home / ওয়েলনেস
স্ট্রেসমুক্ত থাকতে ভোরবেলা এই দুটি প্রাণায়াম অভ্যাস করুন

স্ট্রেসমুক্ত থাকতে ভোরবেলা এই দুটি প্রাণায়াম অভ্যাস করুন

একটা কথা গোড়াতেই পরিষ্কার করে দেওয়া ভাল। সেটা হল, যোগব্যায়াম পৃথিবীতে কখনও কেউ ভালবেসে করেনি। আসলে এই ব্যাপারটার উপকারিতা এতটাই বেশি যে, খুব বোরিং হলেও, এটা অনেকেই নিয়মিত করেন এবং উপকারও পান। তাই আবার যোগব্যায়াম করতে বলছি বলে ঘাবড়ে যাবেন না। আমরা এখানে বলছি তিনটি প্রাণায়ামের কথা। (2 easy pranayamas to reduce stress and anger)

প্রাণায়াম হল একেবারে বেসিক যোগ টেকনিক। এগুলির নাম প্রাণায়াম, কারণ, এগুলির প্রতিটিই আমাদের প্রাণশক্তিকে জাগিয়ে তোলে। আর অন্য নানা যোগব্যায়ামের মতো এগুলি অতটা বোরিং নয়, কিন্তু ফায়দা প্রচুর।

তবে একটা কথা মাথায় রাখবেন, প্রাণায়াম সব সময় খালি পেটে করতে হয়। তাই এগুলি অভ্যাস করার সবচেয়ে ভাল সময় হল সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে। কষ্ট করে দিনকয়েক যদি করতে পারেন, তা হলে দেখবেন অভ্যেসে দাঁড়িয়ে গিয়েছে। (2 easy pranayamas to reduce stress and anger)

ভ্রমরী

আপনি কি খুব অ্যাংজাইটিতে ভোগেন? তা হলে এই প্রাণায়ামটি আপনার বেস্ট ফ্রেন্ড হয়ে উঠতে পারে। এই প্রাণায়ামটি করার সময় বাইরের দুনিয়ার শোরগোলের হাত থেকে আপনি নিজেকে একেবারে শাট ডাউন করে ডুব দেবেন নিজের ভিতরে। দেখবেন, চট করে চাপ-টাপ সব দূরে পালিয়েছে।

এটি করার জন্য দুই হাতের বুড়ো আঙুল দিয়ে দুই কান বন্ধ করুন এবং হাতের বাকি আঙুলগুলি রাখুন চোখের পাতার উপরে। তারপর বুক ভরে শ্বাস নিয়ে মুখ দিয়ে মউমাছির মতো মুখ দিয়ে বোঁ করে আওয়াজ করতে থাকুন। এভাবে যতক্ষণ করতে পারবেন, করে যেতে হবে। (2 easy pranayamas to reduce stress and anger)

যখনই কাজের প্রেশারে বা কোনও কারণে আপনার জীবনে অশান্তি কিংবা চাপ আসবে, তখনই ওষুধ খাওয়ার মতো করে কিছুক্ষণের জন্য এই প্রাণায়ামটি করে নেবেন। যেমন ধরুন, কোনও চাপের মিটিংয়ের আগে, পরীক্ষায় আগের দিন রাতে, সারা রাত জেগে অফিসের কাজ শেষ করতে হলে ইত্যাদি ইত্যাদি। এই ছোটখাটো সমস্যা, যেগুলো কোনওভাবেই কাটানো সম্ভব নয়, সেগুলি এই প্রাণায়ামের সাহায্যে চট করে কাটিয়ে ফেলা সম্ভব। 

কপালভাতি

বাবা রামদেবের সৌজন্যে কপালভাতি এখন অনেকের কাছে পরিচিত একটি শব্দ। এই প্রাণায়ামটি মূলত শ্বাস-প্রশ্বাসের কন্ট্রোলের উপর নির্ভর করে করতে হয়। এটি করার জন্য ঘরের কোনও শান্ত জায়গা বেছে নিন। এবার পদ্মাসনে বসুন দুই পা মুড়ে। বড় করে, বুক ভরে নিঃশ্বাস নিন। তারপর আস্তে-আস্তে দশ ভাগে সেই শ্বাস ছাড়ুন। ছাড়াটা হবে একটু জোরে। (2 easy pranayamas to reduce stress and anger)

এই প্রাণায়ামটি আপনার পুরো শরীরকে জাগিয়ে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। এর পাশাপাশি এই প্রাণায়ামটি হজমের শক্তি বাড়ায়, আপনাকে আরও কর্মক্ষম করে তোলে।

সকালে ঘুম থেকে উঠে করতে পারলে তো ভালই, কিন্তু তা সম্ভব না হলে সারা দিনে নিজের ব্যস্ত শেডিউলের মধ্যে নানা সময়ও আপনি এই প্রাণায়ামটি করতে পারেন। যেমন ধরুন, ট্রাফিকে যখন ফেঁসে আছেন, কিংবা শাওয়ারে স্নান করছেন বা ঘুম থেকে জাস্ট জেগেছেন, কিন্তু উঠতে ইচ্ছে করছে না, এমন সময়েও আপনি টুক করে একটু কপালভাতি অভ্যেস করে ফেলতে পারেন।  (2 easy pranayamas to reduce stress and anger)

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!      

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

22 Nov 2021

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text