Advertisement

Self Help

সর্দি-কাশি সারাতে নানা প্রাকৃতিক উপাদানের সাহায্যে বাড়িতেই তৈরি করুন ন্যাচারাল কফ সিরাপ

popadminpopadmin  |  Aug 19, 2019
সর্দি-কাশি সারাতে নানা প্রাকৃতিক উপাদানের সাহায্যে বাড়িতেই তৈরি করুন ন্যাচারাল কফ সিরাপ

Advertisement

শনিবার কাকভেজা হয়ে বাড়ি ফেরার পরে কি তুমুল হাঁচি-কাশি শুরু হয়েছে? সঙ্গে লেজুড় হয়েছে গলায় ব্যথা এবং কফ (cough)? তা হলে তো কফ সিরাপ খাওয়া ছাড়া আর কোনও গতি নেই! কারণ, যে সব লক্ষণ দেখা দিয়েছে তা তো কেবল কফ সিরাপ খেলেই কমবে। কিন্তু তাই বলে হুট করে কফ সিরাপ কিনে ফেলবেন না যেন! মানে! না কিনলে পাব কোথা থেকে? আরে বন্ধু, নানা প্রাকৃতিক উপাদানের সাহায্যে বাড়িতেই যখন কফ সিরাপ তৈরি করে ফেলা সম্ভব, তখন অযথা কিনতে যাবেন কেন!

মশকরা করছেন না তো? কারণ, বাড়িতে কফ সিরাপ তৈরির কথাটা ঠিক হজম হচ্ছে না! মোটেই মজা করছি না। কিন্তু মজার বিষয় হল, বাড়িতে কফ সিরাপ তৈরি করতে যে যে প্রাকৃতিক উপাদানগুলির প্রয়োজন পড়বে, সেগুলি বাঙালি বাড়ির হেঁসেলে প্রায় চব্বিশ ঘণ্টাই মজুত থকে। তাই এই বর্ষার মরসুমে সর্দি-কাশির খপ্পর থেকে যদি বেঁচে থাকতে চান, তা হলে কফ সিরাপ তৈরির নানা সহজ উপায় সম্পর্কে ঝটপট জেনে নিন।

১. মধু, পাতি লেবুর রস এবং আদা

এক কাপ জলে এক চিমটে আদা কুচি, এক চামচ লেবুর রস, চামচ দুয়েক মধু, এক চিমটে গোলমরিচ এবং এক চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনিগার মিশিয়ে নিয়ে সেই মিশ্রণটি মিনিটপাঁচেক ফুটিয়ে নিন। এবার মিশ্রণটি একটা অন্য পাত্রে ঢেলে নিয়ে তার থেকে এল্প অল্প করে নিয়ে পান করুন। দেখবেন, উপকার পেতে সময় লাগবে না। কারণ, গোলমরিচ যেখানে সংক্রমণের প্রকোপ কমাবে, সেখানে আদা, মধু এবং অ্যাপেল সিডার ভিনিগারে উপস্থিত নানা উপকারী উপদানের গুণে সর্দি-কাশি এবং কফের প্রকোপও কমবে। 

২. অলিভ অয়েল

বলেন কী, অলিভ অয়েল দিয়েও কফ সিরাপ তৈরি করা যায়? আলবাত করা যায়! হাফ কাপ একস্ট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েলের সঙ্গে এক কাপ মধু, হাফ কাপ আদা কুচি এবং চার চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনিগার নয়তো পাতি লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এক্ষেত্রে একটা বিষয় খেয়াল রাখবেন, তা হল আদা এবং মধু মেশানোর পরে কম করে নয় ঘণ্টা অপেক্ষা করে বাকি উপাদানগুলি মেশাবেন। সবক’টি উপাদান মেশানো হয়ে গেলে মিশ্রণটি ছেঁকে নিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন। তা থেকে দু’ চামচ করে দিনে অন্তত বারদুয়েক খেলেই উপকার মিলবে।

৩. পেঁয়াজ এবং মধু

এক্কেবারে ঠিক শুনেছেন! বাস্তবিকই পেঁয়াজকে কাজে লাগিয়ে কফ সিরাপ তৈরি করা সম্ভব। কারণ, সর্দি-কাশির প্রকোপ কমাতে পেঁয়াজের জুড়ি মেলা ভার। কড়াইয়ে এক বাটি পেঁয়াজ কুচি নিয়ে কয়েক মিনিট নাড়িয়ে নেওয়ার পরে তাতে হাফ কাপ মধু মিশিয়ে আঁচটা কমিয়ে মিনিট কুড়ি রেখে দিন। তারপর মিশ্রণটা একটা এয়ার টাইট পাত্রে ঢেলে নিয়ে ফ্রিজে রেখে দিতে হবে। এই সিরাপটি দিনে দু’বার করে খাওয়া শুরু করলেই সর্দি-কাশি কমে যাবে। 

৪. দারচিনি, আদা, লেবুর রস এবং মধু

মাঝারি মাপের পাত্রে অর্ধেক জল নিয়ে তাতে এক-এক করে হাফ কাপ আদা, হাফ কাপ ড্রাই chamomile ফুল এবং এক চামচ দারচিনি মিশিয়ে মিনিটপাঁচেক ফুটিয়ে নিন। তারপর আঁচটা কমিয়ে নিয়ে তাতে এক কাপ মধু এবং হাফ কাপ পাতি লেবুর রস মিশিয়ে ততক্ষণ নাড়ান, যতক্ষণ না মিশ্রণটা কমে অর্ধেক হয়ে যাচ্ছে। এমনটা হওয়া মাত্র আঁচটা বন্ধ করে মিশ্রণটি একটা এয়ার টাইট পাত্রে সংগ্রহ করে নিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন। গলায় ব্যথা, সর্দি-কাশির প্রকোপ কমাতে এই মিশ্রণটি বেশ কাজে আসে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!