Advertisement

রূপচর্চা ও বিউটি টিপস

থুপে থুপে মেকআপ লাগালে কিন্তু কেক ফেস হবেই! জেনে নিন টিপস অ্যান্ড ট্রিকস

Debapriya BhattacharyyaDebapriya Bhattacharyya  |  Nov 10, 2020
থুপে থুপে মেকআপ লাগালে কিন্তু কেক ফেস হবেই! জেনে নিন টিপস অ্যান্ড ট্রিকস

Advertisement

সেলেব্রিটিদের মুখে প্রফেশনাল মেকআপ আর্টিস্টদের হাতের জাদু দেখে আমরা ভ্যাবলা হয়ে তাকিয়ে থাকি আর ভাবি, ইস, কী সুন্দর দেখতে এঁদের! কিন্তু মেকআপের (how to avoid cake face with proper makeup tricks) জোরেই যে তাঁদের কালোপানা, দাগছোপ-ব্রণ-অ্যাকনেওয়ালা মুখ ওরকম সুন্দরপানা দেখতে হয়েছে, এটা কিন্তু তখন একেবারেই মনে আসে না। এখানেই মেকআপের আসল জাদু। আপনার মুখে মেকআপের পরত বোঝাই যাবে না, অথচ আপনার খুঁতগুলি ধামাচাপা পড়ে যাবে! মেকআপ আর্টিস্টদের জন্য ‘কেক ফেস’ ব্যাপারটা হল আমার-আপনার কাছে ক্লাস ফোরে অঙ্কে একশোয় দশ পাওয়ার মতো! কিন্তু জানেন কি, এই পরত-পরত মেকআপের দোষটা আমি-আপনিও একটু চেষ্টা করলেই কাটিয়ে উঠতে পারি। শুধু কয়েকটা নিয়ম একেবারে অক্ষরে-অক্ষরে মেনে চলতে হবে।

কিভাবে মেকআপ করলে কেক ফেস না, পাবেন দারুণ লুক!

১। কনসিলার বা ফাউন্ডেশন বেশি ব্যবহার করবেন না। বেস মেকআপের জন্য ফাউন্ডেশন আর মুখের দাগ-ছোপ বা অন্যান্য খুঁত ঢেকে ফেলার জন্য ব্যবহার করা হয় কনসিলার। কিন্তু তার মানে এই নয় যে আপনি একদম মনের আনন্দে এই দুটো প্রোডাক্ট মুখে লাগাবেন। এতে মোটেও আপনাকে ডানাকাটা পরী লাগবে না, বরং উল্টোটাই লাগার আশঙ্কা বেশি। তার কারণ বেস মেকআপ শুকিয়ে যাওয়ার পর কেক ফেস (how to avoid cake face with proper makeup tricks) তৈরি হতে পারে। কাজেই যত বেশি ফাউন্ডেশন বা কনসিলার লাগাবেন, একটা সময়ের পর কেক ফেস তৈরি হওয়ার আশঙ্কা তত বেশি বাড়বে। কাজেই, ঠিক যতটুকু প্রয়োজন ততটুকুই লাগান এবং বিউটি ব্লেন্ডার দিয়ে বেশ ভাল করে ব্লেন্ড করুন।

২। আমরা অনেকেই পাতলা ফাউন্ডেশন ব্যবহার করতে ভালবাসি। ভাবি, এতে ত্বকের উপর আলাদা পরত হয়তো তৈরি হবে না। কিন্তু ভেবে দেখবেন, হালকা ফাউন্ডেশন দারুণ পটু হাত ছাড়া একটা পরতে ত্বকের রং সমান করে উঠতে পারে না। তাই এর বদলে ব্যবহার করুন ফুল কভারেজ ফাউন্ডেশন আর অতি অবশ্যই সেটি বিউটি ব্লেন্ডার বা ফাউন্ডেশন ব্রাশ দিয়ে লাগাবেন সমান করে।

৩। পুরনো ফাউন্ডেশন লাগাবেন না একদম। ফাউন্ডেশন একটু পুরনো হয়ে গেলেই তা ঘন হতে শুরু করে। এমনটা হলে সেটি হয় বাতিল করুন, নয়তো তার মধ্যে একটু ফেস অয়েল ঢেলে সেটিকে আবার সঠিক ঘনত্বে ফিরিয়ে আনুন। এর পর হাতে কিংবা গলায় একটু লাগিয়ে দেখে নিন ভাল ভাবে মিশে যাচ্ছে কিনা, তারপরই সেটি আবার মুখে লাগাবেন।

৪। আমরা অনেকেই ভাবি, ফেস পাউডার হল খুঁত ঢাকার আরও একটি হাতিয়ার। কিন্তু ব্যাপারটা মোটেও সেরকম নয়। ফেস পাউডার হল সবকিছুকে একত্রিত করে ফিনিশিং টাচ দেওয়ার একটি উপকরণ মাত্র। সেটি থুপে-থুপে লাগালে আর কিছু হোক না হোক আপনাকে রানু মণ্ডলের মেকওভারের পরের ছবিটির মতো লাগবে! তাই একেবারে হালকা হাতে ট্রান্সলুসেন্ট পাউডার লাগাবেন। নইলে কেক ফেস (how to avoid cake face with proper makeup tricks) অবধারিত!

৫। আপনার ত্বক যদি শুষ্ক হয়, আপনি যদি মেকআপে বসার আগে মুখে ভাল করে ময়শ্চারাইজার না লাগান, শুষ্ক ত্বকে যদি অয়েল বেসড মেকআপ প্রোডাক্ট ব্যবহার না করেন, তা হলে শত পটু হাতে মেকআপ করলেও, কিছুক্ষণের মধ্যেই তা কেক ফেস-এ রূপান্তরিত হতে বাধ্য। তাই রূপ বিশেষজ্ঞরা বলেন যে, মেকআপের আগে ভাল করে জল খান, ত্বককে ময়শ্চাকাইজ করুন এবং তারপরেই মেকআপে হাত দিন।

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!