Advertisement

গান বাজনা ও মনোরঞ্জন

‘টুম্পা’-র চোখগুলো সাদা কেন, জানতে হলে দেখতে হবে ‘রেস্ট ইন প্রেম’

Debapriya BhattacharyyaDebapriya Bhattacharyya  |  Nov 13, 2020
'টুম্পা'-র চোখগুলো সাদা কেন, জানতে হলে দেখতে হবে 'রেস্ট ইন প্রেম' in benagli

আচ্ছা, আপনি গান শুনতে ভালবাসেন? এ আবার কেমন ধারা প্রশ্ন বাপু? গান শুনতে কে না ভালবাসে? হ্যাঁ, প্রত্যেকটি মানুষই গান শুনতে পছন্দ করেন, তবে এক এক জনের পছন্দ এক এক রকমের হয়। কারও পছন্দ রোম্যান্টিক গান, কেউ আবার মেটালিক শুনতে পছন্দ করেন, আবার কেউ পছন্দ করেন হার্ড রক বা র‍্যাপ। তবে কালে ভদ্রে এমন কিছু গান তৈরি হয়, যেগুলো আমজনতার সিংহভাগই পছন্দ করেন। না, এই গান গুলোর কোনও নির্দিষ্ট ধারা হয় না, তবে হ্যাঁ, এই ধরণের গানগুলোরও নামকরণ হয়েছে, এদের বলা হয় ‘আইটেম সং’ ((in conversation with team rest in prem and tumpa)। এরকম গানের সঙ্গে নাচ হবে, ভাসানে বা বিশ্বকর্মা পুজোয় কিংবা শীতকালীন পাড়া পিকনিকে!

রেস্ট ইন প্রেমের ‘টুম্পা’ সঙের দৃশ্য (ছবি – ইনস্টাগ্রাম)

বলিউডে এরকম আইটেম সং ঝুরি ঝুরি থাকলেও, আমাদের বাংলা সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে এমন গানের সংখ্যা হাতে গোনা। তবে তার মধ্যেই একটি গান সম্প্রতি খুব জনপ্রিয় হয়েছে। গানটি ‘রেস্ট ইন প্রেম’ নামে একটি ওয়েব সিরিজের, নাম ‘টুম্পা’ (in conversation with team rest in prem and tumpa)! পুজোর আগেই এই গানটি মুক্তি পায় অনলাইন একটি স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মে, এবং তার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমত ভাইরাল হয়ে যায়। আট থেকে আশি সব্বাই একবার হলেও নেচেছেন ‘টুম্পা’-র সঙ্গে।

POPxo বাংলার টিম আড্ডা দিল ‘রেস্ট ইন প্রেম’-এর আর্ট ডিরেকটর দীপান্বিতা রায়ের সঙ্গে। ওয়েব সিরিজ নিয়ে তো কথা হলই, সঙ্গে অনেক কথা হল ‘টুম্পা’-কে নিয়ে!

‘টুম্পা’ – এই গানটি মুক্তি পাওয়ার এক মাসের মধ্যেই নয় মিলিয়ন ভিউ পেয়েছে। ঠিক কী ভেবে এই গানটি তৈরি করেছিলে?

আসলে এই গানটা লেখা হয়েছিল প্রায় তিন বছর আগে। আর বছর দুয়েক আগে কমপোজ করা হয়। এর একটা ব্যাকস্টোরি আছে। আসলে ‘টুম্পা’ ((in conversation with team rest in prem and tumpa) গানটা আমরা তৈরি করেছিলাম অন্য একটা ছবির জন্য, কিন্তু তখন ওই ছবিতে এই গানটা ব্যবহার করা হয়নি। এরপর যখন রেস্ট ইন প্রেমের শুটিং শেষ হল, তখন দেখলাম এই ওয়েব সিরিজটার প্রমোশনাল সং হিসেবে এই গানটা অনায়াসে ব্যবহার করা যায়। তারপর তো জনগন বেশ ভালই পছন্দ করছে দেখছি!

