Advertisement

ওয়েলনেস

করোনা আতঙ্কের মধ্যে বাড়ির প্রবীণ নাগরিকদের কীভাবে ভাল রাখবেন?

Swaralipi BhattacharyyaSwaralipi Bhattacharyya  |  Mar 31, 2020
করোনা আতঙ্কের মধ্যে বাড়ির প্রবীণ নাগরিকদের কীভাবে ভাল রাখবেন?

Advertisement

করোনা (coronavirus) আতঙ্কে এই মুহূর্তে গৃহবন্দি সকলেই। সারা দেশে চলছে লকডাউন। প্রথম থেকেই চিকিৎসকরা বার বার বলেছেন, যাঁদের ইমিউনিটি কম, তাঁদের এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা বেশি। সুতরাং সিনিয়ন সিটিজেন, অর্থাৎ বাড়ির বয়স্ক এবং শিশুদের এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। শিশুদের যেমন বাড়িতে সাবধানে রাখা জরুরি, তেমন আলাদা যত্ন দরকার বয়স্কদেরও। কীভাবে বাড়ির বয়স্কদের যত্ন নেবেন? চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী আমরা আলোচনার চেষ্টা করলাম। 

১) প্রবীণ নাগরিকদের (senior citizens) মধ্য়ে যাঁরা বিশেষ করে দীর্ঘ দিন ধরে ডায়াবিটিস, হাঁপানি, নানা ধরনের হৃদরোগে বা কিডনির অসুখে ভুগছেন তাঁদের ক্ষেত্রে করোনা সংক্রমণের সম্ভাবনা অন্যদের চেয়ে অনেক বেশি। তাঁদের দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অন্য প্রবীণ নাগরিকদের চেয়ে কম বলে। তাই তাঁদের আলাদা যত্নের প্রয়োজন।

২) প্রবীণ নাগরিকদের বাড়ি থেকে বেরনো সম্ভব হলে বন্ধ করে দিন। একান্তই বেরতে হলে মাস্ক পরতে হবে। চিকিৎসকদের পরামর্শ মতো হাত ধুতে হবে বার বার।

৩) কোনও ওষুধ খেতে ভুলে গেলে চলবে না। কারণ করোনা ছাড়া অন্য কোনও কারণে তাঁরা যাতে অসুস্থ হয়ে না পরেন, সেদিকেও নজর দিতে হবে।

৪) প্রচুর পরিমাণে জল এবং হালকা খাবার খেতে হবে প্রবীণ নাগরিকদের। যাতে সহজে হজম হয়। এতে ইমিউনিটি বাড়বে।

 

View this post on Instagram

#Repost @sussexroyal ・・・ Around the world, the response from people in every walk of life, to protect and look out for their communities has been inspiring. None more so than the brave and dedicated #healthworkers on the frontline, risking their own well-being to care for the sick and fight #COVID19. Wherever you are in the world, we are all incredibly grateful. For all of us, the best way we can support health workers is to make sure we do not make their job any harder by spreading this disease further. No matter where you are, the @WHO have shared some guidelines that can help. You may have seen or heard these before, but they are as important today as ever. Please click our link in bio for more information from @WHO

A post shared by World Health Organization (@who) on Mar 26, 2020 at 3:49pm PDT

৫) বাড়ির প্রবীণ নাগরিকদের সঙ্গে সময় কাটান। তাঁদের একলা হতে দেবেন না। তাতে দুশ্চিন্তা আরও বাড়বে। নানা রকম গল্প করে তাঁদের ব্যস্ত রাখুন। মন ভাল রাখাটাও ইমিউনিটি বাড়ার অন্যতম শর্ত।

৬) হালকা যোগাভ্যাস বা ব্যায়াম বাড়িতেই করুন। এতে শরীর চাঙ্গা থাকবে। কোনও কারণে অসুস্থ বোধ করলে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কোনও ওষুধ খাবেন না।

৭) করোনা সংক্রান্ত খবর প্রবীণ নাগরিকদের দিনভর দেখা থেকে বিরত রাখুন। কারণ যত নেগেটিভ খবর দেখছেন তাঁরা, তাঁদের মধ্যে ভয় বাড়ছে। ফলে সব খবর এই সময়টা নাই বা দেখতে দিলেন।

৮) প্রবীণ নাগরিকদের যদি কোনও পুরনো শখ থাকে, তাহলে তা আবার নতুন করে শুরু করতে বলুন। ছবি আঁকা, গান গাওয়া, রান্নার মতো অনেক কিছুই হয়তো বয়সের ভারে এখন আর করতে পারেন না তাঁরা। সে সব অভ্যেস আবার চালু করতে বলুন। সঙ্গে থাকুন আপনিও।

৯) ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রবীণ নাগরিকদের মধ্যে অনেকেই আতঙ্কিত হয়ে পড়ছেন। সে সব আতঙ্ক যেন গ্রাস না করে, সে দিকে খেয়াল রাখুন।

১০) যে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি চলছে, তাতে প্রবীণ নাগরিকদের হাত ধরেই আমরা জয় করব, সেই আশ্বাস তাঁদের দিন। আমাদের ভাল থাকার জন্যই প্রবীণ নাগরিকদের শারীরিক এবং মানসিক ভাবে সুস্থ থাকা দরকার, বোঝান তাঁদের। 

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!