home / লাইফস্টাইল
প্রেগন্যান্সিতে সুরক্ষিত সেক্স কীভাবে সম্ভব ?

প্রেগন্যান্সিতে সুরক্ষিত সেক্স কীভাবে সম্ভব ?

গর্ভে প্রাণের অস্বিস্ত অনুভব করলেই এক লহমায় বদলে যায় মেয়েদের জীবন। মা হওয়া জীবনের সেরা অনুভূতি। এমনটাই বলেন মায়েরা। প্রেগন্যান্ট হলেই মেয়েদের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রচুর প্রশ্ন তৈরি হয়। কারণ সন্তানের ভালর জন্য তাঁরা সব কিছু করতে চান।অন্তত প্রথমবার এই অভিজ্ঞতার সময় চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াও নিজেরাও বিভিন্ন সোর্স থেকে প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে থাকে। আর এর মধ্যে অন্যতম প্রশ্ন হল সেক্স, অর্থাৎ যৌনতা। দীর্ঘ ন’মাস সন্তানকে গর্ভে ধারণ করার সময় আদৌ কি সেক্স করা উচিত? এতে সন্তানের কোনও ক্ষতি হবে না তো? কোন কোন পজিশন ট্রাই করলে সন্তান সুরক্ষিত থাকবে, এ হেন নানা প্রশ্ন থাকে হবু মায়েদের মনে। প্রাথমিক ভাবে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নেওয়াই উচিত। কারণ আপনার শরীরের অবস্থা বুঝে তিনি পরামর্শ দিতে পারবেন। কিন্তু এ কথা চিকিৎসকরাই জানিয়েছেন, প্রেগন্যান্সি (Pregnancy) পিরিয়ডে সেক্স (Sex) সুরক্ষিত একটি বিষয়। এ নিয়ে অযথা চিন্তা করে লাভ নেই। বরং ছোট ছোট কিছু বিষয় মনে রাখা জরুরি। আমরা সে সব নিয়ে আলোচনার চেষ্টা করলাম।  

 

১) গর্ভস্থ সন্তান সুরক্ষিত কি?

অনেকেই হয়তো ভাবেন, প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে সেক্স করলে গর্ভস্থ সন্তানের আঘাত লাগতে পারে। কিন্তু এই ধারণা সম্পূর্ণ ভুল। সন্তান ফ্লুয়িডের ভিতর সুরক্ষিত থাকে। তাই যৌন মিলনে সন্তানের আঘাত লাগার কোনও সম্ভবনা নেই।

২) পজিশন নিয়ে ভাবুন

আপনি এবং আপনার পার্টনার হয়তো নির্দিষ্ট কিছু পজিশনে কমর্ফটেবল। কিন্তু প্রয়োজনে প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে সেই পজিশন বদলাতে হবে। আপনার শারীরিক পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে বদলে ফেলতে হবে সেক্স পজিশনও। কারণ প্রেগন্যান্ট মহিলাদের কোমর পা পিঠে ব্যথা হওয়াটা খুব সাধারণ বিষয়। সেই পরিবর্তনের সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে পজিশন ট্রাই করলে তবেই মিলনে আনন্দ পাবেন।

৩) শারীরিক পরিশ্রম

সেক্স করলে ওয়েট কমে। এই সাধারণ ধারণা অনেকেরই রয়েছে। অনেকাংশেই ঠিক ধারণা। সত্যিই সেক্স অত্যন্ত উপকারি একটি শারীরিক ব্যায়াম। কিন্তু ওজন কমবে কিনা, তা নির্ভর করে আপনি কতক্ষণ ধরে এবং কীভাবে এই ক্রিয়ায় অংশ নিচ্ছেন, তার উপর। তবে নিঃসন্দেহে এটি গুরুত্বপূর্ণ এক্সসারসাইজ। চিকিৎসকদের একটা বড় অংশ প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডেও এই এক্সসারসাইজ চালিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন। কারণ শারীরিক পরিশ্রম হলে হবু মায়ের ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকবে। গর্ভস্থ শিশু ভাল থাকবে। সবথেকে বড় কথা শরীর সচল থাকলে ডেলিভারির জন্য নিজেকে একটু একটু করে তৈরি করে নেওয়া সম্ভব।

৪) মাল্টিপল প্রেগন্যান্সি

বহু ক্ষেত্রে যমজ সন্তানের জন্ম হয়। আবার কখনও একসঙ্গে তিন বা তার অধিক সন্তানের জন্মের নজিরও রয়েছে। সে সব ক্ষেত্রে প্রেগন্যান্সি পিরিয়ডে সেক্স লাইফ নিয়ে মহিলাদের কিছু সমস্যা আসতে পারে। তবে তা নেহাতই ব্যতিক্রম। যে কোনও পরিস্থিতিতে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন। গর্ভে একটি ভ্রুণ থাকাকালীনও যদি সেক্সে কোনও ব্যথা বা সমস্যা অনুভব করেন, অবিলম্বে চিকিৎকের পরামর্শ নিন। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!

19 Feb 2020

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text