home / রূপচর্চা ও বিউটি টিপস
হাইড্রেটিং ফেসিয়াল - কী, কেন করবেন, কিভাবে করবেন in bengali

হাইড্রেটিং ফেসিয়াল – কী, কেন করবেন, কিভাবে করবেন – সবটা জেনে নিন

নাম শুনেই নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন হাইড্রেটিং ফেসিয়াল (benefits of hydrating facial) ব্যাপারটি কী। কিন্তু তবুও যখন কষ্ট করে লিখতে বসেছি, তখন আমি আপনাদের বেশ বিশদে জানাবো যে অন্য ফেসিয়ালের সঙ্গে  হাইড্রেটিং ফেসিয়ালের কী তফাৎ; কিভাবে হাইড্রেটিং ফেসিয়াল করতে হয়, আপনি বাড়িতে বসেই কিভাবে হাইড্রেটিং ফেসিয়াল করতে পারেন ইত্যাদি ইত্যাদি। তবে সবার আগে আপনাদের জানাবো কেন করবেন হাইড্রেটিং ফেসিয়াল, অর্থাৎ এ ধরনের ফেসিয়ালের উপকারিতা

কেন করবেন

ত্বক হয়ে উঠবে কোমল ও উজ্জ্বল (ছবি – পেক্সেলস ডট কম)

দেখে নেওয়া যাক, হাইড্রেটিং ফেসিয়ালের কী কী উপকারিতা (benefits of hydrating facial) রয়েছে –

ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বৃদ্ধি পায়

ত্বক হয়ে ওঠে কোমল ও মসৃণ
ত্বকের আর্দ্রতা বজায় থাকে
অ্যাকনে থেকে মুক্তি
ত্বকের কমপ্লেকশন একরকম থাকে

বাড়িতেই ঘরোয়া উপকরণের সাহায্য কিভাবে করবেন হাইড্রেটিং ফেসিয়াল

ত্বকের, বিশেষ করে মুখের যত্ন নেওয়া খুব জরুরি কারণ আমাদের মুখের ত্বক শরীরের বাকি অংশের ত্বকের থেকে অনেক বেশি নরম ও সংবেদনশীল হয়। কাজেই, মাসে অন্তত একবার করে ফেসিয়াল করা খুব প্রয়োজন। ত্বকের উপরিভাগ থেকে মরা কোষ দূর করা, গভীরভাবে ত্বকে আর্দ্রতা জোগানো, ত্বক পরিষ্কার করা – এগুলো সবই হয় ফেসিয়ালের মাধ্যমে। আমরা বলে দিচ্ছি ঘরোয়া কিছু উপকরণ দিয়েই কীভাবে আপনি বাড়িতেই হাইড্রেটিং ফেসিয়াল (benefits of hydrating facial) করতে পারবেন

প্রয়োজনীয় উপকরণ

  • দুই টেবিল চামচ দুধ
  • তুলো
  • স্ক্রাব
  • আপনার রোজকার মাখার ফেস ক্রিম
  • এক টেবিল চামচ মধু

প্রণালী

ক) ফেসিয়াল করার প্রথম ধাপ হল ক্লেনজিং। মুখের উপরিভাগে থাকা ময়লা পরিষ্কার না করে যদি আপনি বাকি ধাপগুলো ফলো করেন তাহলে ত্বকের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা বেশি। দুধে তুলো চুবিয়ে নিয়ে তা দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিন।

খ) এবারে প্রয়োজন ত্বকের উপরিভাগের মরাকোষ দূর করা। তার জন্য আপনাকে স্ক্রাব করতে হবে। জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ভাল করে স্ক্রাব করুন। বিশেষ করে নাকের পাশে, চিবুকে এবং কপালে স্ক্রাবিং খুব দরকার কারণ এখানে ব্ল্যাকহেডস বেশি থাকে।

গ) স্ক্রাব করা হয়ে গেলে মুখ ধুয়ে নরম একটি তোয়ালে দিয়ে মুখ মুছে ফেস ক্রিম লাগান। প্রতিদিন যে ক্রিমটি ব্যবহার করেন, আপাতত তা দিয়েই মাসাজ (benefits of hydrating facial) করুন। মিনিট ২০ মাসাজ করে মুখ ধুয়ে নিন।

ঘ) এবারে ফেসপ্যাক লাগাতে হবে। ফেসপ্যাক হিসেবে মধু ব্যবহার করতে পারেন কারণ সব ধরনের ত্বকেই মধু ব্যবহার করা যায়। সামান্য জলের সঙ্গে মধু মিশিয়ে একটা পেস্ট তৈরি করে নিন এবং মুখে ও গলায় লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন।

ঙ) মনে রাখবেন যেদিন ফেসিয়াল (benefits of hydrating facial) করবেন সেদিন মুখে কোনও রাসায়নিক ক্রিম বা কসমেটিকস ব্যবহার না করাই ভাল।

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

16 Dec 2020

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text