Self Help

হেঁচকি নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন? জেনে নিন এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার ছ’টি ঘরোয়া উপায়

popadminpopadmin  |  Aug 7, 2019
হেঁচকি নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন? জেনে নিন এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার ছ’টি ঘরোয়া উপায়

হেঁচকি ওঠা মানেই ঢকঢক করে এক গ্লাস জল খেয়ে ফেলার অভ্যেস আমাদের সেই ছোট্ট বেলা থেকেই। কিন্তু মজার বিষয় হল, জল খাওয়া ছাড়াও আরও বেশ কিছু ঘরোয়া উপায়ে নিমেষেই হেঁচকি বন্ধ করা সম্ভব। তবে তার জন্য কতগুলি প্রাকৃতিক উপাদানের উপর ভরসা রাখতে হবে, যে উপাদানগুলি আমাদের প্রত্যেকেরই হেঁশেলে মজুত থাকে। কিন্তু প্রশ্ন হল, এই সব ঘরোয়া উপায়ে (home remedies) কি আদৌ হেঁচকি বন্ধ করা সম্ভব? আলবাত সম্ভব! কারণ, এই প্রাকৃতিক উপাদানগুলিকে কাজে লাগানো মাত্র সংকুচিত হয়ে যাওয়া diaphragm এবং intercostal muscles পুনরায় স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে, কমে প্রদাহও। যে কারণে নিমেষেই হেঁচকি ওঠা বন্ধ হয়ে যায়!

কী কী কারণে হেঁচকি ওঠে?

১. মাত্রাতিরিক্ত হারে অ্যালকোহল সেবন করলে বারে বারে এমন সমস্যার খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা থাকে। স্মোকিং-এর কুঅভ্যাস থাকলেও কিন্তু একই ঘটনা ঘটে।

২. যে পরিমাণে শ্বাস নিচ্ছেন, তার চেয়ে বেশি পরিমাণে শ্বাস ছাড়লেও হেঁচকি (Hiccups) উঠবে।

৩. দ্রুত খাবার খেলেও একই ঘটনা ঘটে।

৪. খুব গরম বা ঠান্ডা খাবার খাওয়ার সময় শরীরের তাপমাত্রা ওঠানামা করে, যে কারণেও হেঁচকি ওঠার আশঙ্কা থাকে।

৬. ভয়, স্ট্রেস, অ্যাংজাইটি এবং মাত্রাতিরিক্ত আনন্দের কারণেও হেঁচকি উঠতে পারে।

হেঁচকি বন্ধের ঘরোয়া উপায়

১. চিনি

হেঁচকি ওটা মাত্র এক চামচ চিনি মুখে নিয়ে মিনিটদুয়েক চুষতে থাকুন। দেখবেন, নিমেষেই কষ্ট কমে যাবে। তবে শুধুমাত্র বড়দের ক্ষেত্রেই নয়, ছোট বাচ্চাদের হেঁচকি কমাতেও এই ঘরোয়া উপায়টি দারুণ কাজে আসে।

২. টক দই

বলেন কী, দই খেলেও হেঁচকি বন্ধ হয়ে যায়? এক্কেবারেই! তবে দ্রুত উপকার পেতে একবাটি দইয়ে এক চামচ বিট নুন মিশিয়ে নিতে ভুলবেন না যেন! সেই সঙ্গে আরও দুটো বিষয় মাথায় রাখতে হবে। এক তো নুনটা যতক্ষণ না দইয়ে ভাল করে মিশে যাচ্ছে, ততক্ষণ খাবেন না। আর দইটা খেতে হবে ধীরে-ধীরে। গপগপ করে খেলে কিন্তু কোনও উপকারই মিলবে না।

৩. এলাচ

নিমেষে হেঁচকি বন্ধ করতে এলাচের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। এক্ষেত্রে কাপ দেড়েক জলে এক চামচ এলাচ গুঁড়ো মিশিয়ে জলটা মিনিটদুয়েক ফুটিয়ে নিন। এবার জলটা ছেঁকে নিয়ে পান করলেই দেখবেন হেঁচকি বন্ধ হতে সময় লাগবে না। কারণ, এলাচে এমন কিছু উপাদান রয়েছে, যা অল্প সময়েই diaphragm muscles-এর প্রদাহ কমিয়ে ফেলে, যে কারণে এমন সমস্যার খপ্পর থেকে নিমেষেই নিস্তার মেলে।

৪. আদা

খেতে-খেতে কি খুব হেঁচকি ওঠে? তাহলে একটা কাজ করুন। এবার থেকে যখনই খাবার খাবেন, এক টুকরো আদা সঙ্গে রাখবেন। তাতে কী হবে? হেঁচকি বন্ধ করতে আদার কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। তাই তো হেঁচকি ওঠা মাত্র এক টুকরো আদা মুখে ফেলে চুষতে থাকলে অল্প সময়েই সমস্যা কমে যাবে।

৫. মধু এবং রেড়ির তেল

এক চামচ মধুর সঙ্গে সম পরিমাণ রেড়ির তেল মিশিয়ে নিন। এবার সেই মিশ্রণটা আঙুলে নিয়ে চুষতে থাকুন। বার দুয়েক এমনটা করলেই দেখবেন হেঁচকি ওঠা বন্ধ হয়ে যাবে।

৬. পিনাট বাটার

হাতের কাছে পিনাট বাটার থাকলে আর কোনও চিন্তাই নেই। কারণ, হেঁচকি বন্ধের অব্যর্থ দাওয়াই হল এটি। তাই এবার থেকে হেঁচকি উঠলেই চট করে এক চামচ পিনাট বাটার খেয়ে নেবেন। দেখবেন, কষ্ট কমে যেতে সময় লাগবে না।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!