logo
Logo
User
home / ডি আই ওয়াই লাইফ হ্যাকস
দাঁতের মর্ম কি বোঝেন? তাহলে সঠিকভাবে ব্রাশও করুন

দাঁতের মর্ম কি বোঝেন? তাহলে সঠিকভাবে ব্রাশও করুন

দাঁতের যত্ন কতটা নিচ্ছেন আপনি? এখন আপনি বলবেন, “আমি তো নিয়মিত দাঁত ব্রাশ করি।” সবাই যদি সত্যিই দাঁতের যত্ন (brush your teeth)সঠিক সময় নিতেন, তাহলে কি আর ‘দাঁত থাকতে দাঁতের মর্ম বোঝেন না!’ এই কথাটা প্রচলিত হত? দাঁতের যত্ন সঠিক ভাবে নেওয়া হয় না বলেই ক্যাভিটির মতো সমস্যা বাড়ে। আবার মাড়িতেও সমস্যা তৈরি হয়। তাই দাঁত থাকতেই দাঁতের যত্ন নেওয়া বুদ্ধিমানের কাজ। একবার ব্রাশ করলেই কাজ শেষ হয় না। সঠিক নিয়ম মেনে ব্রাশ করছেন কি না সেদিকে নজর দিতে হবে। তাহলে আপনার দাঁতের স্বাস্থ্য ভালো (brush your teeth) থাকবে ।

সঠিক ব্রাশ করার পদ্ধতি (brush your teeth)

সঠিক নিয়ম মেনে দাঁত মাজবেন

প্রতিদিন সকালে ও রাতে আমরা অনেকেই দাঁত মাজি। কিন্তু দাঁত মাজার সঠিক নিয়ম রয়েছে। সেই সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানি না। তাই দাঁত মেজেও কিন্তু সেরকম উপকার পাওয়া যাচ্ছে না। তাই বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী দাঁত ব্রাশ করতে হবে। তাঁরা জানাচ্ছেন, সামনের দাঁতগুলি মাজার সময়ে ব্রাশ উপরে ও নীচে ঘষতে হবে। দুই পাশের দাঁত সার্কুলার মোশনে ব্রাশ করতে হবে। এতে দাঁতের ফাঁকে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস হয়ে যাবে(brush your teeth)। এনামেলের কোনও ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কাও অনেকাংশে কম হয়ে যাবে। দাঁত মাজার পর হাতের আঙুলে চাপ দিয়ে মাড়ি ঘষে নিতে ভুলবেন না। এতে মাড়ির রক্ত সঞ্চালন ভালো হবে। তাই মাড়িতেও সেরকম সমস্যা হবে না।

দুই বার দুই মিনিট (brush your teeth)

দাঁত মাজার জন্য় এই দুই সংখ্যাটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। সকালে ঘুম থেকে উঠে একবার ব্রাশ করবেন। ঘড়ি ধরে দুই মিনিট সময় ধরেই ব্রাশ করবেন। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে আবার দুই মিনিট ব্রাশ করবেন। এতে প্রতিটা দাঁত ভালো করে পরিষ্কার হবে। ক্যাভিটি বা ওই জাতীয় অন্য়ান্য সমস্যা হবে না। ব্রাশ করা হয়ে গেলে নিয়ম করে ফ্লসিং করতেই হবে। সেই সঙ্গে মাউথওয়াশ মুখে নিয়ে বেশ কিছুক্ষণ কুলকুচি করে নেবেন। মাউথওয়াশ না থাকলে জল নিয়েও কুলকুচি করতে পারেন। এতে দাঁতের ফাঁকে ব্যাকটেরিয়া জমার আশঙ্কা কমবে(brush your teeth)। অসময়ে দাঁতের ক্ষতি হয়ে যাওয়ার আশঙ্কাও আর থাকবে না।

সঠিক টুথপেস্ট

টুথপেস্ট বেছে নেওয়ার সময়ে সতর্ক হন। ফ্লুওরাইড রয়েছে এমন টুথপেস্ট বেছে নেবেন। এতে আপনার দাঁত ভালো থাকবে। মাড়ি শক্ত হবে। ক্যাভিটি ও প্লাকের সমস্যার আশঙ্কাও কম হবে। অতিরিক্ত পরিমাণে টুথপেস্ট ব্যবহার করবেন না। আবার কম পরিমাণেও নয়। সঠিক পরিমাণে টুথপেস্ট নিয়ে ব্রাশ করুন(brush your teeth)। টুথপেস্ট খেয়ে ফেলবেন না। তা খুবই ক্ষতিকারক।

দাঁতের ভিতরের অংশও পরিষ্কার করবেন (brush your teeth)

ব্রাশ করার সময়ে আমরা শুধুই সামনের দিকটা পরিষ্কার করি। দাঁতের পিছনের অংশ অতটাও পরিষ্কার করা হয় না। সেই সব অংশেই কিন্তু ব্যাকটেরিয়া জন্মাতে শুরু করে। তাই দাঁতের ক্ষতির আশঙ্কা (brush your teeth) অনেকটাই বেড়ে যায়। তাই দাঁতের সামনের অংশের সঙ্গে সঙ্গে পিছনের অংশও পরিষ্কার করতে হবে। এতে আপনার দাঁতের স্বাস্থ্য ভালো থাকবে।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজিহিন্দিমারাঠি আর বাংলাতেও!      

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

11 Feb 2022

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text