েছেন তাঁরা!

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!      

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

13 Jan 2022

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text