home / বিনোদন
কমেডি নাকি থ্রিলার নাকি ডিটেক্টিভ – কোন গোত্রে পড়বে হইচই-এর গোরা?

কমেডি নাকি থ্রিলার নাকি ডিটেক্টিভ – কোন গোত্রে পড়বে হইচই-এর গোরা?

গোয়েন্দা গল্প পছন্দ করেন না, এমন লোকের সংখ্যা খুব বেশি বোধয় নয়। তা না হলে বলুন তো, সারা বিশ্বে এত্ত এত্ত গোয়েন্দাদের ছড়াছড়ি? আমাদের বাংলাতেই তো কত্ত গোয়েন্দা রয়েছেন। বাংলা সাহিত্যের গোয়েন্দারা বারবারই উঠে এসেছেন সিনেমার পর্দায়। সে তিনি সত্যান্বেষী ব্যোমকেশ বক্সি-ই হোন অথবা ফেলুদা অথবা লালবাজারের ইনসপেক্টর শবর। তবে এবারে বাংলা ওয়েব সিরিজে দেখা মিলল একজন নতুন গোয়েন্দার। গৌরব সেন ওরফে গোরা। তিনি আবার নিজেকে ‘সিরিয়াল কিলার স্পেশালিস্ট’ বলেন, আর ওয়েব সিরিজের পরিচালক মহাশয় গোরা-কে ‘দ্য প্রাইভেট ডিফেক্টিভ’ বলছেন। (gora hoichoi web series review)

গত সপ্তাহেই হইচই-এ মুক্তি পেয়েছে ‘গোরা – দ্য প্রাইভেট ডিফেক্টিভ’। প্রথমেই দেখা যায় সাহিত্যিকেরা ভয়ানকভাবে খুন হচ্ছেন। আর খুন করার কায়দা বড়ই ‘পৈশাচিক’। দাঁত উপড়ে, সারা শরীরে কলমের নীবের আঁচড় কেটে ক্ষতবিক্ষত করে, দাঁতের জায়গায় কলমের নীব বসিয়ে দিয়ে খুনগুলো করছে খুনি। প্রতিটি খুনের প্যাটার্ন এক। তিন জন সাহিত্যিক ইতিমধ্যে খুন হয়ে গিয়েছেন আর চতুর্থ জন ‘খুন হব হব’ করছেন। আর কেসটিই এসেছে আমাদের গোয়ান্দা মশায়ের কাছে।

গোরা বা গৌরব সেন আবার ছোট গজনি। অর্থাৎ তিনি ঠিকভাবে কিছুই মনে রাখতে পারেন না। ক্লায়েন্টের নাম হোক বা পুলিশ ইনসপেক্টরের নাম হোক অথবা সাহিত্যিকদের নাম হোক – কিছুই মনে রাখতে পারেন না। মনে রাখার মধ্যে শুধু নিজের বোন আর সহকারী কাম বন্ধুর নাম মনে রাখতে পারেন। আর ক্লু মনে রাখতে আজব গান বাঁধেন। এতটা পড়ে ভাববেন না যে গোরা টেক স্যাভি নয়। গানের মধ্য দিয়ে ক্লু মনে রাখার সঙ্গে সঙ্গে তিনি স্ক্রিনশটও নিয়ে রাখেন কোন ঘটনা কোন তারিখে ঘটেছিল তা মনে রাখার জন্য। (gora hoichoi web series review)

যাই হোক, গোরা বাবু আমাদের ফেসবুক করতে করতে ফটাফট কেসের সমাধান করে দেন। অবশ্য, আজকের দিনে দাঁড়িয়ে, মানে ২০২২-এ দাঁড়িয়ে যে গল্পটি এই ওয়েব সিরিজে বলা হয়েছে, অর্থাৎ যে কেসের দায়িত্ব পড়েছে আমাদের ভুলোমনা গয়েন্দা মশায়ের কাঁধে, তাতে করে আমার অন্তত মনে হয়েছে যে আমি টাইম মেশিনে বসে রয়েছি। কারণ জানতে চাইছেন?

সুপ্রিয়া নামের এক উঠতি লেখিকা পাঁচ বছর আগে তিন জন নামী সাহিত্যিকের হাতে নিগৃহীতা হয় এবং মারা যায়। সেই অপরাধ চাপা দিতে ফেসবুকে মেয়েটির নামে নানা কুৎসা রটানো হয়। পাঁচ বছর পর তাঁর পরিচিত মানুষজন এবং আরও একজন নামী সাহিত্যিক সুপ্রিয়ার খুনের বদলা নেন। তবে, এই ওয়েব সিরিজটি দেখতে দেখতে আমার মনে বেশ কয়েকটি প্রশ্ন জেগেছে –

এক, গোরা ওরফে গৌরব সেন মদের বোতলে তিনটে বাঁদরের ছবি দেখে কীভাবে ধরে নিলেন ওই তিন জন সাহিত্যিকই অপরাধী এবং চতুর্থ জন খুনগুলো করছেন?

দুই, সোমলতার বাড়িতে না গিয়েও কীভাবে স্লিপ ওয়াকিং-এর কেস সল্ভ করে দিলেন তিনি?

তিন, এই সাহিত্যিক খুনের সঙ্গে আরও একটা ছোট্ট ক্রাইম অর্থাৎ সোমলতার গল্প জুড়ে আরও একটি সাবপ্লট তৈরি কেন করা হল? (gora hoichoi web series review)

তিন নম্বর প্রশ্নের মোটামুটি একটা উত্তর নিজেই নিজেকে দিয়েছি ঠিকই, হয়ত এই সিরিজের দ্বিতীয় সিজন আসবে, তাই সোমলতা চরিত্রটি স্থাপন করা হল প্রথম সিজনে। কিন্তু বিশ্বাস করুন, প্রথম প্রশ্ন দুটোর উত্তর এখনও খুঁজে চলেছি। কোনও গোয়েন্দা কি আমাকে সাহায্য করবেন?   

ছবি: হইচই-এর সৌজন্যে

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!      

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

20 Jan 2022

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text