home / ওয়েলনেস
মেনস্ট্রুয়াল কাপ নিয়ে যেসব ভুল ধারণা আমাদের মধ্য়ে প্রচলিত রয়েছে

মেনস্ট্রুয়াল কাপ নিয়ে যেসব ভুল ধারণা আমাদের মধ্য়ে প্রচলিত রয়েছে

যাঁরা একবার মেনস্ট্রুয়াল কাপ ব্যবহার করেছেন, তাঁরা হাসি মুখে তাঁদের পিরিয়ডের দিনগুলো কাটিয়েছেন। আর বলেছেন, তাঁরা কোনওভাবেই স্যানিটারি ন্যাপকিনে ফিরে যেতে রাজি নন। এইদিকে চিকিৎসকরাও বার বার এই মেনস্ট্রুয়াল কাপ ব্যবহারের (use menstrual cup) পরামর্শ দিচ্ছেন। কিন্তু এখনও অনেকেই মেনস্ট্রুয়াল কাপ ব্যবহার করতে রাজি নন। গ্রামের প্রসঙ্গ বাদই দিচ্ছি। শহরের শিক্ষিত বর্তমান প্রজন্মও অনেক সময় মেনস্ট্রুয়াল কাপ ব্যবহার করতে চাইছেন না। কারণ মেনস্ট্রুয়াল কাপ নিয়ে বেশ কিছু মিথ বা ভুল ধারণা সবার মধ্য়ে রয়েছে। আসুন আজ মেনস্ট্রুয়াল কাপ প্রসঙ্গে ভুল ধারণাগুলি (menstrual cup myths) ভেঙে ফেলি। আগে নিশ্চিত হই মেনস্ট্রুয়াল কাপ কী?

আপনি ব্যবহার করেন?

মেনস্ট্রুয়াল কাপ কী?

মেনস্ট্রুয়াল কাপ (use menstrual cup) হল মেডিক্যাল গ্রেড সিলিকনের তৈরি একটি কাপ। যাকে যোনির ভিতর প্রবেশ করিয়ে দিতে হয়। পিরিয়ডের সময় রক্ত ধরে রাখে এই কাপ। এবং চিকিৎসকদের মতে, স্যানিটারি ন্যাপকিন, ট্যাম্পোন এইসবের থেকে হাজার গুণে ভাল এই কাপ। যা যে কোনও রকম পিরিয়ড সংক্রমণ আটকায়। যোনিদেশ সুস্থ রাখে। পিরিয়ডের দিনগুলোও অনেক সহজ করে দেয়। ঋতুমতী যে কোনও মেয়েই মেনস্ট্রুয়াল কাপ ব্যবহার (use menstrual cup) করতে পারেন। যে কোনও বয়সের মেয়েরাই এই কাপ ব্যবহার করতে পারেন। এই কাপ ব্যবহার করলে যেমন কোনও লিকেজের আশঙ্কা নেই, একইভাবে কোনও রকম ইনফেকশনেরও সম্ভাবনা নেই।

মেনস্ট্রুয়াল কাপ নিয়ে প্রচলিত মিথ (menstrual cup myths)

মিথ ১ : মেনস্ট্রুয়াল কাপ পরা যন্ত্রণাদায়ক – এর থেকে বড় ভুল ধারণা আর কিছু নেই। কারণ, মেনস্ট্রুয়াল কাপ যোনির ভিতর ঢুকে যাওয়ার পর আপনি বুঝতেও পারবেন না আপনার যোনির ভিতর কিছু রয়েছে (menstrual cup myths) । কোনও যন্ত্রণাও হবে না।

