বিনোদন

পোষ্যকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ডে, তাই ভারী দুঃখী নিক-প্রিয়ঙ্কা

Parama SenParama Sen  |  Jan 6, 2020
পোষ্যকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি গোল্ডেন গ্লোব অ্যাওয়ার্ডে, তাই ভারী দুঃখী নিক-প্রিয়ঙ্কা

সেলেবরা যে কখন কী করেন, কী ভাবেন, তার তল পাওয়া যায় না। নতুন বছরে অ্যাওয়ার্ডের মরসুম শুরু হতেই তাঁরা আবার যা-তা কাণ্ড করা শুরু করেছেন আর এই তালিকায় প্রথম নামটি আসবে নিক জোনাস (Nick Jonas) এবং প্রিয়ঙ্কা চোপড়া জোনাসের (Priyanka Chopra Jonas)। অবশ্য খবরে কী করে টিকে থাকতে হয়, তা এই দম্পতির কাছ থেকে বাকিরা বসে শিখুক। হাতে ছবি নেই, গলায় গান নেই, তা-ও তাঁরা খবরে। প্রিয়ঙ্কা কুকুর কিনলে খবর, সেই কুকুর হাতে ধরে হিল খটখটিয়ে নিউ ইয়র্কের রাস্তায় হাঁটলে খবর, অবিশ্যি কুকুর আবার বলা যায় না। বললে নাকি তাদের ছোট করা হয়। এরা তো আসলে এঁদের সন্তান-সন্ততির মতো কিনা…

গতকাল হলিউডের অ্যাওয়ার্ড মরসুম শুরু হয়েছে। গোল্ডেন গ্লোব (Golden Globe Awards), যেটিকে প্রায় অস্কারের কার্টেন রেজার বলে ধরা হয়, সেই অ্যাওয়ার্ডে, অন্যদের সঙ্গে হাজির ছিলেন নিক-প্রিয়ঙ্কাও। রেড কার্পেটে হেঁটেছেন, ফ্ল্যাশ বাল্ব দেখে একগাল হেসে পিডিএ করেছেন, পোশাকের বাহারে ফ্যাশন বোদ্ধাদের মাথা ঘুরিয়ে দিয়েছেন, আর তার পাশাপাশি কথা বলেছেন কুকুর, থুড়ি পোষ্যদের নিয়ে। তাঁদের দু’টি পোষ্য। একটি বিয়ের আগে থেকেই প্রিয়ঙ্কার ল্যাংবোট হয়ে ঘুরত, ডায়ানা। অন্যটির নাম জিনো, যাকে প্রথম বিবাহবার্ষিকীতে স্বামীর জন্য উপহার হিসেবে নিয়ে এসে চমকে দিয়েছেন প্রিয়ঙ্কা। আসলে রেড কার্পেটে সাংবাদিকেরা তাঁদের এই সব পোষ্যদের নিয়ে প্রশ্ন করেছিলেন। তা তাঁদেরই বা দোষ দেওয়া যায় কী করে? তাঁরাও তো প্রশ্ন করার একটা টপিক খুঁজে পাবেন, তবে না? তাই বাধ্য হয়ে ইদানীং এই দম্পতি যে বিষয়টি নিয়ে ইনস্টাগ্রামে আদিখ্যেতা করে মরে যাচ্ছেন, সেটি নিয়েই করেছেন।

 

তা তাঁরা ভারী সোহাগ করে উত্তরও দিয়েছেন। নিক নাকি বরাবরই একটা বেশ মোটাসোটা, নাদুসনুদুস গোছের কুকুরছানা পুষবেন বলে ভেবেছিলেন। বিয়ের পর প্রিয়ঙ্কার সঙ্গে শ্বশুরবাড়ি এসেছিল তাঁর নেংটি কুকুর, মানে, ভদ্র ভাষায় যাকে চিহুয়াহুয়া বলে, সেই ডায়ানাও ঢুকে পড়ে নিকের জীবনে। রেড কার্পেটে ভারী গম্ভীর মুখ করে নিক বলেছেন যে, ডায়ানাকে তিনি একরকম বাধ্য হয়ে দত্তক নিলেও, আসলে তিনি পুষতে চেয়েছিলেন মর্দানা টাইপের কুকুর। তাই তাঁর বউ প্রিয়ঙ্কা জার্মান শেপার্ড জিনোকে নিয়ে আসেন তাঁদের পরিবারে। জিনোকে নাকি এক মুহূর্তও কাছছাড়া করেন না নিক। ইন ফ্যাক্ট, জিনো তাঁদের ভালবাসায়ও ভাগ বসিয়েছেন। ডায়ানার চেয়ে জিনোর ইনস্টা ফলোয়ার এবং লাইকস ঢের বেশি। আর তা মোটেও ডায়ানার মা প্রিয়ঙ্কা ভাল চোখে নাকি দেখেন না! তাঁরা নাকি গোল্ডেন গ্লোবেও দুই ছানাকে নিয়ে আসতে চেয়েছিলেন, কিন্তু অ্যাওয়ার্ড কর্তৃপক্ষ রাজি হয়নি, তাই….তাই দুঃখ-দুঃখ মুখে জিনো-ডায়ানার বাবা-মা একাই এসেছেন অ্যাওয়ার্ড ফাংশনে…ইত্যাদি ইত্যাদি।

View this post on Instagram

@ginothegerman your parents are on tv! #goldenglobes

A post shared by Rick (@ricks_pick) on Jan 5, 2020 at 4:51pm PST

নিক ও প্রিয়ঙ্কার এই বক্তব্য নিয়ে আজ হলিউডের বেশিরভাগ খবরের কাগজ এবং ওয়েবসাইটই স্টোরি করেছে বড় করে। আমরাও করে দিলুম। গোড়াতেই বলেছিলাম না, কী করে খবরে টিকে থাকতে হয় এঁদের দেখে শিখুন বাকি সকলে…

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoBeauty – POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়…