home / রূপচর্চা ও বিউটি টিপস
তিনটি ম্যাজিক উপকরণে ভ্যানিশ হবে বলিরেখা

তিনটি ম্যাজিক উপকরণে ভ্যানিশ হবে বলিরেখা

একটা সময় ছিল যখন চোখের চারপাশে বলিরেখা বা হালকা হালকা দাগ দেখতে পাওয়া গেলে বলা হত যে বয়স হয়ে গেছে, কিন্তু এখন ত্বকে বলিরেখা পড়ার কোনও বয়স হয় না। পঁচিশ-ত্রিশ বছর বয়সেই অনেকের ত্বকে বলিরেখা দেখা যায় এবং তা বেশ স্পষ্ট। নানা কারণে বলিরেখা দেখা দিতে পারে। শুধু যে চোখের পাশেই Wrinkles বা বলিরেখা দেখা যায় তা কিন্তু নয়। ঠোঁটের পাশে, কপালে, এমনকি গলা বা ঘাড়েও বলিরেখা দেখা যায় অনেকেরই, বেশ অল্প বয়সেই। বলিরেখা দূর করে ত্বক টানটান ও মসৃণ করে তোলার জন্য অনেকেই নানারকমের বিউটি প্রোডাক্টের উপরে নির্ভর করেন, আবার কেউ কেউ ভরসা রাখেন ঘরোয়া চিকিৎসার উপরেই।

ভিটামিন ই ক্যাপসুল

ভিটামিন ই ত্বকের পরিচর্যায় দারুণ কাজ দেয়। যে-কোনও রকমের ত্বকের সমস্যার দ্রুত সমাধানে এই ঘরোয়া চিকিৎসাটি কিন্তু খুবই জবরদস্ত! অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট-এ সমৃদ্ধ ভিটামিন ই ক্যাপসুল ত্বকের আর্দ্রতাও বজায় রাখে; ফলে ত্বকের স্বাভাবিক ইলাস্টিসিটি বজায় থাকে এবং বলিরেখা পড়ার কোনও আশঙ্কাই থাকে না।

কী কী উপকরণ প্রয়োজন – একটি বা দুটি ভিটামিন ই ক্যাপসুল

কীভাবে ব্যবহার  করবেন – একটি ছোট্ট কাচের বাটিতে যতগুলো প্রয়োজন ততগুলো ভিটামিন ই ক্যাপসুল ভেঙে নিন। এবারে ক্যাপসুলের ভিতরের তেলটি বলিরেখাযুক্ত অংশে লাগিয়ে মিনিট দশেক আলতো হাতে মাসাজ করুন। খুব বেশি চাপ দেবেন না, তাতে ত্বকের চামড়া আরও বেশি কুঁচকে যেতে পারে। দু-তিন ঘন্টা ওভাবেই রেখে দিন। ভিটামিন ই অয়েল ত্বক শুষে নেবে।

কতদিন পর্যন্ত ব্যবহার করতে হবে – প্রতিদিন রাতে শুতে যাওয়ার আগে করতে পারেন অথবা যে-কোনোও সময়ে যখন কোনও কাজ করবেন না।

শসা

আগেই বলেছি wrinkles বা বলিরেখার অন্যতম কারণ হল ত্বকের স্বাভাবিক আর্দ্রতা কমে গিয়ে ইলাস্টিসিটি নষ্ট হয়ে যাওয়া। কাজেই, বলিরেখা বা ফাইনলাইন দূর করতে শশার ফেসপ্যাক যে দারুণ একটু ঘরোয়া চিকিৎসা, সেকথা আশা করি আর বলতে হবে না। শশায় ৯৫%-ই জল, কাজেই ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখতে শশা দারুণ কাজ করে। এছাড়াও শশার মধ্যে রয়েছে নানা প্রাকৃতিক ভিটামিন ও খনিজ।

কী কী উপকরণ প্রয়োজন – একটি গোটা শশার রস

কীভাবে ব্যবহার করবেন – শশার খোসা ছাড়িয়ে ছোট ছোট টুকরো করে নিন। এবারে একটি চামচের সাহায্যে বীজ বার করে শশাটি ম্যাশ করে নিন। শশার রস বার করে যেখানে যেখানে বলিরেখা দেখা দিয়েছে লাগিয়ে নিন। কিছুক্ষন পর শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন

কতদিন পর্যন্ত ব্যবহার করতে হবে – প্রতিদিন শশার রস লাগালে খুব তাড়াতাড়ি বলিরেখা থেকে মুক্তি পাবেন।

নারকেল তেল

নারকেল তেল শুধুমাত্র মাথায় মাখার কাজেই ব্যবহৃত হয় না, ত্বকের পরিচর্যায়ও নারকেল তেলের ব্যবহার বহুকাল ধরে চলে আসছে। নারকেল তেল বলিরেখা কমাতে তো সাহায্য করেই, সঙ্গে ত্বক করে তোলে উজ্জ্বল এবং আর্দ্র। ফলস্বরূপ বলিরেখা হয় উধাও এবং ফিরেও আসে না।

কী কী উপকরণ প্রয়োজন – এক চা চামচ অরগানিক নারকেল তেল

কীভাবে ব্যবহার করবেন – নারকেল তেল নিয়ে চোখের চারপাশে, গলায়, ঠোঁটের চারপাশে ভাল করে মাসাজ করুন। একবার ক্লকওয়াইজ এবং একবার অ্যান্টিক্লকওয়াইজ মাসাজ করুন। সারা রাত রেখে দিন এবং পরদিন সকালে মাইল্ড কোনও ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

কতদিন পর্যন্ত ব্যবহার করতে হবে – প্রতিদিন রাতে শুতে যাওয়ার আগে পাঁচ মিনিট মাসাজ করুন, দেখবেন কিছুদিনের মধ্যেই বলিরেখার অত্যাচার থেকে মুক্তি পাবেন।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!        

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

06 Jun 2022

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text