logo
Logo
User
home / পেরেন্টিং টিপস
আপনার শিশু স্কুলে যেতে ভয় পায়? কী করবেন আপনি

আপনার শিশু স্কুলে যেতে ভয় পায়? কী করবেন আপনি

শিশু স্কুলে যেতে চায় না ? স্কুলে যাওয়ার নাম শুনলেই কেঁদে ফেলে। প্রথম প্রথম স্কুল যাওয়া শুরু করলে তাদের মধ্য়ে এই পরিবর্তন দেখা স্বাভাবিক। কারণ, তারা চেনা ছক থেকে বেরিয়ে অচেনা জায়গায় যেতে শুরু করছে। সেখানে সময় কাটানো শুরু করছে। কিন্তু দিনের পর দিন এমনই হতে থাকলে আপনাকে সেই নিয়ে ভাবতেই হবে। কীভাবে সন্তানের স্কুল ভীতি (school phobia )কাটাবেন আপনি? আমরা কয়েকটি পরামর্শ দিলাম, হয়তো আপনার সাহায্য় হলেও হতে পারে।

শিশুর সঙ্গে (school phobia ) কথা বলুন

স্কুলে যেতে অনেক শিশুই ভয় পায় (school phobia )। অনীহা থাকে। প্রথমেই তার সঙ্গে কথা বলে স্কুলে যেতে না চাওয়ার কারণ বোঝার চেষ্টা করুন। শিশুকে বিশ্বাস করুন। স্কুলে না যেতে চাওয়ার পিছনে অনেক রকম কারণ থাকতে পারে। সেগুলো খোঁজার চেষ্টা করুন। কথা বলেই একমাত্র তার মনের ভাব বুঝতে পারবেন। অযথা শিশুকে অবিশ্বাস করে স্কুলে জোর করে পাঠানোর মতো ভুল করবেন না।

তার বন্ধু আছে?

তার কি পড়াশোনা বুঝতে সমস্য়া হচ্ছে?

অনেক সময় স্কুলে অনেক শিশুর সঙ্গে আলাদা করে কোনও একটি শিশুর প্রতি বিশেষ যত্ন নেওয়া শিক্ষক-শিক্ষিকাদের পক্ষে সম্ভব হয় না। ফলে পড়াশোনা বোঝার ক্ষেত্রে খামতি থেকে যায়। সেক্ষেত্রে পরে পড়া ধরলে আপনার শিশু নাও পারতে পারে। বাকি বন্ধুদের সামনে সেটাই হয়তো তার লজ্জার কারণ। তাই পড়াশোনা বোঝার ক্ষেত্রে কোনও অসুবিধে হচ্ছে কিনা সেটা বুঝতে চেষ্টা করুন। আপনি বাড়িতে পড়াতে বসলেই অনেকটা পরিষ্কার হয়ে যাবে। সেই সমস্যা হলে অবিলম্বে স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকার সঙ্গে কথা বলুন।

স্কুলে সে কাকে ভরসা করতে পারে (school phobia ) ?

বাড়িতে হয়তো আপনার সন্তানের সবচেয়ে ভরসার জায়গা আপনি (school phobia ) । স্কুলেও এমন কাউকে ভরসার জায়গা হয়ে উঠতে হবে। সেটা কোনও শিক্ষক বা শিক্ষিকার পক্ষেই সবথেকে ভাল সম্ভব। যাতে স্কুলে থাকাকালীন যে-কোনও সমস্যা সেই ভরসার মানুষকে গিয়ে কোনওরকম সঙ্কোচ ছাড়াই আপনার সন্তান জানাতে পারে। স্কুলে সেই ভরসার মানুষকে খুঁজে পেতে সন্তানকে সাহায্য করুন।

সে বন্ধু বানাবে কীভাবে, আপনি সাহায্য় করুন

স্কুলের ভয় কাটিয়ে তোলার সবচেয়ে ভাল উপায় হল, যা কিছু ভাল লাগে তার কারণ স্কুলে তৈরি করা । তার মধ্যে অন্যতম হল বন্ধুত্ব। সহপাঠীদের সঙ্গে যাতে আপনার সন্তান সহজে মিশে যেতে পারে (school phobia ) , তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব তৈরি করতে পারে, সেদিকে খেয়াল রাখুন। টিফিন শেয়ার করতে শেখান। সম্ভব হলে স্কুলের পরেও কিছু সহপাঠীর সঙ্গে খেলার সুযোগ করে দিন। এতে আলাদা বন্ডিং তৈরি হবে। ধীরে-ধীরে কেটে যাবে স্কুলে যাওয়ার ভয়।

সে কেন ভয় পাচ্ছে?

কোনও ঘটনায় কি সে ভয় পাচ্ছে?

এই বিষয়টা মা বা বাবা হিসেবে আপনার মনে রাখা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। এমন কোনও অবাঞ্ছিত হেনস্থার মুখে আপনার শিশু পড়ছে না তো, যাতে ওর স্কুলে যাওয়াটাই আতঙ্কের হয়ে উঠছে? কোনও শিক্ষক, শিক্ষিকা, কোনও বন্ধু, কোনও অশিক্ষক কর্মচারী ওর সঙ্গে এমন কোনও আচরণ করছে না তো, যেটা কাউকে ও বুঝিয়ে বলতে পারছে না? সেটা ভাল করে নজরে রাখুন। আর যে-কোনও পরিস্থিতিতে যে কোনও কথা শিশু যাতে অন্তত আপনাকে সরাসরি বলতে পারে (school phobia ) , সেই রাস্তাটা খোলা রাখুন। সন্তানের অভিভাবক পরে, আগে বন্ধু হয়ে উঠুন।

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজিহিন্দিমারাঠি আর বাংলাতেও!       

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

03 Dec 2021

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text