home / পেরেন্টিং টিপস
মা-বাবার ডিভোর্স সন্তানের ওপর কেমন প্রভাব ফেলে?

মা-বাবার ডিভোর্স সন্তানের ওপর কেমন প্রভাব ফেলে?

সম্পর্ক শুরু যত মধুর হয় শেষটা ততটাই তিক্ত হয়, বিশেষ করে সেটা যদি দাম্পত্য সম্পর্ক হয়। বিয়ের পর মনোমালিন্যের ফলে ডিভোর্স হওয়া নতুন কিছু নয়। তবে আজ আমরা যেদিকে ফোকাস করব তা হল এই  ডিভোর্সের প্রভাব সন্তানের ওপর কিভাবে পড়ে আর তার ফল কি হয়? (negative effects of divorce on children)

চুপচাপ হয়ে যায়

ছোট থেকে মিশুকে বাচ্চা হঠাৎ চুপচাপ হয়ে যেতে পারে মা-বাবার মধ্যে ঝগড়ার জন্য। নিজেকে গুটিয়ে নিতে পারে বাইরের জগত থেকে পুরোপুরি। 

বন্ধু না পাতানো

খুব ছোটতে যারা ডিভোর্স দেখে সেই বাচ্চারা নতুন বন্ধুদের সাথে মিশতে পারে না। স্কুলে একাই থাকে অনেকে। নিজের কাজ আর পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে যায়। (negative effects of divorce on children)

রাগী হয়ে যায়

মা-বাবার ডিভোর্স সম্পূর্ণ উল্টো প্রভাবও ফেলে কোনও কোনও বাচ্চার মনে। তারা খুব রাগী এবং মেজাজী হয়ে যায়। স্কুলে বন্ধুদের গায়ে হাত তুলতে থাকে কারণ ছাড়া বা জিনিসপত্র ভাঙচুর করতে থাকে।

অবসাদ ঘিরে ধরে

অনেক বাচ্চা অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়ে ভীষণভাবে। তারা বাইরে বেড়োয় না, খেলে না, হাসে না। প্রয়োজন ছাড়া কথাটুকু বলতে চায় না। অনেকের আবার প্যানিক অ্যাটাক এসে যায় ফলে অজ্ঞান হয়ে যায় বা নিঃশ্বাস নিতে পারে না! (negative effects of divorce on children)

সম্পর্ক নষ্ট হয়

একটু বড় যারা তারা নিজেরা কোনও সম্পর্কে থাকলে তা ছেড়ে বেড়িয়ে আসে বা নতুন সম্পর্ক তৈরি করতে ভয় পায়। অচেনা মানুষকে বিশ্বাস করে সব কথা বলতে চায় না, কমিটমেন্ট করতে চায় না সম্পর্কে। সারাজীবন একা থাকার মানসিকতা তৈরি হয়ে যায়।

এর প্রতিকার কী?

  • প্রথম এবং সবথেকে প্রয়োজন যা তা হল সন্তানের সাথে ডিভোর্সের ব্যাপারে খোলাখুলি আলোচনা করা। বাচ্চা ছোট বলে এড়িয়ে যাবেন না, তারা সব বোঝে মনে রাখবেন।
  • সন্তানের সামনে অশান্তি এড়িয়ে চলুন। সেপারেশনের থেকেও এই ঝামেলাকে বাচ্চারা সবথেকে বেশি ভয় পায় ও অপছন্দ করে। অশান্তিহীন ভাবে ডিভোর্স করার চেষ্টা করুন নাহলে বাচ্চার চোখের আড়ালে নিজেদের সমস্যা তুলে ধরুন।
  • আলাদা হয়ে যাওয়ার পরে দুজনেই বাচ্চাকে সময় দিন একসাথে। তাতে বাচ্চা বুঝবে আপনারা তার কথা ভাবেন। মা-বাবার ডিভোর্সে বাচ্চারা নিজেদের ইনসিকিওর ভাবে, সেটা কখনই বুঝতে দেবেন না।
  • নতুন সম্পর্কে জড়ালে সেই মানুষটির সাথে সন্তানের আলাপ করিয়ে দিন। তাদের মধ্যে যেন সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে খেয়াল রাখবেন। আর একটা কথা মনে রাখবেন মা-বাবাকে অন্য কারুর সাথে খুশি দেখলে বাচ্চারা মন থেকে আনন্দ পায় এবং অনেক নিশ্চিন্ত থাকে। তাই নতুন সম্পর্কে জড়াতে দ্বিধাবোধ করবেন না সন্তানের কারণে।

কোনও সম্পর্ক মৃত হয়ে গেলে তাকে নিয়ে চলার থেকে ছেড়ে এগোনো সবসময় ভাল। যেহেতু বাচ্চারা মনের দিক থেকে অপরিণত হয় তাই আপনারা পরিণতভাবে ডিভোর্স এবং প্যারেন্টিংকে সামলালে সেভাবে কোনও সমস্যা হবে না। 

POPxo এখন চারটে ভাষায়!ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও! বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPx আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!o App

13 Jul 2022

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text