Advertisement

Diet

সময় ধরে পরিমান মেপে সঠিক খাবার খান, দেখবেন ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স-এর সমস্যা উধাও হয়ে গিয়েছে

Debapriya BhattacharyyaDebapriya Bhattacharyya  |  Jan 11, 2021
ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স-এর সমস্যা হলে ফলো করুন এই ডায়েট প্ল্যানটি in bengali

দুধ বা দুগ্ধজাতীয় খাবার খাওয়ার ঘণ্টাখানেকের মধ্যে যদি তলপেটে ব্যথা, পেট গুড়গুড়, বমি বমি ভাব অথবা ডায়রিয়ার মতো সমস্যা হয়, তাহলে ডাক্তার দেখাতে দেরি করবেন না। কারণ, ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স সমস্যা হলেই মূলত এই ধরনের লক্ষণগুলি প্রকাশ পায়। এক্ষেত্রে Lactose Intolerance test অথবা Hydrogen Breath Test করতে হতে পারে। অনেক সময় Stool Acidity test করলেও এই রোগ ধরা পড়ে। ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স-এর সমস্যা হলে অনেক খাবার যেমন বাদ পড়ে যায়, তেমনই রোজের ডায়েটে (recommended diet plan for lactose intolerance patient) জুড়ে যায় অনেক কিছুই। কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল খাবার সময় নির্ধারণ করা। অর্থাৎ কোন খাবারটি আপনি দিনের কোন সময়ে খাচ্ছেন, তা যদি একবার ঠিক করে ফেলতে পারেন তাহলে দেখবেন ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স-এর সমস্যা উধাও হয়ে গিয়েছে।

ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স-এর সমস্যা দূর করার জন্য ডায়েট প্ল্যান

দুধ বা দুগ্ধজাতীয় পানীয়ের বদলে ফল ও সবজির রস খেতে পারেন

১। সকাল সকাল, এই ধরুন সাতটা থেকে সাড়ে সাতটার মধ্যে, এক গ্লাস সয়া মিল্ক, সঙ্গে খান দুয়েক ডিম বা ডিমের সাদা অংশ আর একটা কলা খেতে হবে। ডিম আর কলা একসঙ্গে খেতে ইচ্ছা না হলে শুধু ডিম অথবা কলা খেতে পারেন। কোনও কোনও দিন আগে থাকতে ভিজিয়ে রাখা আমন্ড খেলেও ক্ষতি নেই। কতটা পরিমাণ আমন্ড খেতে হবে? ১০ গ্রাম মতো আমন্ড খেলেই চলবে। এবার মূল ব্রেকফাস্টের পালা। দুধ এবং ডিম খাওয়ার পরে টফু, সবজি দিয়ে তৈরি পরোটা, ইডলি অথবা ব্রাউন ব্রেড খেতে পারেন। পাউরুটির সঙ্গে ইচ্ছা হলে একাটা ডবল ডিমের অমলেটও (recommended diet plan for lactose intolerance patient) খেতে পারেন। সেক্ষেত্রে সেদ্ধ ডিম না খেলেও চলবে।

২। সকাল সাড়ে দশটা – এগারোটা নাগাদ (অথবাব্রেকফাস্টের ঘণ্টাদু’য়েক বাদে) এক মুঠো রোস্টেড সয়াবিন অথবা আমন্ড খেতে ভুলবেন না যেন!

৩। দুপুরে (সম্ভব হলে বেলা একটার মধ্যে) ভাতের সঙ্গে দুটো রুটিও খেতে হবে। সঙ্গে থাকবে এক বটি ডাল এবং ফুলকপি অথবা বাঁধাকপির তরকারি। কখনও-সখনও আলু বা লাউয়ের তরকারিও খেতে পারেন। ডাল এবং সবজি দিয়ে খাওয়ার পরে এক বাটি মুরগির মাংস বা মাছ খেতেই হবে। পালং শাক, ব্রকলি, ঢেঁরস এবং মিষ্টি আলুতেও প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম রয়েছে। তাই লাঞ্চে বা ডিনারে ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে এই শাক-সবজিগুলি খেতে ভুলবেন না।

৪। বিকেলের দিকে এক কাপ লিকার চা বা গ্রিন টি খাবেন। সঙ্গে খান দুয়েক বিস্কুট চলতে পারে। ইচ্ছা হলে এই সময় এক মুঠো আমন্ডও (recommended diet plan for lactose intolerance patient) খেতে পারেন।

৫। লাঞ্চের মতোই ডিনার সারতে হবে তাড়াতাড়ি, পারলে রাত আটটার মধ্যে। তবে ইচ্ছা হলে ভাত-রুটির পরিবর্তে এক বাটি সুপ খেতে পারেন। সঙ্গে এক বাটি সবজি আর মাংস খেতে ভুলবেন না যেন! কোনও-কোনও দিন মাংসের পরিবর্তে মাছও খেতে পারেন। মোট কথা ক্যালসিয়াম রয়েছে এমন খাবার খাওয়ার পাশাপাশি প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবারও নিয়মিত খেতে হবে। তবেই কিন্তু শরীর চাঙ্গা থাকবে।

https://bangla.popxo.com/article/health-benefits-of-eggplant-in-bengali

POPxo এখন চারটে  ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!        

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!