Advertisement

Recipes

এ বার সরস্বতী পুজোয় বানিয়ে ফেলুন বাসন্তী পোলাও (basanti pulao)

Upasana SarkarUpasana Sarkar  |  Feb 7, 2019
এ বার সরস্বতী পুজোয় বানিয়ে ফেলুন বাসন্তী পোলাও (basanti pulao)

Advertisement

আমি কোনও দিনই স্কুলে যেতে পছন্দ করতাম না। স্কুলে যাওয়ার আগে ঘ্যানঘ্যান করতাম। কিন্তু বছরে একটা দিনই স্কুল যেতে ভাল লাগত। সেটা সরস্বতী পুজোয় (saraswati pujo)! কারণ শাড়ি পরে সেজেগুজে হালকা মেজাজে স্কুলে যেতে বেশ লাগত। ওই একটা দিন কোনও পড়াশুনা নেই, নেই টিচারদের চোখরাঙানি। শুধু বন্ধুদের সঙ্গে হালকা মেজাজে গল্প-আড্ডা। শেষে ভোগের খিচুড়ি খেয়ে বাড়ি ফেরা। এই ছিল সরস্বতী পুজোর স্কুলের স্মৃতি! সরস্বতী পুজোর (saraswati pujo) খানাপিনা মানেই সেই খিচুড়ি, আলুরদম, পনির। আর শেষ পাতে চাটনি, মিষ্টি। জমে যায় খানাপিনা। কিন্তু একটু স্বাদবদল করলে কেমন হয়? মানে খিচুড়ির জায়গায় ট্রাই করতে পারেন বাসন্তী পোলাও (basanti pulao)। আর সরস্বতী পুজো (saraswati pujo) কেন, যে কোনও অনুষ্ঠানে বা অনুষ্ঠান না থাকলেও বাড়িতে বানিয়ে খেতে পারেন। অথবা বাড়িতে অতিথি এলে বানিয়ে ফেলুন বাসন্তী পোলাও (basanti pulao)। আর সঙ্গে সার্ভ করুন মাটন কষা (mutton)। বাসন্তী পোলাও আর মাটন কষা (mutton) হলে জমে যাবে ভূরিভোজ। হলে দেরি কেন? এখনই রেসিপি জেনে নিয়ে সরস্বতী পুজোয় বানিয়ে ফেলুন বাসন্তী পোলাও (basanti pulao)!

উপকরণ

৫০০ গ্রাম গোবিন্দভোগ চাল (না হলে বাসমতী চাল) (govindobhog rice)

৫০ গ্রাম কাজুবাদাম

২ টেবিল চামচ কিসমিস

২টো তেজপাতা

২টো শুকনো লঙ্কা

১০-১২টি লবঙ্গ

২টো বড় এলাচ

৫-৬টি ছোট এলাচ

এক ইঞ্চির ২টো দারচিনি

আধ চা-চামচ জায়ফল গুঁড়ো

আধ চা-চামচ জয়িত্রি গুঁড়ো

আধ চা-চামচ হলুদ গুঁড়ো

৪ চা-চামচ চিনি

স্বাদ অনুযায়ী নুন

আধ কাপ ঘি

সাদা তেল

basanti-pulao %282%29
প্রণালী

১। প্রথমে চালটা (govindobhog rice) ভাল করে ধুয়ে নিন। মনে রাখবেন, চাল (govindobhog rice) ঘষে ঘষে ধোবেন না। এ বার কিছু ক্ষণের জন্য ভিজিয়ে রেখে দিন। আধ ঘণ্টা পর জল থেকে ছেঁকে তুলে নিয়ে একটা বড় ট্রেতে ছড়িয়ে চালটা শুকোতে দিন।

২। এ বার গরম মশলাটা (এলাচ-দারচিনি) গুঁড়ো করে নিন। চালটা শুকিয়ে গেলে তার মধ্যে ঘি, আধ চা-চামচ নুন, হলুদ গুঁড়ো, গরম মশলা গুঁড়ো, ৫-৬টা লবঙ্গ দিয়ে শুকনো চালটা (govindobhog rice) ভাল করে মাখিয়ে নিন। এ ভাবে ম্যারিনেট করে ১৫-২০ মিনিট রেখে দিন। আর এ ক্ষেত্রেও আলতো ভাবে ম্যারিনেট করতে হবে। না হলে চাল ভেঙে গেলে পোলাওটা ঝরঝরে হবে না।

৩। একটা নন স্টিক প্যানে ঘি গরম করে তার মধ্যে কাজুবাদাম আর কিসমিস দিয়ে ভাল করে ভাজুন। সোনালি রং ধরলে ঘি ছেঁকে নামিয়ে রাখুন।

৪। এ বার নন স্টিক প্যানে নিয়ে তার মধ্যে সাদা তেল আর চার টেবিল চামচ ঘি দিন। তেল আর ঘি গরম হয়ে গেলে তার মধ্যে তেজপাতা, শুকনো লঙ্কা, বাকি গোটা গরম মশলা (দারচিনি-এলাচ), লবঙ্গ ফোড়ন দিন। একটু নেড়েচেড়ে নেওয়ার পরে গন্ধ বেরোলে ম্যারিনেট করা বা মশলা মাখানো চালটা দিয়ে দিন। হালকা হাতে চালটা ৫ মিনিট নাড়াচাড়া করে নিন।

৫। এর পর একটা পাত্রে আলাদা করে জল গরম করে নিন। ওই গরম করা জল চালের মধ্যে ঢেলে দিন। এমন ভাবে জল দেবেন যাতে জলের লেয়ার চালের থেকে ২ সেন্টিমিটার উপরে থাকে।

৬। এ ভাবে ওই জলের মধ্যে চাল ফুটতে থাকুক। আর আপনি হালকা হাতে নাড়াতে থাকুন। নাড়াচাড়া করতে করতে দেখবেন, জল কমে আসছে। জল একেবারে কমে এলে প্যানটা ঢাকা দিয়ে আঁচ একেবারে কমিয়ে ১০ মিনিট মতো রেখে দিন। এর পর গ্যাস অফ করে দিন।

৭। তার পর ঢাকা খুলে হালকা উপরে-নীচে নাড়াচাড়া করে ২ টেবিল চামচ ঘি আর জায়ফল-জয়িত্রি গুঁড়ো ছড়িয়ে ভাল করে মিশিয়ে নামিয়ে নিন।

এ বার আর দেরি কেন! মাটন কষা (mutton) আথবা জম্পেশ কোনও সাইড ডিশের সঙ্গে সার্ভ করুন বাসন্তী পোলাও (basanti pulao)!

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি এবং বাংলাতেও!