ফ্যাশন

সারা বিশ্বের ফ্যাশনে ঝড় তুলেছে এই প্রিন্ট, প্যাটার্ন আর রঙের সম্ভার(Fashion Trends 2019)

Doyel BanerjeeDoyel Banerjee  |  Apr 1, 2019
সারা বিশ্বের ফ্যাশনে ঝড় তুলেছে এই প্রিন্ট, প্যাটার্ন আর রঙের সম্ভার(Fashion Trends 2019)

বর্তমান প্রজন্মের ছোট বড় সবাই ফ্যাশন (fashion) নিয়ে সচেতন থাকতে চান। শুধু মেয়েরাই নয় ছেলেরাও চায় ফ্যাশন (fashion) ট্রেন্ড বিষয়ে আপ টু ডেট থাকতে। ২০১৮ সালে বলিউড এবং টেলিভিশনের ফ্যাশনিস্তা (fashionistas)  তারকারা কিছু বিশেষ ফ্যাশন (fashion) ট্রেন্ডের (trends) প্রচলন করেছিলেন।এখন এটাই দেখার গত বছরের সেই ফ্যাশনের ধারা ২০১৯ অর্থাৎ এই বছরেও সমান জনপ্রিয় থাকে নাকি তার সঙ্গে আরও নতুন কোনও ট্রেন্ড (trends) যোগ হয়। প্রত্যেকবারই নতুন বছর শুরু হওয়ার আগে বড় বড় ফ্যাশন (fashion) ডিজাইনাররা কীরকম ফ্যাশন (fashion) ট্রেন্ড (trends) আসতে চলেছে সেই বিষয়ে ভবিষ্যৎবাণী করে দেন। সেই ধারা বজায় রেখেই আমরা কয়েকজন নামি দামী ফ্যাশন (fashion) ডিজাইনারের সঙ্গে কথা বলে আপনাদের জন্য ২০১৯ এর এই ফ্যাশন ট্রেন্ড(fashion trend) বিষয়ে একটি গাইডলাইন তৈরি করেছি।     

২০১৯-এ কী কী রঙ রাজত্ব করবে

২০১৮ তে জনপ্রিয় রঙের মধ্যে ছিল প্যাস্টেল শেড। কিন্তু এই বছরে বিভিন্ন রঙের এক্সপেরিমেন্ট করা হচ্ছে। তবে এবছরে ঘন আর হাল্কা দুটো রঙেরই প্রাধান্য

আপনি নিশ্চয়ই ইতিমধ্যে ২০১৯কে সোয়্যাগ সে স্বাগত করে ফেলেছেন। সেটা যদি করেই থাকেন তাহলে এই রঙগুলো আপনার আলমারিতে অবশ্যই থাকবে।থাকবে।২০১৯ এ ভারতীয় (Indian), ওয়েস্টার্ন (Western) এবং ইন্দো ওয়েস্টার্ন (Indo western) পোশাকে যে যে রঙের প্রাধান্য থাকবে সেগুলো হল লিভিং কোরাল (living coral), ট্যাঙ্গারিন অরেঞ্জ (tangerine orange) , ওট (oat), ডিপ অলিভ গ্রিন )deep olive green), ইজিপশিয়ান ব্লু (Egyptian blue), চকলেট ব্রাউন (chocolate brown) ও প্যাস্টেল শেডের (pastel shade) প্রাধান্য থাকবে। পপ কালার (pop colour) আর কালার ব্লকিংয়ের (colour blocking) জনপ্রিয়তা এই বছরেও বজায় থাকবে।যদি আপনার মনে হয় আপনি এই রঙের কোনও পোশাক পরতে চান না তাহলে জুতো বা অ্যাকসেসরিতে এই রঙগুলো ট্রাই করে দেখতে পারেন।     

     

পোশাকে কেমন প্যাটার্ন হবে সবচেয়ে মানানসই

stripe sonam

যদি প্যাটার্নের কথা বলেন তাহলে ডায়গনাল স্ট্রাইপ (diagonal stripes) এবং বড় আকারের ফ্লোরাল মোটিফের (huge floral motifs) জাদু আপনাকে মোহিত করে দেবে। আগের বছরে তাবড় ফ্যাশন শো থেকে শুরু করে আম জনতার মনে জায়গা করে নিয়েছিল গ্রাফিক প্রিন্ট (graphic print), এই বছরেও এই জাতীয় প্রিন্ট যথেষ্ট জনপ্রিয় থাকবে বলেই আশা করা যায়। অন্যান্য আউটফিটে ফেডেড ওয়াটারকালার গ্রাফিক্সের (faded watercolour graphics) কারিকুরিও ঝড় তুলবে। আপনি যদি একজন ফ্যাশনিস্তা হন আর শপিং করার প্ল্যান করে থাকেন তাহলে এই প্রিন্ট আর প্যাটার্নগুলোর (prints and patterns) কথা অবশ্যই খেয়াল রাখবেন। ট্রেন্ডসেটার হতে গেলে আগামী দিনে কীরকম ফ্যাশন ট্রেন্ড আসছে সেটা বোঝা এবং সেটাকে অনুসরণ করা একান্ত প্রয়োজন।

