Advertisement

ওয়েলনেস

নিয়মিত এই আসনগুলি করলে কমবে হেয়ার ফল, বাড়বে চুলের জেল্লা

popadminpopadmin  |  Jun 27, 2019
নিয়মিত এই আসনগুলি করলে কমবে হেয়ার ফল, বাড়বে চুলের জেল্লা

Advertisement

জেনেটিক কারণে তো বটেই। অনেক সময় ঠিক মতো খাবার না খেলে, বেশি মাত্রায় প্রসাধনী ব্যবহার করলে এবং খুশকির কারণেও চুল পড়ার হার বেড়ে যেতে পারে। তবে কারণ যাই হোক না কেন, সময় মতো যদি ব্যবস্থা নেওয়া না যায়, তা হলেই বিপদ! কারণ সেক্ষেত্রে অসময়ে ময়দান খালি হয়ে যাওয়ার ভয় থাকে। কিন্তু প্রশ্ন হল, হেয়ার ফল কমানো যায় কীভাবে? এক্ষেত্রে অ্যান্টি হেয়ার ফল শ্যাম্পু ব্যবহার করলে উপকার পাওয়া যায় ঠিকই! কিন্তু যোগ গুরুদের মতে, নিয়মিত যদি বিশেষ কিছু আসন করা যায়, তা হলে নাকি হেয়ার ফল কমতে একেবারেই সময় লাগে না! কিন্তু আসনের সঙ্গে হেয়ার ফলের সম্পর্কটা ঠিক কোথায়? এই যোগাসনগুলি (yoga) করার সময় চুলের গোড়ায় অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের প্রবাহ বেড়ে যায়, যে কারণে চুলের গোড়া এতটাই শক্তপোক্ত হয়ে হয়ে ওঠে যে হেয়ার ফলের মতো সমস্যা দূরে পালাতে সময়ই লাগে না। সঙ্গে চুলের (hair) জেল্লাও বাড়ে চোখে পড়ার মতো। ভাবছেন, কী-কী আসন করলে এমন উপকার মিলবে? জেনে নিন আমাদের কাছ থেকে।

আরও পড়ুনঃ রোজ সকালে কপালভাতি প্রাণায়াম এর উপকারিতা

মাত্রাতিরিক্ত হেয়ার ফলের মতো সমস্যাকে দূরে রাখবে এই আসনগুলি

১. অধোমুখ শবাসন

এই আসনটি নিয়মিত করলে চুলের গোড়ায় রক্তের প্রবাহ বেড়ে যাওয়ার কারণে হেয়ার ফলের মাত্রা তো কমবেই। সঙ্গে সইনাসের সমস্যা যেমন দূরে পালাবে, তেমনি স্ট্রেস-অ্যাংজাইটির প্রকোপ কমতেও সময় লাগবে না। দূর হবে শারীরিক ক্লান্তিও।

আসনটি করার পদ্ধতি
হাত ও পায়ের উপর ভর দিতে এমনভাবে দাঁড়ান যাতে টেবিলের মতো দেখতে লাগে। এবার হাত-পা সোজা রেখে কোমরটা একটু ওঠান। এই সময় আপনার শরীরের ভঙ্গি অনেকটা ইংরেজির উল্টো ভি-এর মতো হবে। গলাটা এবার প্রসারিত করার চেষ্টা করুন, সঙ্গে হাত দিয়ে মাটিকে ঠেলুন। এই সময় এমন জায়গায় আপনার হাত দুটি থাকবে যাতে তা কানকে ছোঁয়। এইভাবে কয়েক সেকেন্ড থেকে পুনরায় স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসুন। প্রতিদিন বারতিনেক এই আসনটি করলে ফল মিলবে হাতে-নাতে!

