logo
Logo
User
home / ওয়েলনেস
নিয়মিত গার্গল করার পাঁচটি বিশেষ উপকারিতা

নিয়মিত গার্গল করার পাঁচটি বিশেষ উপকারিতা

শীতের সময়ে তো অনেক দিনই গার্গল করেছেন। যদিও শীত বিদায় নিয়েছে বেশ অনেক দিন হল, আর ধীরে ধীরে সুয্যিমামা তাপ ছড়াচ্ছে, তবুও এখনও মাঝেমাঝেই গলা খুসখুস (5 benefits of salt water gargle) করে। আসলে আমাদের চারদিকে এত বেশি দূষণ আর ধোঁয়া যে সারা বছরই গলার সমস্যা। তার উপরে গরম পড়তে না পড়তেই নিশ্চই আইসক্রিম, কোল্ড ড্রিঙ্ক আর ফ্রিজে রাখা ঠান্ডা জল খেতে শুরু করেছেন! গলা ব্যথা বাড়াবাড়ি পর্যায়ে পৌঁছনোর আগে বরং নুন জলে গার্গল শুরু করে দিন।

তবে অনেকেই হয়তো জানেন না যে, নুন জলে নিয়মিত গার্গল করলে শুধু গলার ব্যথা কমে না, সেই সঙ্গে আরও অনেক উপকার পাওয়া যায়। বিশ্বাস না হলে মিলিয়ে নিন।

জেনে নিন নুন জল তৈরি করার সঠিক পদ্ধতি

১. এক কাপ গরম জলে হাফ চামচ সৈন্ধব লবণ মিশিয়ে ততক্ষণ অপেক্ষা করুন, যতক্ষণ না নুনটা ঠিক মতো গুলে যায়।

২. জলটা হলকা ঠান্ডা হলে শুরু করুন গার্গল। এক-একবারে কম করে ৩০ সেকেন্ড গার্গল করার চেষ্টা করবেন, তাতে উপকার মিলবে দ্রুত। আর গলায় যদি খুব ব্যথা থাকে, তা হলে চার ঘণ্টা অন্তর-অন্তর গার্গল করলেই কষ্ট কমে যাবে।

নিয়মিত গার্গল করলে যা যা উপকার পাওয়া যায়

দাঁতের সমস্যা মেটে: নিয়মিত গার্গল করলে দাঁতের ক্ষয় (5 benefits of salt water gargle) আটকে যায়। কারণ, নুনে রয়েছে বেশ কিছু উপকারী মিনারেল, যা এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। সেই সঙ্গে দাঁতের একেবারে উপরের স্তর, মানে Enamel-এর যাতে কোনও ক্ষতি না হয়, সেদিকেও নজর রাখে। ফলে নানা কারণে দাঁতের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা প্রায় থাকে না বললেই চলে।

মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়: এমন সমস্যা মূলত দুটি কারণে হয়ে থাকে। এক তো মুখ গহ্বরে যখন ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বৃদ্ধি পায়, তখন যেমন বাজে গন্ধ বের হয়, তেমনই pH level বিগড়ে গেলেও একই ধরনের সমস্যা মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে। এই দুই ক্ষেত্রেই নুন জল দারুণ কাজে আসে। নুন জলে গার্গল করলে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াগুলি মারা পড়ে। সঙ্গে পিএইচ লেভেলও ঠিক থাকে। ফলে মুখ থেকে বদ গন্ধ বেরনোর আশঙ্কা আর থাকে না।

ফুসফুস সুস্থ থাকে: দিনে তিনবার নুন জল দিয়ে Gargle করলেই ফল মিলবে হাতে-নাতে। এক্ষেত্রে রেসপিরেটরি ট্রাক্টে কোনও ধরনের সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা কমবে প্রায় ৪০ শতাংশ। সঙ্গে নানা ধরনের ক্ষতিকর জীবাণুর কারণ ফুসফুসের কোনও ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কাও আর থাকবে না।

টনসিলের আশঙ্কা কমে: মাঝে মাঝেই কি টনসিলের যন্ত্রণায় কষ্ট পান? তা হলে নিয়মিত নুন জল দিয়ে গার্গল করতে ভুলবেন না যেন! টনসিলের যন্ত্রণা কখন হয় জানেন? ব্যাকটেরিয়া অথবা ভাইরাল ইনফেকশনের কারণে টনসিলের ভিতরে প্রদাহের মাত্রা বেড়ে গেলেই যন্ত্রণা শুরু হয়। নুন জলে গার্গল করলে (5 benefits of salt water gargle) এই সব জীবাণুরা মারা পড়ে। ফলে বারে বারে Tonsillitis-এর মতো সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমে।

শরীরের পি এইচ ভারসাম্য বজায় থাকে: গলায় ঘাপটি মেরে বসে থাকা ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াগুলির কারণে শরীরে অ্যাসিডের মাত্রা বাড়তে শুরু করে, যার প্রভাবে pH Level বিগড়ে যায়। ফলে শরীরের উপর খারাপ প্রভাব পড়ে। কিন্তু এই সবকিছুই আটকানো সম্ভব, যদি নিয়মিত নুন জল দিয়ে গার্গল করা হয়। এমনটা করলে অ্যাসিডের প্রভাব কমতে থাকে। ফলে পিএইচ ব্যালেন্স ঠিক থাকে, যে কারণে গলায় উপকারী ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বাড়তে শুরু করে। ফলে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার পক্ষে শরীরের কোনও ক্ষতি করা আর সম্ভব হয়ে ওঠে না

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!          

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

18 Mar 2022

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text