Advertisement

Self Help

জেনে নিন, কীভাবে ‘কথায় কথায় রাগ’ কমাবেন!

Debapriya BhattacharyyaDebapriya Bhattacharyya  |  Jul 8, 2019
জেনে নিন,  কীভাবে ‘কথায় কথায় রাগ’ কমাবেন!

Advertisement

“ও না খুব রাগী” অথবা “বাবা, ওর সাথে কে কথা বলবে, কথায় কথায় যা রেগে যায়!” – এই ধরণের কথা আমরা সবাই কখনও না কখনও শুনেছি বা বলেছি, কিন্তু ‘রাগী’ মানুষটি কেন রাগ করেন বা ‘রাগী’ মানুষটির সঙ্গে ঠিক কীভাবে ডিল করবেন সে ব্যাপারে কি কখনও ভেবে দেখেছেন? না আমি এখানে রাগী লোকজনের ব্যাপারে কোনও যুক্তি দেব না তবে একথাও সত্যি যে যাঁরা ‘রাগ’ করেন তাঁরা কিন্তু এই বিষয়টা নিয়ে নিজেরাও সমস্যায় ভোগেন। অনেকেই হঠাৎ রেগে যান এবং সেই সময় তাঁরা কী করছেন বা কী বলছেন, সেটা নিজেরাও বুঝতে পারেন না। পরে মাথা ঠান্ডা হলে নিজেরাই মনে-মনে কষ্ট পান।

মানুষের মন সব সময়ে নিজের বশে হয়তো থাকে না কিন্তু কথায় আছে, “যদি আপনি আপনার মনকে নিজের বশে রাখতে পারেন তা হলেই আপনি জীবনে জয়ী হবেন!” কাজেই মনকে নিজের বশে রাখাটা জরুরি। যদি কথায় কথায় রাগ হয় বা রাগ হলে আপনি নিজের বশে থাকতে না পারেন তা হলে কী করবেন, সেটাই আজ বলে দেব।

১। রাগ হলে তা প্রকাশ করুন

শাটারস্টক

কারও কোনও কথায় যদি আপনার রাগ হয় বা যে-কারনেই হোক না কেন, তা নিয়ে খোলাখুলি কথা বলুন। রাগের বহিঃপ্রকাশ করা মানে কিন্তু চিৎকার করেই তা করতে হবে বা ভাঙচুর করতে হবে তা নয়।

২। একটু ঘাম ঝরান তো!

রাগ কমানোর অন্যতম একটি অস্ত্র কিন্তু এক্সারসাইজ করা। শুনে অবাক হচ্ছেন? আসলে রাগ হলে আমাদের মস্তিকে অনেক হরমোন একসঙ্গে রিলিজ করতে শুরু করে, সেসময়ে যদি আপনি কিছুটা ঘাম ঝরান অর্থাৎ এক্সারসাইজ করেন তাহলে আপনারও সুবিধে, আপনার আশপাশের মানুষদেরও সুবিধে!

৩। এক থেকে ১০ গুণে ফেলুন

হ্যাঁ, এটি একটি বহু পুরনো পদ্ধতি এবং যথেষ্ট কার্যকরীও বটে! Anger Management-এর ক্ষেত্রে কিন্তু এই কাউন্টিং পদ্ধতি ম্যাজিকের মতো কাজ করে!

৪। দু’মিনিট ভেবে নিন

শাটারস্টক

রাগ হলেই সঙ্গে সঙ্গে মুখে যা আসছে বলে দেবেন না। জানি রাগ হলে অনেকসময়ে মন বশে থাকে না, তবুও দু’মিনিট দাঁড়িয়ে যান, দেখবেন ধীরে ধীরে রাগ কমতে শুরু করেছে।

৫। একা থাকাটাও প্রয়োজন

কোনও কারণে কারও আচরণ খারাপ লাগলে বা তার ওপরে রাগ হলে সেখান থেকে বেরিয়ে যান। বাইরে একটু হেঁটে আসুন বা কিছুক্ষন একা থাকুন। যখন যে পরিস্থিতিতে আরও বেশি সমস্যা হতে পারে, সেই মুহূর্তে সেখান থেকে বেরিয়ে যাওয়া উচিত এবং কিছুক্ষণ  একা থাকা উচিত।

৬। রাগ পুষে রাখবেন না

অনেকের একটা বাজে স্বভাব থাকে তাঁরা রাগ পুষে রাখেন, পরে তা যখন আয়ত্তের বাইরে চলে যায় তখন রাগে ফেটে পড়েন এবং বাকিদের হয় সমস্যা! আবার অনেকে আছেন রাগ হলে সেই সময়ের মতো চুপ করে গেলেন হয়তো, কিন্তু যার ওপরে রাগটা হয়েছে মনে মনে তার ওপরে রাগটা পুষে রেখেই দেন। এতে কিন্তু আপনারই সমস্যা! মনে অশান্তি আপনারই হবে, অন্য মানুষটি বুঝতেও পারবেন না যে আপনি এখনও তার ওপরে রেগে আছেন!

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!