বিনোদন

গ্লোবাল আইকন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া এখনও কোন মধ্যবিত্ত অভ্যেস বজায় রেখেছেন?

Swaralipi BhattacharyyaSwaralipi Bhattacharyya  |  Oct 11, 2019
গ্লোবাল আইকন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া এখনও কোন মধ্যবিত্ত অভ্যেস বজায় রেখেছেন?

তিনি এখন গ্লোবাল আইকন। প্রিয়ঙ্কা (Priyanka) চোপড়ার ক্ষেত্রে একথা বলাই যায়। মার্কিন (America) পপ গায়ক নিক জোনাসকে বিয়ে করেছেন বলে নয় কিন্তু। তার আগেই নিজের কাজের জোরে পরিচিতি তৈরি করেছেন হলিউড। মার্কিন মুলুকে তাঁর এখন আলাদা পরিচয়। এ হেন প্রিয়ঙ্কা কিন্তু মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্মেছেন। বড় হয়েছে ভারতীয় মধ্যবিত্ত মূল্যবোধকে আঁকড়েই। সেই পুরনো জীবন মিস করেন তিনি। মনে পড়ে ফেলে আসা দিনের কথা। তবে যত পরিবর্তনই আসুক না কেন, এখনও তিনি কিছু মধ্যবিত্ত অভ্যেস বাঁচিয়ে রেখেছেন নিজের মধ্যে। আর তার জন্য তিনি গর্বিতও। 

সম্প্রতি প্রিয়ঙ্কার কাছে জানতে চাওয়া হয়, কোন মধ্যবিত্ত অভ্যেস এখনও বজায় রেখেছেন নায়িকা? হাসতে হাসতে প্রিয়ঙ্কা জানান, যে কোনও খাবারের সঙ্গে এখনও আচার খেতে পছন্দ করেন তিনি। স্পেশ্যালি আমের আচার। স্যান্ডুইচের সঙ্গেও নাকি আচার খেয়েছেন তিনি। তবে মিক্সড নয়, আমের আচারই তাঁর অল টাইম ফেভারিট। ভাবতে পারছেন? মার্কিন মুলুকের রইস পার্টিতে নাকি আচার খাচ্ছেন পিগি চপস! দৃশ্যটা একবার কল্পনা করুন তো!

শুধু এতেই শেষ নয়। কিপটে বলে ঘনিষ্ঠ মহলে নাকি পরিচিতি রয়েছে প্রিয়ঙ্কার। তবে নিজেকে তিনি কিপটে নয়, সঞ্চয়ী বলতে পছন্দ করেন। তার একটা নমুনা শুনবেন? প্রিয়ঙ্কা নিজেই জানিয়েছেন, অনলাইন শপিংয়ে তিনি সিদ্ধহস্ত। প্রায় সব প্রয়োজনীয় জিনিসই তিনি নাকি অনলাইন কিনে নেন। আর শপিংয়ের সময় কোথায় কত শতাংশ ছাড় দিচ্ছে, সে খবর নিতে থাকেন ক্রমাগত। যেখানে ছাড়, সেখান থেকেই শপিং করতে পছন্দ করেন তিনি। কারণ? “টাকা জমানোটা আমার অভ্যেস, আমার কাছে মজার মতো।”

পরিবার প্রিয়ঙ্কার কাছে সবার আগে। সেই পারিবারিক মূল্যবোধও তাঁর ছোটবেলার শিক্ষা। তিনি জানিয়েছেন, বাবা, মা সব সময় তাঁর পাশে ছিলেন। তাঁকে সাপোর্ট করেছেন। তিনি যাতে নিজের স্বপ্নপূরণ করতে পারেন সেজন্য স্বার্থত্যাগ করেছেন। আজ শুক্রবার মুক্তি পেল সোনালী বসুর পরিচালনায় ‘দ্য স্কাই ইজ পিঙ্ক’। প্রায় তিন বছর পরে বলিউডে ফিরলেন প্রিয়ঙ্কা। সেখানে মা মধু চোপড়ার আদলে নিজের চরিত্রটি গড়েছেন নায়িকা। “আমার প্রথম বয়ফ্রেন্ড থেকে হাজব্যান্ড পর্যন্ত সকলের কথা মা জানে। মা আমার বন্ধু, সাপোর্ট সিস্টেম। এই ছবিতে আমার চরিত্রটাও সেভাবেই করার চেষ্টা করেছি” শেয়ার করেছেন প্রিয়ঙ্কা।

প্রিয়ঙ্কা জানিয়েছেন, আমেরিকাতে ‘কোয়ান্টিকো’ করার বছরে ১১ মাস শুটিং করতেন। সে কারণেই তখন কোনও বলিউডি ছবি করা হয়নি। তার পরে যতগুলো স্ক্রিপ্ট শুনেছেন তার মধ্যে ‘দ্য স্কাই ইজ পিঙ্ক’ সবচেয়ে ভাল। গল্পটা বাস্তব থেকে নেওয়া। অদিতি এবং নীরেন চৌধুরী আর তাঁদের সন্তানদের গল্প নিয়ে ছবি। জন্ম-মৃত্যু খুব কঠিন সত্যি। সকলকে তার মধ্য দিয়ে যেতে হয়। এই ছবির বার্তাটাও খুব সুন্দর। এ ছবি শেখাবে, মানুষ যখন বেঁচে, তখন তার সঙ্গে জীবন সেলিব্রেট করা উচিত, সে চলে যাওয়ার পরে নয়।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty – POPxo Shop-এর স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়…