২. পবনমুক্তাসন

প্রতিদিন সকালে উঠে বারদুয়েক যদি এই আসনটি করতে পারেন, তা হলে চুল পড়ার হার তো কমবেই, সঙ্গে বাড়বে চুলের জেল্লাও। এমনকী, হজম ক্ষমতারও উন্নতি ঘটবে চোখে পড়ার মতো।

আসনটি করার পদ্ধতি
চিত হয়ে শুয়ে পা দুটো লম্বা করে সামনের দিকে ছড়িয়ে দিন। পায়ের আঙুলগুলো বাইরের দিকে থাকবে। আর হাত দুটো থাকবে গায়ের সঙ্গে লেগে। এবার ধীরে-ধীরে ডান পাটা হাঁটু থেকে ভেঙে হাঁটুটা বুকের উপর তুলুন। হাঁটুর দু’ইঞ্চি নিচে হাত দুটো এমনভাবে রাখুন যাতে ডান হাতের চেটো, বাঁ হাতের কনুইয়ের উপর থাকে। আর বাম হাতের চেটো থাকবে ডান হাতের কনুইয়ের উপরে। এভাবে কুড়ি সেকেন্ড থাকার পরে একইভাবে বিপরীত পায়েও করতে হবে।

৩. বজ্রাসন

এটাই একমাত্র আসন যা ভরা পেটে করা যেতে পারে। আর মজার বিষয় হল, খাবার খাওয়ার পরে যদি এই আসনটি নিয়মিত করা যায়, তা হলে হজম ক্ষমতার এতটাই উন্নতি ঘটে যে, গ্যাস-অম্বল ও বদহজমের মতো সমস্যা ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। সঙ্গে হেয়ার ফলও কমে চোখে পড়ার মতো। শুধু তাই নয়, যোগ গুরুদের মতে প্রতিদিন বজ্রাসন করলে ওজন কমতেও সময় লাগে না।

আসনটি করার পদ্ধতি
হাঁটু ভেঙে, পা দুটো পিছনের দিকে মুড়ে শিরদাঁড়া সোজা করে বসুন। হাতের চেটো উপুড় করে থাইয়ের উপর রাখুন। এই সময় আপনার শরীরের ওজন থাকবে গোড়ালির উপরে। স্বাভাবিকভাবে শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে নিতে যতক্ষণ সম্ভব এইভাবে থাকুন। যত বেশিক্ষণ থাকবেন, তত দ্রুত উপকার মিলবে। তবে প্রথম দু’একদিন একটু অসুবিধে হবে বই কী। কিন্তু ধীরে-ধীরে অভ্যাস হয়ে যাবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, প্রতিদিন বারতিনেক এই আসনটি করলে উপকার মিলতে সময় লাগবে না।

৪. সর্বাঙ্গাসন

মাত্রাতিরিক্ত হেয়ার ফল কমাতে এই আসনটির জুড়ি মেলা ভার। তবে নিয়মিত সর্বাঙ্গাসন করলে আরও একাধিক উপকার মেলে। যেমন ধরুন সর্দিকাশি, ব্রঙ্কাইটিস, হাঁপানি এবং টনসিলের পকোপ কমতে সময় লাগে না। সেই সঙ্গে লো ব্লাড প্রেসার, মৃগি রোগ এবং কানে কম শোনার মতো সমস্যা দূর করতেও এই আসনটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। গলার স্বর বসে যাওয়া, গলা ব্যথা এবং ফেরিঞ্জাইটিস রোগের চিকিৎসাতেও এই আসনটি নানা ভাবে কাজে এসে থাকে।

আসনটি করার পদ্ধতি
কাঁধের উপর ভর দিয়ে দু’পা সোজা করে উপরে তুলুন। এই সময় দু’হাতের চেটো দিয়ে পিঠকে এমন ভাবে ঠেলে ধরতে হবে যাতে ঘাড় থেকে পা পর্যন্ত সরল রেখায় থাকে। আর চিবুক থাকবে বুকের সঙ্গে লেগে। দৃষ্টি থাকবে পায়ের আঙুলের দিকে। স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে নিতে তিরিশ সেকেন্ড এইভাবে থেকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে হবে। এইভাবে নিয়মিত বার তিনেক আসনটি করলেই ফল মিলতে সময় লাগবে না।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!