Advertisement

বিনোদন

একসঙ্গে ছুটি কাটাতে গিয়েও ঝেড়ে কাশছেন না দেব-রুক্মিণী! এত লুকোচুরির আছেটাই বা কী!

Parama SenParama Sen  |  Jun 20, 2019
একসঙ্গে ছুটি কাটাতে গিয়েও ঝেড়ে কাশছেন না দেব-রুক্মিণী! এত লুকোচুরির আছেটাই বা কী!

Advertisement

সেই ফেসবুকে মাঝে কিছু ছবি পোস্ট করে একটি কাপল বিখ্যাত হয়েছিল না, যাদের সব ছবিতে শুধু মেয়েটিকেই দেখা যেত আর ছেলেটি হাত ধরে থেকে ছবি তুলে দিত (শুনতে খারাপ লাগলেও, সেই ছবি নকল করেই নুসরত জাহানও তাঁর এনগেজমেন্টের ছবি দিয়েছিলেন)…এই দেব-রুক্মিণীর ছুটি (Vacation) কাটানোর ছবিগুলো অনেকটা সেরকম হয়েছে! সব ছবিতে মলদ্বীপের (Maldives) প্রাকৃতিক শোভা দেখে আত্মহারা হয়ে আছেন রুক্মিণী (Rukmini), এমনটা বেশ বোঝা যাচ্ছে। কিন্তু তন্নতন্ন করে আতস কাচ নিয়ে খুঁজলেও ছবির কোথাও তাঁর মনের মানুষটির, মানে, দেবের (Dev) দেখা পাবেন না! তা হলে ছবিগুলো তুলল কে? আপনি বলবেন, কেন, জনান্তিকে! মহা সমস্যা তো! অমন ইয়টের উপর, ডিনারের সময়, স্কুবা ডাইভিং করতে গিয়ে, হোটেলে সানবাথ নেওয়ার সময় রুক্মিণীর ধারেকাছে কোন ব্যক্তি ছিল শুনি? আর তিনি নিজেও তো আম্মো সোলোই বেড়াতে গিয়েছি, এমন দাবিও কোথাও করেননি! তা হলে? তা হলে আবার কী…আগে ছবিগুলো দেখে নিন, তারপর বাকি গল্পটা বলছি আমরা… 

View this post on Instagram

Set Sail!🐬⚓🛥⛵

A post shared by Rukmini Maitra (@rukminimaitra) on Jun 16, 2019 at 3:06am PDT

View this post on Instagram

🌙💫🐬🐳🥰 #BirthdayMonth #BeachBaby

A post shared by Rukmini Maitra (@rukminimaitra) on Jun 14, 2019 at 10:17am PDT

View this post on Instagram

Up Up and Away…🦋🐬

A post shared by Rukmini Maitra (@rukminimaitra) on Jun 12, 2019 at 11:22pm PDT

এবার ভাল করে ছবিগুলো দেখে বলুন তো, একবারও মনে হচ্ছে যে, রুক্মিণী একা-একা মাঝ সমুদ্দুরে খাবি খাচ্ছেন! বেশ একটা মিষ্টি-মিষ্টি হাসি আছে না তাঁর মুখে? একা-একা অমন টেবিলে চর্ব্য-চোষ্য-লেহ্য-পেয় সাজিয়ে কেউ রাতের খাবার খেতে বসে না ভাই! সে আপনি যা-ই বলুন! তার উপর আবার এটা তাঁর বার্থ ডে মান্থ! কিন্তু সমস্যা হল, দেব তো তাঁর সম্পর্ক নিয়ে এতদিন ঢাক-ঢাক গুড়গুড় করেননি। জন্মদিনের কেক কাটা থেকে শুরু করে ছবির প্রিমিয়ার, সর্বত্র তো বেশ খোলাখুলিই মেশেন তাঁরা! হ্যাঁ, কোনওদিন এটা বলেননি যে, রুক্মিণী তাঁর প্রেমিকা, ব্যাপারটা এখনও ওই জাস্ট গুড ফ্রেন্ডস স্তরেই আছে, কিন্তু এরকম লুকোচুরি আগে কখনও খেলেননি! তা হলে এবার এত সাবধানী হতে গেলেন কেন তিনি? 

তা নিন্দুকে তো অনেক কথাই বলেন! তাঁরা এবারও ঘুষঘুষ করে অনেক কথাই বলছেন! যেমন, ঠিক নির্বাচনের পরে পরেই তো, এখন জনসমক্ষে এট্টু ভাল ছেলে মার্কা হাবভাব করে থাকাটাই উচিত। শুটিংয়ের ফাঁকে কো-স্টারের সঙ্গে খুনসুটি ঠিক আছে। কিন্তু তার বেশি কিছু আপাতত না করাটাই নাকি শ্রেয় আর সেকথা মাথায় রেখেই দেব নাকি বিশেষ বন্ধুকে নিয়ে ছুটি কাটাতে গেলেও, ভারী বুদ্ধি খাটিয়ে একটু মেঘনাদ টাইপের ভাব করে আড়ালেই থেকে গিয়েছেন। 

কিন্তু সমস্যা হয়েছে অন্যত্র। মলদ্বীপ থেকে ফেরার পথে রুক্মিণী গিয়েছিলেন দিল্লি, তাঁর দাদার বাড়ি। সেখানে তাঁর আদরের ভাইঝি আমায়রা দেবকে যত্ন করে ছবি আঁকা শেখাচ্ছে, এমন একটি ভিডিয়ো দেব নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডলে পোস্টও করেছেন! এ ছারাও, দেব-রুক্মিণীর একটি ফ্যান পেজে আপলোড করা একটি ছবিতে তাঁদের দুজনকেই দেখা যাচ্ছে মলদ্বীপে!

এরপরও দুয়ে-দুয়ে চার করতে আর বেশি সময় লাগা উচিত কি? দেব ভক্তরা বলছেন, এই ভিডিয়োটি আগে তুলে পরে পোস্ট করা হয়েছে, এমনটাও তো হতে পারে। তা হলে এটা নিয়ে এত জলঘোলা করার আছেটাই বা কী! তা তো অনেক কিছুই হতে পারে! দেব কলকাতা ছেড়ে এতদিন দিল্লিতেই পড়ে ছিলেন হতে পারে, আমায়রার সঙ্গে তিনি প্রায়ই আঁকা-আঁকা খেলে থাকেন, তা-ও হতে পারে! আমরা তো তা নিয়ে কিছু বলছি না, শুধু কতগুলো ছবি দিয়ে কার্যকারণ বোঝানোর চেষ্টা করছি মাত্র! বাকিটা উপরওয়ালা, দেব আর রুক্মিণীই বলতে পারবেন!

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিলতেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

 

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!