home / রিলেশনশিপ
বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক শেষ করে দিতে চান? তা হলে এই টিপসগুলি মেনে চলুন অক্ষরে-অক্ষরে

বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক শেষ করে দিতে চান? তা হলে এই টিপসগুলি মেনে চলুন অক্ষরে-অক্ষরে

শেষমেষ ঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছেন। বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক রাখাটা মোটেই ভাল কাজ নয়। কত ঝক্কি বলুন তো! একে তো সামাজিক সম্মানহানির ভয়। উপরন্তু এমন ভুল সিদ্ধান্তের কারণে গোছানো সংসার ভেঙে যেতেও সময় লাগে না। বলতেই পারেন, বরের জ্বালায় বাড়িতে মন টেঁকে না। তাই তো ‘একা’ মন এদিক-সেদিক ছুট লাগায়। হতে পারে আপনার কথায় যুক্তি আছে। কিন্তু তাই বলে এমন অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়াটা তো কোনও কাজের কথা নয়! বরের সঙ্গে ঝগড়া-অশান্তি হতেই পারে। মনের মিল না হওয়াও অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু সেই কারণে অন্য কাউকে মন দিয়ে ফেলবেন! তাতে করে যে দু’কূলই ডুববে। তাই ভুল শুধরে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে যে মন্দ করেননি, তাতে কোনও সন্দেহ নেই। কিন্তু তা বলে হাত গুটিয়ে বসে থাকলে চলবে না। বরং ঝটপট কতগুলি কাজ সেরে ফেলতে হবে। তাতে করে আগামী দিনে বিপথে যাওয়ার আশঙ্কা যেমন কমবে, তেমনই ভাঙা সংসারে সুখের ছোঁওয়াও লাগবে।

ভুলের কারণ খুঁজে বের করুন

ADVERTISEMENT

pixabay

কী কারণে মন অন্য পথে বাঁক নিয়েছিল, তা খুঁজে বের করা আপনার প্রথম এবং প্রধান কাজ। কারণ, সমস্যার মূলে গিয়ে তার সমাধান খুঁজে না পেলে যে বারে-বারে মন উচাটন হবে। আর প্রতিবারই যে ভুল শুধরে নেওয়ার সুযোগ নাবেন, তা তো না-ও হতে পারে। তাই সম্পর্কের ফাঁকফোকরগুলো পূরণ করে নিয়ে পার্টনারের সঙ্গে নতুন করে সব কিছু শুরু করুন। প্রয়োজনে দু’জনে মিলে বসে সমস্যার সমাধান খুঁজুন। একে-অপরের সঙ্গে মন খুলে কথা বলুন। কাছের কোনও বন্ধুর সাহায্যও নিতে পারেন। অনেক সময় তৃতীয় ব্যক্তির কথা আমাদের মাথায় একটু বেশিই ঢোকে। তাই তো এমন পরিস্থিতিতে কাছের মানুষের মধ্যস্থতা জরুরি, তাতে সমস্যা মিটে যাওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে!

ADVERTISEMENT

বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের কথা বরকে জানিয়ে দিন

pixabay

ADVERTISEMENT

বলেন কী! নিজের পায়ে নিজেই কুড়ুল মারতে বলছেন? এসব করলে তো সংসারে আগুন লাগবে! ঠিকই বলেছেন। অবৈধ সম্পর্ক (extramarital affair) কারও পক্ষেই মেনে নেওয়া সম্ভব নয়। তাছাড়া এমন ভুলের কথা কাছের মানুষের কাছে স্বীকার করাটাও সহজ কাজ নয়। কিন্তু একটা কথা তো মানবেন যে, এমন সম্পর্কে জড়িয়ে আপনি পার্টনারের বিশ্বাস ভেঙেছেন? তাই হারিয়ে যাওয়া বিশ্বাস যাতে আবার ফিরে আসে, তার চেষ্টা তো আপনাকেই করতে হবে। আর তার জন্য সত্যির পথ ছাড়া যে আর কোনও রাস্তা নেই। কথাটা শোনার পরে কিছু একটা অঘটন ঘটতেই পারে। কিন্তু আপনাকে সব কিছু মেনে নিতে হবে। পরিস্থিতি বুঝে পার্টনারকে সব কথা বুঝিয়ে বলতে হবে। মন থেকে ভুল স্বীকার করবেন। দেখবেন, প্রথম দিকে রেগে গেলেও বরের মন ঠিক নরম হবেই, তখন ঠিক আগের মতো করেই সংসার গুছিয়ে তুনেবেন। মন-প্রাণ দিয়ে বরকে আগলে নেবেন, তা হলেই দেখবেন বিচ্ছেদের কালো মেঘ কেটে যেতে সময় লাগবে না।

https://bangla.popxo.com/article/looking-for-love-in-2020-remember-these-love-mantras-in-bengali

