Advertisement

টাকা পয়সা

লকডাউনের জেরে অনেকেরই পে-কাট হচ্ছে, জেনে নিন কীভাবে বাড়তি খরচ কমাবেন

Debapriya BhattacharyyaDebapriya Bhattacharyya  |  Apr 23, 2020
লকডাউনের জেরে অনেকেরই পে-কাট হচ্ছে, জেনে নিন কীভাবে বাড়তি খরচ কমাবেন

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ (coronavirus) করতে গিয়ে যে লকডাউন (lockdown) সারা দেশে জারি করা হয়েছে এবং তা ক্রমাগত বিলম্বিত হচ্ছে, এর ফলে সারা বিশ্বে তো আর্থিক মন্দা দেখা দিচ্ছেই, সঙ্গে এই সমস্যার কোপ পড়ছে সাধারণ মানুষের উপর। আপনি দু-তিন মাস আগেও যে পরিমাণে রোজগার করতেন, এখন ছবিটা সম্পূর্ণ বদলে গিয়েছে। যারা চাকরি করেন তাঁদের অনেকেরই একটা বড় সমস্যা দেখা দিয়েছে। পে-কাট (pay cut)। অর্থাৎ আগে যা মাইনে পেতেন তার থেকে বেশ কিছুটা অংশ কম পাবেন। এক এক জনের পে-কাট এক এক রকমের হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে প্রত্যেকেই পড়েছেন মহা সমস্যায়। কীভাবে এই অর্থনৈতিক সংকটের মোকাবিলা করা যায়! আমরা কিছু টিপস দেওয়ার চেষ্টা করলাম, দেখুন যদি আপনার কোনও কাজে লাগে।

১। মনে রাখুন, আগে যেভাবে খরচ করতেন, এখন কিন্তু সেভাবে খরচ করা যাবে না। কিন্তু খরচ কমাও বললেই কি কমানো যায়? এই প্রশ্নটা যদি আপনার মাথায় আসে, তাহলে আমাদের উত্তর , হ্যাঁ, কিছু কিছু খরচ কমানো বা বাদ দেওয়া যায় বৈকি! আপনার সংসার খরচের নিশ্চয়ই একটা বাজেট আছে? সেখান থেকে দেখুন কোন কোন খাতে আপনি খরচ কমাতে পারেন। আমাদের অনেকের বাড়িতেই মাসে অনেক বাড়তি খাবার আসে, সেগুলো বন্ধ করুন। যতটা প্রয়োজন তার থেকে বেশি এই মুহূর্তে কিছু খরচ না করলেই ভাল।

২। আপনার সংসার চালাতে মাসে কতটা জিনিস প্রয়োজন, নিশ্চয়ই তা জানেন! আগে না জানলেও এই লকডাউন পরিস্থিতিতে নিশ্চয়ই বুঝে গিয়েছেন যে ঠিক কী কী না কিনলেও আপনার সংসার চলে যায়। কাজেই অতিরিক্ত যে জিনিসপত্র আপনি কিনে বোঝাই করে রাখতেন, সেগুলো কেনা বন্ধ করুন। দেখবেন খরচ বেশ অনেকটাই বাঁচবে।

৩। আপনি যদি অনলাইনে মুদিখানার জিনিস কিনে থাকতেন আগে, এখন তার বিকল্প খুঁজে নিন। আপনার পাড়ার মুদির দোকানে হয়তো আপনি বেশ কিছুটা কম খরচেই বাজার করতে পারবেন। ঠিক একইভাবে অনলাইন অ্যাপ বা সুপারমার্কেটের তুলনায় পাড়ার সব্জি বিক্রেতার কাছে কিছুটা সস্তায় সব্জি বা ফল পেয়ে যাবেন। এতে দুটো ভাল ব্যাপার হবে – এক, আপনার খরচ বাঁচবে; দুই, পাড়ার মুদি বা সব্জি বিক্রেতারও কিছুটা আয় হবে।

survival hacks in pay cut

পে-কাট হয়েছে, কিন্তু খরচ কমাবেন কীভাবে (ছবি – শাটারস্টক)

৪। অনেকেই অনেক রকম নেশা করেন। তবে এই মুহূর্তে কোনওরকম নেশার জিনিসই পাওয়া যাচ্ছে না; তবুও আপনি কিন্তু ধুমপান বা মদ্যপান না করে খুব একটা সমস্যায় নেই। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে ফেলুন নেশা ছাড়ার জন্য। হিসেব করে দেখতে পারেন, কতটাকা আপনি সঞ্চয় করতে পারেন!

৫। আমাদের অনেকের বাড়িতেই বাইরে থেকে খাবার আসে। সেসব এখন বন্ধ করে নিজেই রান্নার দায়িত্ব নিন। পাঁচ পদের বদলে এক-দুই পদ রাঁধুন। এতে সমস্য এবং খরচ দুই-ই বাঁচবে। পে-কাট হলে খরচ তো কিছু কমাতেই হবে!

৬। অনেকেই নিজের কর্মক্ষেত্রে গাড়ি করে যাতায়াত করেন। লকডাউন শেষ হলে আবার আপনি অফিসে যাবেন। সেক্ষেত্রে আমরা বলছি না পাবলিক ট্রান্সপোর্টে অফিসে যাতায়াত করুন, কিন্তু অন্য কলিগদের সঙ্গে কার পুল করতে পারেন। এতে আপনার ও তাঁর খরচ যেমন বাঁচবে, তেমনই পরিবেশ দূষণ ও যানজটও কমবে।

৭। বিদ্যুতের বিলে কিন্তু আমাদের মাসে বেশ বড় একটা অংশ খরচ হয়। যেহেতু এখন গরমকাল পড়ে গিয়েছে, অনেকেই এসি ছাড়া থাকতে পারছেন না। না, আমরা একবারের জন্যও বলছি না এসি বা পাখা বন্ধ করে গরমে পচে যান; তবে এসিতে টাইমার লাগিয়ে রাখুন। ঘরের তাপমাত্রা বেশ কমে গেলে এসি বন্ধ করে পাখা চালিয়ে নিন। দিনের বেলা আলো জ্বালিয়ে রাখবেন না। খালি ঘরে পাখা চালিয়ে রেখে দেবেন না।

এরকম ছোট ছোট বিষয় মাথায় রাখলে তবেই আপনি পে-কাট হলেও বেশ কিছুটা খরচ কমাতে পারবেন।

https://bangla.popxo.com/article/7-practical-money-saving-tips-for-month-end-in-bengali

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!