পজিটিভ রেসপন্স যেমন পেয়েছ, তেমন কোনও নেগেটিভ কমেন্ট বা রেসপন্স পেয়েছ কি?

দেখো, একটা কাজ হলে তার যেমন প্রশংসা হবে, তেমন কিছু মানুষ সেই কাজ যে পছন্দ করবে না, তা তো জানা কথা। কিন্তু পজিটিভ রেসপন্সটা এত বেশি, যে নেগেটিভ রেসপন্সের দিকে সেভাবে চোখ যায় না। আসলে আমরা নিজেরাও ভাবিনি যে এত তাড়াতাড়ি গানটা এত জনপ্রিয় হবে।  আসলে ‘টুম্পা’-র যে লিরিসিস্ট আরভ, ও খুব ভাল লেখে। এই গানটাও ও-ই গেয়েছে। যখন আমাদের ও এই গানটা শুনিয়েছিল, তখনই খুব ক্যাচি লেগেছিল, তারপর আমরা সবাই ডিশিসন নিই যে রেস্ট ইন প্রেমে ((in conversation with team rest in prem and tumpa) গানটা ব্যবহার করা যায়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় একটা প্রশ্ন তো বারবার ঘুরছে দেখছি, গানের ভিডিওতে ‘টুম্পা’-র চোখগুলো অমন সাদা কেন? এটা আমাদেরও জানতে আগ্রহ হচ্ছে।

প্রশ্নের উত্তর পেতে হলে কিন্তু ওয়েব সিরিজটি দেখতে হবে। অবশ্য যারা ট্রেলর দেখে ফেলেছেন তাঁরা হয়ত কিছুটা ধরে ফেলছেন

এটা তো একটা ইনডিপেন্ডেন্ট ওয়েব সিরিজ, কাজের অভিজ্ঞতা একটু শেয়ার করবে?

ইনডিপেন্ডেন্ট ওয়েব সিরিজ তৈরি করা যে ঠিক কতটা চ্যালেঞ্জিং, তা যারা না করেছেন, বুঝতে পারবেন না। আমরা নিজেরাই যখন যে পেরেছি তা দিয়ে ওয়েব সিরিজটি তৈরি করেছি। রেস্ট ইন প্রেমের পরিচালক অরিজিৎ সরকার ফিল্ম স্টাডিজের স্টুডেন্ট। ওর বরাবরই ইচ্ছে ছিল ছবি করবে। ওর স্টুডেন্ট প্রোজেক্ট যখন একটি বিখ্যাত ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে পুরস্কৃত হয়, তখন ইউটিউবে ‘কনফিউজড প্রোডাকশন’-এর জন্ম হয়। তার পরে আমরা কিছু মিউজিক ভিডিও তৈরি করেছি। রেস্ট ইন প্রেম ((in conversation with team rest in prem and tumpa) তৈরি করার জন্য আমাদের বেশ অনেকটা সাহায্য করেছে আর জে সায়ন আর টিটো দা। সবার যদি ভাল লাগে, তাহলেই আমাদের পরিশ্রম সার্থক।

যেহেতু এটা একটা আইটেম সঙ আর সম্প্রতি একজন প্রথিথজশা মানুষ সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছিলেন যে অডিয়েন্সের মধ্যে তফাৎ আছে। সে ব্যাপারে কিছু বলবে?

কেউ যদি নিজেই নিজের অডিয়েন্সের গন্ডি ছোট করে ফেলতে চান, সেখানে আমাদের মত নিউ কামার-রা কীই বা বলতে পারে!

সামনে কী কী কাজ রয়েছে?

এই মুহূর্তে এই ওয়েব সিরিজটি নিয়েই ব্যস্ত। সামনে যেমন যেমন কাজ আসবে, বা মাথায় আইডিয়া ক্লিক করবে, সেভাবেই প্ল্যান করব।

https://bangla.popxo.com/article/highly-acclaimed-transgender-movies-apart-from-akshay-kumar-laxmii-in-bengali-917472

,উল ছবি সৌজন্য – ইউটিউব

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!