প্রেমিককে নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিন

ADVERTISEMENT

pixabay

অবৈধ সম্পর্ক ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত যখন নিয়েই ফেলেছেন, তখন প্রেমিককে সব কথা খুবে বলে ফেলাটাই বুদ্ধিমানের কাজ। এই কাজটা করতে গিয়ে হয়তো বেশ কিছু দিন ঝুটঝামেলা সামলাতে হতেও পারে। কিন্তু একটা কথা মাথায় রাখবেন, ভুলটা ভুলই। তাই নিজেকে শুধরে ফেলতে পারলে সবারই মঙ্গল। আচ্ছা, আর একটা কথা মাথায় রাখবেন। অনেক সময় সম্পর্ক ছেদ করে ফেলার পরেও মেসেজে যোগাযোগটা থেকেই যায়। আপনি কিন্তু একই ভুল করবেন না। যখন সব কিছু শেষ করে ফেলতেই চান, তখন কোনও ধরনের যোগাযোগ রাখাই চলবে না। প্রয়োজনে প্রেমিকের নম্বর ব্লক করে দেবেন। সেই সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ার ফ্রেন্ড লিস্ট থেকে ডিলিট করে দিলেও মন্দ হয় না। মোদ্দা কথা হল অবৈধ সম্পর্কের চারাগাছটিকে সমূলে উৎখাত করাটাই বুদ্ধিমানের কাজ।

ADVERTISEMENT

বর খেপে গিয়ে যেন প্রেমিককে গালমন্দ না করেন!

pixabay

ADVERTISEMENT

বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের কথা শুনে বর যে শান্ত হয়ে বসে থাকবেন না, তা তো বলাই বাহুল্য। কিন্তু তাই বলে আপনার প্রেমিকের সঙ্গে যেন ঝগড়ায় জড়িয়ে না পারেন। কারণ, তাতে করে পরিস্থিতি আরও জটিল আকার নিতে পারে। কোনও কারণে যদি থানা-পুলিশ হয়, তা হলে সবারই সম্মানহানি হবে। তাই বরকে শান্ত রাখার কাজটা আপনাকেই করতে হবে। সে সময় পরিস্থিতিটা সামাল দেওয়াটা হয়তো সহজ হবে না। কিন্তু কিছু করার নেই! ভুল যখন করেছেন, তখন তার ঝক্কি যে আপনাকেই সামলাতে হবে।

আপনার মাথা গরম হলেই বিপদ

ADVERTISEMENT

pixabay

এমন পরিস্থিতিতে বরের সঙ্গে দূরত্ব বাড়াটা অস্বাভাবিক নয়। এমনকী, কথায়-কথায় পার্টনার আপনার উপরে চিৎকার চেঁচামেচিও করতে পারেন। সে সময় মাথা ঠান্ডা রেখে তাঁকে পুরো বিষয়টা বোঝানোর দায়িত্ব কিন্তু আপনারই। নিজের ভুলটা বারে বারে স্বীকার করুন। প্রয়োজনে ক্ষমা চান। কিন্তু ভুলেও মাথা গরম করে বরের ভুলটা ধরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবেন না যেন! এতে আগুনে ঘি দেওয়ার মতো ঘটনা ঘটবে। তাতে করে পরিস্থিতি হাতের বাইরেও বেরিয়ে যেতে পারে। তাই যদি বরের সঙ্গে সম্পর্কটা টিকিয়ে রাখতে হয়, তা হলে তাঁর রাগের আঁচটা কয়েকটা দিন মুখ বুজে সহ্য করতেই হবে।

ADVERTISEMENT

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম…আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!

ADVERTISEMENT
08 Jan 2020
good points

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text