Advertisement

লাইফস্টাইল

এবারে তো লকডাউন, জামাই ষষ্ঠী কীভাবে সেলিব্রেট করবেন? আর মেনুই বা কী হবে!

Debapriya BhattacharyyaDebapriya Bhattacharyya  |  Jun 15, 2021
এবারে তো লকডাউন, জামাই ষষ্ঠী কীভাবে সেলিব্রেট করবেন? আর মেনুই বা কী হবে!

জামাই ষষ্ঠী মানে পাত পেড়ে খাওয়া। আর বাঙালি জামাই যেখানে খাদ্যরসিক, সেখানে শাশুড়ি মায়েরা পঞ্চব্যঞ্জনের আয়োজন করবেন না, তা কখনও হয়! এদিন মূলত দুপুরেই ভুরিভোজের (jamai sasthi menu and tips to celebrate in lockdown) আয়োজন করা হয়। শুরুতে গরম ভাতে ঘি। সঙ্গে দু’-চার রকম ভাজাভুজি। পরে আসে ডাল। তবে জামাইরা বুদ্ধিমান। এই সব খায় কম। কেন? আরে এর পরে যে আসবে বাঘা-বাঘা সব পদ। তাতে থাকতে পারে ইলিশের পাতুরি, গলদা চিংড়ির মালাইকারি। দই-রুই, ভেটকি মাছের ফ্রাই ইত্যাদি ইত্যাদি। আরে দাঁড়ান, চললেন কোথায়! এখনও শেষ হয়নি খাওয়া। এত সবের পরেও জামাই বাবাজির পেটের কোণে ছোট্ট একটা কম্পার্টমেন্ট থাকে মিষ্টির জন্য। তাই শেষ পাতে মিষ্টি থাকাটা মাস্ট! সঙ্গে দই। এর পরেও যদি পেটে জায়গা থাকে, তা হলে আম-কাঁঠাল-লিচু তো রয়েছেই। তবে মেনু প্ল্যান করার আগে (jamai sasthi menu and tips to celebrate in lockdown) জামাইয়ের পছন্দ-অপছন্দই শুধু নয়, মনে রাখবেন মেয়ের কথাও! দুজনের পছন্দ এমন পদই পরিবেশন করুন এদিন!

আজকাল এত সব পদ একার হাতে রান্না করাটা বেশ কঠিন ব্যাপার। তাই তো অনেকেই জামাইকে বগলদাবা করে ভিড় জমান নানা রেস্তরাঁয়। সেখানে জামাই ষষ্ঠী উপলক্ষে পরিবেশিত হয় খাস বাঙালি সব খাবারদাবার। তাতে শাশুড়ি মায়ের হাতের ছোঁওয়া থাকে না ঠিকই, কিন্তু খাওয়াটা মন্দ হয় না!

এই বছরটা অবশ্য অন্য রকম। লকডাউন চলছে। যদিও কিছু কিছু ছাড় রয়েছে। নির্দিষ্ট সময় ধরে রেস্তরাঁ খোলা থাকলেও অনেকেই ভয় পাচ্ছেন বাইরে গিয়ে খাওয়া দাওয়া করতে। সত্যিই তো করোনার থাবা ঘাড়ে পরুক, তা কে-ই বা চায়। বাড়িতে রান্নার সমস্যা থাকলে আগে থেকেই পরিচিত হোম ডেলিভারিতে বুক করে ফেলতে পারেন জামাই ষষ্ঠীর (jamai sasthi menu and tips to celebrate in lockdown) লাঞ্চটা। যে রেস্তরাঁয় মেয়ে-জামাইকে নিয়ে ভুরিভোজ করতে যাবেন ভেবেছিলেন, তাঁদেরও একবার ফোন করে খোঁজ নিতে পারেন যে তাঁরা হোম ডেলিভারির কোনও ব্যবস্থা রাখছেন কি না। এই সময়ে অনেক ছোট-বড় রেস্তরাঁই কিন্তু বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা রাখছে।

অনেক রেস্তোরাঁ জামাই ষষ্ঠী স্পেশ্যাল মেনুও করছে। নানা থালি রয়েছে। নিরামিষ থেকে আমিষ – সব পাবেন। আবার অনেকেই কাস্টমাইজড মেনু অনুযায়ীও খাবার পৌঁছে দিচ্ছে। হতেই পারে আপনার জামাই এবং মেয়ে খুব বেশি খেতে পারেন না, কাজেই এক গাদা খাবার এনে নষ্ট করার থেকে ওঁদের পছন্দ অনুযায়ী কিছু পদ অর্ডার করুন। এতে তিনটে সুবিধে – খাবার নষ্ট হবে না, আপনার টাকাও কম খরচ হবে আর সকলে খেয়েও তৃপ্তি পাবেন।

আচ্ছা, ভাবছেন মেয়ে-জামাই অনেক দূরে থাকে, সেক্ষেত্রে কীভাবে জামাই ষষ্ঠী (jamai sasthi menu and tips to celebrate in lockdown) পালন করবেন! এই ছোট্ট বিষয়টা নিয়ে এই ডিজিটাল যুগে কেউ এত চাপ নেয়? আপনাদের পছন্দের রেস্তরাঁ থেকে মেয়ে-জামাইয়ের জন্য তাঁদের পছন্দের পদ অর্ডার করে অ্যাপের সাহায্যে পাঠিয়ে দিন। মেয়েকে বলে রাখুন খাবার পাঠানোর ব্যাপারে। খেতে বসার আগে ভিডিও কলেই সেরে ফেলুন জামাই ষষ্ঠী।

মূল ছবি সৌজন্য: ইনস্টাগ্রাম

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!      

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!