home / রিলেশনশিপ
ওয়ার্ক ফ্রম হোমে কি সম্পর্ক ভাঙতে বসেছে? জোড়া লাগানোর টিপস দিচ্ছি আমরা

ওয়ার্ক ফ্রম হোমে কি সম্পর্ক ভাঙতে বসেছে? জোড়া লাগানোর টিপস দিচ্ছি আমরা

জানেন,এই সমস্যাটা না ভারী অদ্ভুত! কাজ না করলে স্বাচ্ছন্দ্য আসবে না। কিন্তু কতটা কাজ করলে তা সম্পর্কে কোনও সমস্যা তৈরি করবে না (pro tips to balance relationship during work from home)! বলুন তো? ঠিক কতটা? এটা ভেবে বের করাটাই হচ্ছে আসল ট্রিক!

দু’জনেই কি ওয়ার্ক ফ্রম হোম করছেন?

আসলে করোনা শুধুমাত্র শারীরিকভাবে না, আমাদের জীবনের অনেকগুলো দিকই ওলট-পালট করে দিয়েছে। আগে আপনি অফিস যেতেন। এখন বাড়ি থেকে কাজ করেন। আপনার পার্টনারের অবস্থাও নিশ্চয়ই একইরকম! ওয়ার্ক ফ্রম হোমে যে কিছুমাত্র সুবিধে হয়েছে তা নয়। বরং বেড়েছে কাজের চাপ। বেড়েছে কাজ করার সময়। ফলে অনেকক্ষেত্রেই সম্পর্কে দেখা দিয়েছে নানা সমস্যা।

কাজ এবং পারিবারিক জীবনের মধ্যে ব্যালেন্স (pro tips to balance relationship during work from home), এটা নিয়ে কত মানীগুণী ব্যক্তি মতামত প্রকাশ করেছেন, কত বিশেষজ্ঞ কত থিওরি তৈরি করেছেন, কিন্তু লাভের লাভ কিচ্ছুটি হয়নি। আসলে প্রত্যেকের জীবন আলাদা, জীবনযাপনও আলাদা।

তাই একজনের ক্ষেত্রে যেটা সমস্যা অন্য একজনের ক্ষেত্রে সেটাই হয়তো সমাধানের কাজ করে! তবুও কিছু স্বতঃসিদ্ধের মতো কথা হয় না? আমরাও সেরকমই কিছু টিপস দিচ্ছি এখানে। মেনে দেখতে পারেন, হয়তো জীবনখাতার হিসেব মেলানোটা সহজ হবে!

সরাসরি আলোচনা করুন

যখন ব্রেক নেন, সে সময়ে কথা বলে নিন

যদি দেখেন যে, কাজের চাপ একটু বেশির দিকে গড়াচ্ছে, সেটা আপনার ক্ষেত্রেই হোক বা আপনার স্বামীর ক্ষেত্রে, এবং তা দু’জনের জন্যই বিরক্তিকর পর্যায়ে পৌঁছে যাচ্ছে, তা হলে এই ব্যাপারে কথা বলাটা আবশ্যক।

কিন্তু অধিকাংশ দম্পতিই এই ব্যাপারে কথা বলতে চান না। সেটাই পরে গিয়ে বড় সমস্যা তৈরি করে। যদি অফিসে কাজের চাপ বেশি থাকে, একে অপরকে আগে থেকে জানিয়ে রাখুন। তাহলে বাড়িতে বসে দীর্ঘক্ষণ কাজ করলেও আপনার পার্টনার বিরক্ত হবেন না। তার কারণ তিনি বুঝতে পারবেন।

প্রথম থেকেই সবটা জানিয়ে রাখা ভাল

দেখুন, পেশাদারি দুনিয়াটা এমন একটা জায়গা যেখানে আপনার প্রতি কেউ সহানুভূতি দেখাবেন না। কিন্তু পরিবারের লোকের কাছ থেকে সেটা আপনি প্রত্যাশা করতেই পারেন! তাই সম্পর্কের শুরুতেই (pro tips to balance relationship during work from home), তা সে ভালবাসার বিয়েই হোক কিংবা সম্বন্ধ করে বিয়ে, নতুন পরিবারের সকলকে আপনার কাজের ধরন বুঝিয়ে বলুন।

জানিয়ে দিন অফিসের সময়, কাজের গতিপ্রকৃতি ইত্যাদি খুঁটিনাটি বিষয়ে আলোচনা সেরে নিন। জেনে নিন আপনার হবু সঙ্গীটির কাজের ধরনও। তা হলে প্রথম থেকেই সেই অনুযায়ী টাইম ম্য়ানেজমেন্ট করতে পারবেন। আর হ্যাঁ, একটুআধটু এদিক-ওদিক হতেই পারে, কাজে সেটি নিয়ে বেশি মাথা ঘামাবেন না। 

মাঝে মধ্যে বাবাকেও সন্তানের সঙ্গে সময় কাটাতে হবে

সন্তান রয়েছে নাকি?

ধরুন, আপনার শিশু ছোট। বাড়িতে থাকলে সে আপনার সময় ডিমান্ড করবে। অথচ আপনি কাজের চাপে ব্যস্ত। এতে হয়তো আপনার পার্টনারের অসুবিধে হবে না। কিন্তু পরিবারের বাকি সদস্যরা আপনার সিচুয়েশন নাও বুঝতে পারেন। অথবা শিশুর দায়িত্ব নিয়ে মনোমালিন্য তৈরি হতে পারে। তাই আপনার পরিস্থিতি আগে থেকেই পরিবারের লোকজনকে জানিয়ে রাখুন। দিনের মধ্যে কিছুক্ষন হলেও সন্তানের দায়িত্ব নিতে অনুরোধ করুন। এতে ভুল বোঝাবুঝি এড়ানো যাবে সহজেই।

উইকএন্ডে পারলে এক সঙ্গে কাটান

জানি, সারা সপ্তাহ কাজ করেন। অনেক দিন হয়ত বাইরেও ঘুরতে যেতে পারেন নি। সপ্তাহের শেষে দু’জনে কিছুটা সময় একান্তে কাটান। না দেখা সিনেমা বা ওয়েব সিরিজ দেখুন, গান শুনুন অথবা বুক রিডিং সেশন করুন। দেখবেন সম্পর্কের জটিলতা (pro tips to balance relationship during work from home) অনেকটাই কাটবে।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!      

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

13 Aug 2021

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text