Fitness

জিমে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে কী করবেন?

Swaralipi BhattacharyyaSwaralipi Bhattacharyya  |  Aug 6, 2020
জিমে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে কী করবেন?

করোনা (coronavirus) আতঙ্ক এবং লকডাউনের কারণে সকলের রুটিন বদলে গিয়েছে। প্রতিদিন সকালে মর্নিং ওয়াকে যাওয়া আপনার অভ্যেস ছিল কয়েক মাস আগেও। কিন্তু এখন হয়তো বাড়ির ছাদেই হাঁটতে হচ্ছে। কেউ বা সকালে সময় পেতেন না। বিকেলে অফিস ফেরত জিমে গিয়ে শরীরচর্চা করতেন। সেও বাদ গত কয়েক মাস ধরে। জিম (gym) বন্ধ। অফিসও করতে হচ্ছে বাড়ি থেকেই।

আপাতত সমগ্র পরিস্থিতি বিচার করে কিছুটা ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। গত ৩ অগস্ট থেকে শুরু হয়েছে আনলক থ্রি। ধীরে ধীরে সিনেমা হল, জিম খোলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। জিম খুলে গেলে আর অনলাইন ফিটনেস টিউটোরিয়ালের উপর আপনাকে ভরসা করতে হবে না। প্রফেশনাল ট্রেনারের তত্ত্বাবধানে সঠিক যন্ত্রপাতির সাহায্যেই শরীরচর্চা সম্ভব।

কিন্তু এই মুহূর্তে জিমে গেলেও ঝুঁকি থেকেই যাবে। করোনা সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য যা যা করছেন, তার থেকে বেশি সতর্ক হয়ে জিমে যেতে হবে। ঠিক কীভাবে নিজেকে করোনা আবহে জিমে সুরক্ষিত রাখবেন, সে বিষয়েই পরামর্শ দেওয়ার চেষ্টা করলাম আমরা।

জিমে শরীরচর্চার সময় ফেস মাস্ক না পরাই ভাল। ছবি ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে।

১) নিউ নর্মালে আপনার জিম খুললে তা সঠিক ভাবে স্যানিটাইজ করা হচ্ছে কিনা, সে বিষয়ে নিশ্চিত হয়ে তবেই জিমে যাবেন। হাতে সময় নিয়ে বেরন। শেষ মুহূর্তে দৌড়ে জিমের দরজা দিয়ে ঢুকবেন না। প্রায় কারও গায়ের উপর দিয়ে ছুটে পৌঁছনোর চেষ্টা করবেন না। নিজের নির্দিষ্ট সময়ে যান। যদি দেখেন তখন আগের সেশনের কেউ রয়েছেন, তাহলে বাইরে অপেক্ষা করুন।

২) নিজস্ব জলের বোতল, তোয়ালে, যোগা ম্যাট বাড়ি থেকে নিয়ে যান। আগে হয়তো এ সবই নিজস্ব লকারে রেখে ফিরে আসতেন। এখনকার পরিস্থিতিতে সেটা আর করা যাবে না। সব কিছু বাড়িতে নিয়ে এসে ধুয়ে, রোদে শুকিয়ে নিন। ফের পরের দিন নিয়ে যান। তোয়ালে, যোগা ম্যাটের দুটো করে সেট থাকলে সুবিধে হবে।

৩) জিমের যন্ত্রপাতিতে গ্লাভস পরে হাত দেওয়ার চেষ্টা করুন। যদি একান্তই গ্লাভস পরতে না পারেন, প্রত্যেক বার হাত দেওয়ার পর হাত স্যানিটাইজ করুন। কোনও ভাবেই জিমের যন্ত্রপাতিতে হাত দিয়ে সেই হাত মুখে দেবেন না। শরীরচর্চার সময় ঘাম হওয়াটা স্বাভাবিক। ঘাম মুছতে হাত অজান্তেই মুখে চলে যায়। সতর্ক থাকতে হবে।

৪) গ্লাভস এবং সোয়েট ব্যান্ড পরে নিতে পারলে দুটো উপকার। প্রথমত জিমের যন্ত্রপাতি থেকে সরাসরি ভাইরাস আসতে পারবে না। দ্বিতীয়ত অজান্তেই মুখে হাত চলে যাওয়ার সম্ভবনা কমবে।

৫) জিমে শরীরচর্চার সময় ফেস মাস্ক না পরাই ভাল। মাস্ক থাকলে নিঃশ্বাসের সমস্যা হবে। অনেক তাড়াতাড়ি হাঁপিয়ে যাবেন। একবার চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নেওয়াই ভাল।

৬) জিম করতে গেলেও করোনার হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার গোল্ডেন রুল ভুলে গেলে চলবে না। সোশ্যাল ডিসট্যান্স বজায় রাখতেই হবে। আর কোনও ভাবে যদি শরীর খারাপ মনে হয়, তাহলে আরও কয়েকটা দিন জিম এড়িয়ে চলুন। দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

মূল ছবি ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!