home / Age Care
জেনে নিন অ্যান্টি-এজিং ক্রিম লাগানোর সঠিক বয়স ও উপকারিতা

জেনে নিন অ্যান্টি-এজিং ক্রিম লাগানোর সঠিক বয়স ও উপকারিতা

জন্মেছেন যখন, তখন এক দিন এক দিন করে বয়স বাড়বে। এটা খুব স্বাভাবিক একটা ব্যাপার। তবে এই বিষয়টা খুব কম লোকই বোঝেন। জন্মদিনে সেলিব্রেট করার বদলে অনেকে আবার দুঃখীও হয়ে যান এটা ভেবে যে তাঁদের বয়স বেড়ে যাচ্ছে। শরীরের সঙ্গে সঙ্গে ত্বকের বয়স বেড়ে যাওয়ার ফলে অনেক সময়েই ত্বকে নানা সমস্যা দেখা যায়। (benefits and right age to start using anti-ageing creams)

বলিরেখা পড়া, চামড়া ঝুলে যাওয়া, ত্বকের ঔজ্জ্বল্য ও লাবন্য হারিয়ে যাওয়ার মত নানা সমস্যা দেখা যায় বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে। তবে আপনি যদি ত্বকের ঠিকভাবে যত্ন নেন, তাহলে কিন্তু ত্বকের অকালবার্ধক্য অনায়াসে আটকাতে পারবেন।

অনেকেই অ্যান্টি-এজিং ক্রিম ব্যবহার করেন। এই ধরনের ক্রিম বা জেল ব্যবহার করলে বলিরেখা পড়ার আশঙ্কা অনেকটাই কমে। এছাড়া ত্বকের আরও নানা সমস্যাও দূরে থাকে। তবে প্রশ্ন হল, অ্যান্টি-রিংকল বা অ্যান্টি-এজিং ক্রিম লাগানোর সঠিক বয়স কোনটি। অর্থাৎ কোন বয়স থেকে অ্যান্টি-এজিং ক্রিম লাগালে ত্বকের জন্য তা ফলদায়ী হয়। (benefits and right age to start using anti-ageing creams)

অ্যান্টি-এজিং ক্রিম লাগানোর সঠিক বয়স

বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে বার্ধক্য একটি প্রাকৃতিক প্রক্রিয়া, আপনি এটি বন্ধ করতে পারবেন না। তবে আপনি অ্যান্টি-এজিং ক্রিমের সাহায্যে চোখের নিচে এবং কপালে বলিরেখা, ফ্রেকলস, ফাইন লাইন নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। আসলে, বার্ধক্যের প্রথম প্রভাবটি ভিতর থেকে, যা মুখে সূক্ষ্ম রেখার আকারে দেখা যায় এবং সে’সময়ে অ্যান্টি-এজিং ক্রিম বলিরেখা পড়া আটকাতে সাহায্য করে এবং ত্বক টানটান রাখতেও সাহায্য করে। তাই ২৫ থেকে ৩০  বছর বয়সে আপনার অ্যান্টি-এজিং ক্রিম ব্যবহার করা শুরু করা উচিত যাতে ত্বকে বলিরেখা বা ফাইন লাইন না পড়ে।

অ্যান্টি-এজিং ক্রিম লাগানোর উপকারিতা

বয়স বাড়ার সাথে সাথে ত্বকের সঠিক যত্ন নেওয়া, সঠিক খাদ্যাভ্যাসের পাশাপাশি সঠিক অ্যান্টি-এজিং ক্রিম প্রয়োজন। তবে অ্যান্টি-এজিং ক্রিম কেনার আগে অনেকগুলি বিষয় মাথায় রাখতে হবে। ত্বকের টেক্সচার, ধরন থেকে শুরু করে আরও অনেক বিষয় বিবেচনা করে তবেই নিজের জন্য সঠিক অ্যান্টি-এজিং ক্রিমটি বেছে নেবেন। এখন চলুন জেনে নেওয়া যাক অ্যান্টি-এজিং ক্রিম ব্যবহারের উপকারিতা – (benefits and right age to start using anti-ageing creams)

প্রথমেই জেনে নিন যে আপনি যদি সঠিক বয়স থেকেই অ্যান্টি-এজিং ক্রিম ব্যবহার করা শুরু করেন, তাহলে আপনার ত্বকে ঝট করে বলিরেখা পড়ার আশঙ্কা থাকবে না।

অ্যান্টি-এজিং ক্রিম আপনার মুখকে গভীরভাবে ময়শ্চারাইজ করে এবং আর্দ্রতা ধরে রাখে। ফলে ত্বক শুকিয়ে ফেটে যায় না।

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ত্বকের ইলাস্টিসিটি লুজ হয়ে যায় এবং ঝুলে যায়। অ্যান্টি এজিং ক্রিমের সাহায্যে ত্বক টানটান থাকে এবং আপনার ত্বকের বয়স কত বোঝা যায় না।

অ্যান্টি-এজিং ক্রিম লাগালে ত্বকের উপর থেকে মৃত কোষও দূর হয়। এটি ত্বকের লোমকূপে ঢুকে ত্বক গভীরভাবে পরিষ্কার করে এবং একই সঙ্গে ত্বকে পুষ্টিও যোগায়। (benefits and right age to start using anti-ageing creams)

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মুখে ব্রণের দাগ গাঢ় হয় এবং পিগমেন্টেশনের সমস্যাও বাড়ে। সেজন্য প্রতিদিন অ্যান্টি-এজিং ক্রিম লাগান এবং আপনি নিজেই পার্থক্য দেখতে পাবেন।

অ্যান্টি-এজিং ক্রিমে উপস্থিত ভিটামিন সি ত্বককে সূর্যের ক্ষতি থেকে রক্ষা করে এবং বলিরেখা কমায়। হাইড্রক্সি অ্যাসিড ত্বকের উপরের স্তরকে সরিয়ে এটিকে নরম এবং উজ্জ্বল করে তোলে।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!      

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

28 Oct 2021

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text