POPxo Recommends 

সব রকমের ফিগারে মানানসই হবে এই পোশাকগুলি

trend2

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় মেয়েরা তাদের ফিগার (figure) নিয়ে একটু বেশি সচেতন। মনে রাখবেন আপনার সাইজ/ফিগার কোনওভাবেই আপনার ব্যক্তিত্বকে প্রভাবিত করে না। আপনি যদি প্লাস সাইজ হন তাহলে ভি নেকলাইনযুক্ত (V neckline) আপার ওয়্যারের উপর ফোকাস করুন।

লোয়ার ওয়্যার বা ড্রেস বেশি ছোট না পরে তার দৈর্ঘ্য হাঁটু পর্যন্ত বা তার নীচে ঝুল রাখুন। আপনি যদি রগা পাতলা হন আর চান যে আপনাকে পোশাক পরলে ফিট দেখায় তাহলে চোকার বা হায়ার নেকলাইনযুক্ত পোশাক বেছে নিন। যাদের উচ্চতা কম তাদের ড্রেস এবং বডি হাগিং গাউন (body hugging gown) ভালো মানাবে। মনে রাখবেন যে পোশাকই আপনি পরবেন সেটা পূর্ণ আত্মবিশ্বাস নিয়ে ক্যারি করবেন।

ইন্ডিয়ান, ওয়েস্টার্ন, ইন্দো-ওয়েস্টার্ন

indo

ভারতীয় পোশাকের কথা বলতে গেলে প্রথমেই বলতে হয় ২০১৭ তে যে শারারা স্যুট খুব জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল সেটা এই ২০১৯ এ আবার ফিরে এসেছে। আর তাঁর সাথে সাথে আপনার আলমারিতে অবশ্যই রাখবেন ধুতি প্যান্ট। যদি কোনও পার্টিতে যেতে চান তাহলে গ্লিটার ড্রেস (glitter dress), বডি হাগিং ড্রেস (body hugging dress), ক্রপ টপ (crop top) ও বেলি বটমের (bell bottom) উপর চোখ বন্ধ করে ভরসা করতে পারেন।

আর যদি আপনার ইন্দো ওয়েস্টার্ন পোশাক ভালো লাগে তাহলে র‍্যাপ স্টাইলের আংরাখা আর ফিউশন শাড়ি বেশ ভালো চয়েস হবে। ফিউশন (fusion) পোশাকের মধ্যে জিপ্সাম (gypsum) আর ড্রেপড শাড়ি (draped saree) ২০১৯ এর ফ্যাশনের (fashion trend) সবচেয়ে শীর্ষে থাকবে।

POPxo Recommends 

আপনার আলমারিতে এই পোশাকগুলো রাখতেই হবে

লেয়ার্ড পোশাক

layerd

এই ধরনের স্টাইল স্টেটমেন্টে (style statement) আপনি যেখানে খুশি যত খুশি পোশাক পরতে পারেন, কিন্তু খেয়াল রাখবেন কি রঙের পোশাক পরছেন আর কি জাতীয় পোশাক পরছেন। লেয়ার্ড ফ্যাশনে ব্লক কালারের বটম আর রেনবো সোয়েট শার্টের সঙ্গে চামড়ার বুট পরতে পারেন। স্পনি যদি স্কার্ফ বা মাফ্লার পরতে পছন্দ করেন তাহলে বয়ফ্রেন্ড জিন্সের (boyfriend jeans) সঙ্গে ডিপ নেক সোয়েটারের সঙ্গে পেয়ার করে তাঁর সঙ্গে মাফলার দিয়ে পরত্তে পারেন। এই জাতীয় পোশাকের সঙ্গে আপনি মেসি বান হেয়ারস্টাইল করতে পারেন। বিশ্বাস করুন এভাবে স্টাইল করলে সবার চোখ আপনার উপরেই আটকে থাকবে। 

টি শার্ট আর বেল বটম ট্রাউজার

trend 2

আপনি যদি পার্টি করতে ভালোবাসেন আর চলতি  ফ্যাশনের (fashion) সঙ্গে আপ টু ডেট থাকেন তাহলে এই জাতীয় ফ্যাশন আপনার আইকনিক স্টেটমেন্ট (iconic statement) হওয়া উচিৎ।এই লুকে একটু হিপ হপ (hip-hop) ছোঁয়া আনতে আপনি শিমারি পিঙ্কিশ (shimmery pinkish) বেল বটম প্যান্ট আর ওয়ান শোলডার প্লেন ব্ল্যাক টপ পরতে পারেন।