মিথ ২ : মেনস্ট্রুয়াল কাপ পরে ভার্জিনিটি ব্রেক হয়! (menstrual cup myths) – ভার্জিনিটি বা সতীত্ব? প্রথম কথা, হাইমেন নিয়ে প্রচলিত ভুল ধারণা মেয়েদের যৌনতাকে নিয়ন্ত্রণ করতে চায়। আপনার যোনির একটি অংশ হাইমেন। তার সঙ্গে আপনার যৌন জীবন বা সতীত্বের কোনও সম্পর্ক নেই। হাইমেন কোনও পর্দা নয়। বলতে পারেন, একটি রাবার ব্যান্ডের মতো অংশ। প্রতি মেয়ের শরীরে হাইমেন অন্যরকম হতে পারে। যৌন সম্পর্ক ছাড়াও অন্য কোনও কাজ যেমন, সাঁতার, সাইকেল চালানো, ব্যায়ামের জন্য়েও হাইমেন প্রসারিত হতে পারে। তাই মেনস্ট্রুয়াল কাপের সঙ্গে হাইমেনের বা ভার্জিনিটির কোনও সম্পর্ক নেই।

মিথ ৩ : মেনস্ট্রুয়াল কাপের একটি সাইজই সবার জন্য – না এই ধারণা ভুল। বয়সের সঙ্গে সঙ্গে আপনার যোনিদেশের আকার ও গঠনের বদল হয়। যৌন সঙ্গম হলে এবং প্রাকৃতিকভাবে সন্তান প্রসব করলে যোনি পথ প্রসারিত হয় (menstrual cup myths) । তাই বয়সের সঙ্গে সঙ্গে আপনাকে ভিন্ন আকারের মেনস্ট্রুয়াল কাপ ব্যবহার করতে হতে পারে। স্মল, মিডিয়াম ও লার্জ সাইজের মেনস্ট্রুয়াল কাপ পাওয়া যায়। কেনার আগে দেখে নিন।

মিথ ৪ : রক্ত ওইটুকু কাপে কি ধরবে? (menstrual cup myths) – আপনি কি জানেন, আপনার পিরিয়ডে ঠিক কতটা রক্তক্ষরণ হয়?গবেষণায় দেখা গিয়েছে, পিরিয়ডে সর্বমোট ৩০ থেকে ৪০ মিলি রক্তক্ষরণ হয়। যা দুই থেকে তিন টেবিলচামচের সমান। কিন্তু আরও কয়েকটি গবেষণার দাবী, এই পরিমাণটি ৬০ মিলি-এর কাছাকাছিও হতে পারে। অর্থাৎ ৪ টেবিল চামচ। প্রতিদিন তার মানে কত পরিমাণ রক্তক্ষরণ হয় আপনি বুঝতেই পারছেন। একটি মেনস্ট্রুয়াল কাপ ২০ মিলি পর্যন্ত রক্ত ধরতে পারে। কিন্তু কারও কারও রক্ত ক্ষরণ বেশিও হয়। তাদের ক্ষেত্রে পরিমাণটি একটু এধার ওধার হতে পারে। খুব ভাল হয় যদি প্রতি চার ঘণ্টায় আপনি কাপের রক্ত ফেলে দিয়ে ধুয়ে নিতে পারেন। তবে ৮ ঘণ্টার বেশি কাপ ভিতরে রাখবেন না।

কীভাবে ব্যবহার করবেন

মেনস্ট্রুয়াল কাপ এক একটি বয়স সীমার জন্য এক এক রকম মাপের আসে। তাই কেনার আগে অবশ্যই আপনার বয়স অনুযায়ী সেই মাপের কাপ কিনবেন। না হলে সেই কাপ আপনার ছোট বা বড় হতে পারে। মেনস্ট্রুয়াল কাপ ঢোকানোর জন্য বিভিন্ন ফোল্ড করা যায়। আপনি সি-এর মতো কাপটি মুরিয়ে যোনির ভিতর ঢুকিয়ে দিন। তারপর কাপটি নিজে থেকেই খুলে নিজের জায়গা নিয়ে নেবে। চারপাশে আঙুল দিয়ে দেখে নেবেন কোনও জায়গায় ফাঁক রয়ে গিয়েছে কি না। প্রথম দিকে একটু অসুবিধা হলেও তারপর আপনার বেস্ট ফ্রেন্ড হয়ে উঠবে এই মেনস্ট্রুয়াল কাপ।

20 Sep 2021

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text