Diet

রান্না করে বা কাঁচা – নানা রোগ-ভোগ থেকে দূরে থাকতে যেভাবে খুশি পনির খান

Debapriya BhattacharyyaDebapriya Bhattacharyya  |  Jul 21, 2021
রান্না করে বা কাঁচা - নানা রোগ-ভোগ থেকে দূরে থাকতে যেভাবে খুশি পনির খান in bengali

আট থেকে আশি, সকলেরই তো পনির বেশ পছন্দের, তা হলে প্রায় দিনই পনিরের নানা মুখরোচক পদ রান্না করেন না কেন? তাতে ছোট-বড় সকলেরই যেমন রসনা তৃপ্তি হবে, তেমনই শরীরও চাঙ্গা থাকবে। মানে, পনির খেলে শরীর চাঙ্গা থাকবে (health benefits of cottage cheese)! কীভাবে শুনি? এই দুগ্ধজাত খাবারটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন এবং ফাইবার, যা বহুক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখে। ফলে শরীরে অতিরিক্ত পরিমাণে ক্যালরি প্রবেশ করতে না পারার কারণে ওজন বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা আর থাকে না। তবে শুধু ওজন কমাতেই নয়, পনিরে উপস্থিত নানা উপকারী উপাদানের কারণে ছোট-বড় নানা রোগ দূরে থাকতেও বাধ্য হয়।

ডায়াবেটিস বা মধুমেহ নিয়ন্ত্রণে থাকে

পনিরে রয়েছে ম্যাগনেশিয়াম যা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে

পরিবারে ডায়াবেটিস রোগের ইতিহাস রয়েছে নাকি? তা হলে পনির দেখলে নাক সিঁটকোলে চলবে না। কারণ, এই দুগ্ধজাত খাবারটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম, যা শর্করার মাত্রাকে বেঁধে রাখতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। ফলে ডায়াবেটিসের মতো জটিল রোগ ধারেকাছেও ঘেঁষতে পারে না (health benefits of cottage cheese)।

হজমক্ষমতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে

বাঙালিরা হলেন জাত খাদ্যরসিক। তাই তো গ্যাস-অম্বলের মতো সমস্যা কখনই আমাদের পিছু ছাড়ে না। আর ঠিক সেই কারণেই তো মাঝে মধ্যে পনিরের নানা সুস্বাদু পদ খাওয়া উচিত। তাতে কী হবে? পনিরে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম এবং ফসফরাস, রয়েছে ফাইবারও, যা হজম ক্ষমতার উন্নতিতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। সঙ্গে বদ-হজম এবং গ্যাস-অম্বলের মত সমস্যার প্রকোপ কমাতেও সাহায্য করে। তবে বেশি ঝাল-মশলা দিয়ে পনিরের কোনও পদ রান্না করলে কিন্তু এত উপকার না-ও পেতে পারেন।

শরীরে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি হতে দেয় না

পনির টিক্কা, খেতেও সুস্বাদু আবার ক্যালশিয়ামেও ঠাসা

বেশ কিছু স্টাডিতে দেখা গেছে বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সিংহভাগ মহিলার শরীরেই ক্যালসিয়ামের ঘাটতি দেখা দেয়। বিশেষ করে মেনোপজের পরে তো দ্রুত হারে কমতে থাকে ক্যালসিয়ামের মাত্রা। তাই তো মেয়েদের বেশি করে পনির খাওয়া উচিত। যদি রান্না করে খাওয়া সম্ভব না হয়, তা হলে কাঁচাও খেতে পারেন, তাতেও উপকার মিলবে। কারণ, পনির হল ক্যালসিয়ামে ঠাসা। তাই তো প্রায় দিনই পনির খাওয়া শুরু করলে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি তো মেটেই, সঙ্গে হাড় এবং দাঁতও শক্তপোক্ত থাকে। বিশেষ করে বুড়ো বয়সে গিয়ে আরথারাইটিসের মতো রোগের খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা আর থাকে না।

হবু মায়েদের জন্য দারুন উপকারী

পনিরে রয়েছে ফলেট নামক একটি উপকারী উপাদান, যা fetal development যাতে ঠিক করে হয়, সেদিকে নজর রাখে। সেই সঙ্গে লোহিত রক্ত কণিকার ঘাটতিও মেটায়। ফলে প্রসবের আগে মা এবং বাচ্চার কোনও ধরনের শারীরিক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা আর থাকে না (health benefits of cottage cheese)।

হার্টের সমস্যা দূরে রাখতে সাহায্য করে

হার্টের সমস্যা থাকলে পনিরের রান্নায় নুন দেবেন না বা দিলেও সামান্য

কমবয়সিদের মধ্যে যে হারে হার্টের রোগের প্রকোপ বাড়ছে, তাতে বেশি করে পনির খাওয়ার প্রয়োজন যে বেড়েছে, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। কিন্তু পনিরের সঙ্গে হার্টের রোগের কী সম্পর্ক? এই খাবারটিতে রয়েছে পটাশিয়াম, যা রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখার মধ্যে দিয়ে হার্টকে চাঙ্গা রাখতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। তবে একটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে, তা হল পনিরের যাই পদ রান্না করুন না কেন, তাতে বেশি মাত্রায় নুন দেবেন না যেন! তাতে কোনও উপকার তো মিলবেই না, উল্টে শরীরে সোডিয়ামের মাত্রা বেড়ে যাওয়ার কারণে রক্তচাপ লাগাম ছাড়াবে। ক্ষতি হবে হার্টেরও।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!      

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!