এই লুকের সঙ্গে নখে বোল্ড আর পেপি নেলপালিশ লাগান। এটা আপনার বেল বটম প্যান্টের সঙ্গে ম্যাচও করবে। এই স্পেশাল পপ লুক আর নেল পেন্টের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আপনার মেকআপ একদম মিনিমাল রাখুন। কারণ এই লুকের সঙ্গে বেশি মেকআপ একটু উগ্র লাগতে পারে। তাছাড়া এমনিতেও মেকআপের দিক থেকে দেখতে গেলে ন্যুড মেকআপই এখন বেশি জনপ্রিয়।     

পেন্সিল স্কার্ট আর ঢিলেঢালা ব্যাগি শার্ট

আপনি যদি একজন প্রফেশানাল হন আর অফিস আউটফিট কি পরবেন সেটা নিয়ে চিন্তায় থাকেন তাহলে এই অপ্সহান আপনার জন্য একদম পারফেক্ট হবে।পেন্সিল স্কার্ট আগে থেকেই ফ্যাশনে ইন থিং ছিল এবার তাঁর সঙ্গে ওভার সাইজ চেক শার্টও হিট এবং হট ফ্যাশন হয়ে উঠেছে। এই লুককে আরও উন্নত করে তুলতে নিজের চুল ঢিলেঢালা পনিটেল করে বেঁধে নিন। যদি আপনি কুল ও ক্যাজুয়াল অফিসে কাজ করেন যেখানে কোনও নির্দিষ্ট ড্রেস কোড নেই সেখানে এই লুকের সঙ্গে আঙুলে ২-৩ খানা আংটি পরতে পারেন। ঠিকঠাক বসি লুকের (bossy look) জন্য জুতোর নির্বাচনও বুঝেশুনে করতে হবে। তাই বেছে নিন লেস পিপ টো বুট (lace peep toe boots)।  

স্প্যাগেটি স্ট্র্যাপ রাফল ড্রেস

trend3

আমরা কেউই নিজেকে একজন রাজকুমারীর চেয়ে কম ভাবিনা। সেজেগুজে রেডি হওয়ার সময় প্রত্যেক মেয়ে এটাই চায় তাকে যেন সব থেকে আলাদা আর একজন প্রিন্সেসের মতো আকর্ষণীয় দেখায়। সম্প্রতি রাফল স্টাইল (ruffle style) পোশাকের চাহিদা খুব বেড়েছে। সব দোকানেই রাফল টপ, শার্ট আর ড্রেস দেখতে পাওয়া যাচ্ছে। যদি আপনার কাছে এই জাতীয় পোশাক থাকে তাহলেও নিজের সংগ্রহে আরও একটা রাফল ড্রেস যোগ করার এটাই সেরা সময়। ২০১৯ এর নতুন কালেকশান হিসেবে আপনি স্প্যাগেটি স্ট্র্যাপ রাফল ড্রেস অবশ্যই রাখতে পারেন। এই ধরনের পোশাকের সঙ্গে অ্যাঙ্কেল স্ট্র্যাপ চাঙ্কি বুট (ankle strap chunky boots) পরতে পারেন আর আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে এই লুক ক্যারি করতে হলে চুলে কালারও করতে পারেন। 

 

অ্যাসিমেট্রিকাল নেকলাইনের টিশার্ট

অ্যাসিমেট্রিকাল নেকলাইনের টিশার্ট অফিসে পরে যাওয়ার জন্য বেশ আরামদায়ক। তাছাড়া এটা গতানুগতিক পোশাকের চেয়ে একটু আলাদা। শুধু তাই নয় এটা পার্টি আর ডেটে পরে যাওয়ার জন্য খুব সুন্দর একটি চয়েস। আর এই টিশার্ট পরলে আপনি এর সঙ্গে যে কোনও লুক ক্যারি করতে পারেন। যদি ডেনিম জিন্সের সঙ্গে এই টিশার্ট পরবেন বলে ভেবে থাকেন তাহলে মেকআপ একদম কম করবেন। যদি আপনি নিজের লুক স্পোর্টি বা রাফ অ্যান্ড টাফ রাখতে চান তাহলে অ্যাসিমেট্রিকাল নেকলাইনের টিশার্ট আর সঙ্গে স্নিকার (sneakers) পরলে ভালো দেখাবে।

 

ক্রপ টপ ও ড্রপড স্কার্ট

সাদা রঙ মোটামুটি সবাইকেই মানায় আর এখন এই রঙ ফ্যাশন দুনিয়াতেও হিট প্রমানিত হয়েছে।আপনি যদি ক্রপ টপ নিয়ে ক্রেজি হন বা এটা কেনার কথা ভাবেন তাহলে সাদা ক্রপ টপ বেছে নিন আর তাঁর সঙ্গে পরুন ড্রপড স্কার্ট।ইতিমধ্যেই এই লুক অনেক মেয়ের ফ্যাশন স্টেটমেন্ট হয়ে উঠেছে। এই লুককে আরও ফ্যাশনেবল করতে হাই হিল পরতে ভুলবেন না যেন। তার সঙ্গে ঠোঁটে লাগান বোল্ড লিপস্টিক দেখবেন পুরো লুকে বেশ একটা ক্লাসিক ব্যাপার চলে এসেছে।

সাদা লেগিংস ও প্যান্ট

trend4

৯০ এর দশকে জনপ্রিয় হওয়া সাদা লেগ প্যান্টস, ট্রাউজার্স আর বেল বটম আবার ঢাক ঢোল বাজিয়ে ফ্যাশন দুনিয়ায় নতুন করে প্রবেশ করেছে। এটা দেখতে ক্লাসি এবং ফেমিনিন তো বটেই, তার সঙ্গে পরেও খুব আরাম। আপনি এই প্যান্ট ক্রপ টপ, টাইট টি শার্ট বা লং স্লিভ শার্টের সঙ্গে অনায়াসে পরতে পারেন। আবার যদি একটু ঐতিহ্যশালী পোশাকের কথা বলেন তাহলে বলি পালাজোর চেয়ে শারারা অনেক বেশি জনপ্রিয়তা পাবে। আপনি যদি এগুলো কেনার কথা ভাবছেন কিন্তু নিশ্চিত হতে পারছেন না তাহলে একটা ট্রায়াল দিয়ে দেখতে ক্ষতি নেই। বিশ্বাস করুন এগুলো শুধু আপনার ভালো লাগবে তা নয় রীতিমতো অভ্যাসে দাঁড়িয়ে যাবে।

কেপ আর পনচো

trend5

২০১৮ সালে কেপ খুব হিট হয়েছিল এই বছরেও ফ্যাশন দুনিয়ায় সে তার আধিপত্য বজায় রাখবে। যদি ২০১৯ এর একটা ফ্যাশন চার্ট আমরা বানাই তাহলে সেখানে কেপ আর পনচো একদম উপরে থাকবে।এথনিক লুককে আরও সুন্দর করে তুলতে আপনার আলমারিতে বিভিন্ন রকমের কেপ থাকা অবশ্যই প্রয়োজন। ফ্লোর লেংথ কেপ আর শর্ট কেপ সব রকমের রঙ আর প্যাটার্নেই খুব সহজে পাওয়া যায়। শর্ট ড্রেস, ফর্মাল লুক আর ভারতীয় পোশাকের সঙ্গে এটা খুব সুন্দর লাগে। 

ফ্যাশন বিশেষজ্ঞদের কথা শুনে যদি চলেন তাহলে আপনি নিশ্চয়ই এটা জানেন যে পোশাক আপনি আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে পরতে পারেন সেটাই একদিন ট্রেন্ড হয়ে যায়। ধরুন আপনার বান্ধবীকে বেল বটম প্যান্ট খুব ভালো মানায় আবার সেটাই আপনার চেহারায় বেমানান লাগে। তবু জোর করে সেই ট্রেন্ড অনুসরণ করার কোনও মানে হয়না। সেটাই পরবেন যেটা পরে আপনি নিজে কমফোর্টেবল থাকবেন। ফ্যাশন অন্যকে দেখানোর জন্য নয় বরং নিজের জন্য করাই সবচেয়ে ভালো।

একবার একঝলকে দেখে নিন ২০১৮ অর্থাৎ আগের বছরে কীরকম ট্রেন্ড ছিল

আগের বছর অর্থাৎ ২০১৮ তে রমরমা ছিল প্যাস্টেল শেড যেমন পিচ, ব্লু, লেমন এসব রঙের।

চেক প্রিন্টের চাহিদা ছিল সর্বাধিক।

পোশাকের হাতায় দেখা গিয়েছিল নানারকমের এক্সপেরিমেন্ট

বটম ওয়্যারের মধ্যে শারারা হয়েছিল খুব জনপ্রিয়।

ওয়ানপিস ভারতীয় পোশাক মন কেড়ে নিয়েছিল মহিলাদের।

 

কৃতজ্ঞতা স্বীকারঃ রাজীব আগারওয়াল, সিইও, রংগ্রিতি (Sanjeev Agarwal, CEO, Rangriti), ফ্যাশন ডিজাইনার আশিস শর্মা (Fashion Designer Asish Sharma), ব্র্যান্ডস ডাবলিউ, অরেলিয়া অ্যান্ড উইশফুল (Brands W, Aurelia and Wishful), পশ প্রাইড (Posh Pride)  

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!