Advertisement

লাইফস্টাইল

স্টিল থেকে শুরু করে নন স্টিক, দৈনন্দিন ব্যবহারের বাসনপত্রের দাগ চট করে তোলার ঘরোয়া উপায়

popadminpopadmin  |  Oct 21, 2019
স্টিল থেকে শুরু করে নন স্টিক, দৈনন্দিন ব্যবহারের বাসনপত্রের দাগ চট করে তোলার ঘরোয়া উপায়

Advertisement

দীর্ঘদিন ব্যবহারের পরে বাসনপত্রে জং ধরাটা কোনও অস্বাভাবিক ঘটনা নয়। কিন্তু তাই বলে পুরনো বাসনগুলি ডাস্টবিনে চালান করে নতুন বাসনপত্র কেনার কোনও প্রয়োজন নেই। কিন্তু জং ধরা বাসন ব্যবহার করা উচিত কি? আরে তা করবেন কেন! তাহলে? আমাদের হাতের কাছে থাকা নানা প্রাকৃতিক উপাদানের সাহায্যে পুরনো বাসনগুলিকেই একেবারে নতুনের মতো করে তোলা সম্ভব। তাই চলুন, আর সময় নষ্ট না করে ঝটপট বাসনপত্রের জং তলার সহজ কিছু উপায় সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

১. নুন এবং পাতিলেবুর রস

pixabay

বাসনের যেখানে জং ধরেছে, সেখানে এক চামচ নুন ছেটানোর পরে একই জায়গায় সম পরিমাণ লেবুর রস ছড়িয়ে দিয়ে ঘণ্টাদুয়েক রেখে দিন। সময় হয়ে গেলে পাতিলেবুর খোসা দিয়ে জায়গাটা মিনিটদশেক ভাল করে ঘষে নেওয়ার পরে জল দিয়ে ধুয়ে নিন। দেখবেন, জং (rust) একেবারে গায়েব হয়ে যাবে। বাসনপত্র দীর্ঘদিন ঝকঝকে-তকতকে রাখতে এই ঘরোয়া পদ্ধতিটির কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে।

২. সাদা ভিনিগার আর অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল

সাদা ভিনিগারে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল ভিজিয়ে তা দিয়ে জং পরা জায়গাটা মিনিটপনেরো ঘষলেই জং উঠে যাবে। আর যদি এই পদ্ধতিতে জং না ওঠে, তাহলে আরেক ভাবেও ভিনিগারকে কাজে লাগানো যেতে পারে। বড় একটা পাত্রে ভিনিগার নিয়ে তাতে বাসনগুলি (utensils) ঘণ্টাচারেক চুবিয়ে রাখার পরে স্ক্রাবার দিয়ে ভাল করে ঘষে নিন। তাতে জং উঠে যেতে সময় লাগবে না।

৩. বেকিং সোডা এবং জল

জং ধরা জায়গায় পরিমাণ মতো বেকিং সোডা ছড়িয়ে দেওয়ার পরে একটা ব্রাশ জলে চুবিয়ে তা দিয়ে ভাল করে জায়গাটা ঘষুন। দেখবেন, মিনিটকুড়ি বাদে জং উঠে যাবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, চামচ দুয়েক বেকিং সোডার সঙ্গে এক চামচ জল মিশিয়ে তৈরি পেস্ট জং ধরা জায়গায় লাগিয়ে ঘন্টা দুয়েক রেখে দেওয়ার পরে স্ক্রাবার দিয়ে ঘষলেও বাসন একেবারে নতুনের মতো হয়ে যায়। তাই ইচ্ছা হলে এই পদ্ধতিতেও বাসনপত্র পরিষ্কার করতে পারেন।

৪. আলু এবং বেকিং সোডা

pexels

শুনতে হয়তো আজব লাগছে। কিন্তু একথা ঠিক যে বাসনপত্রের জং তুলতে আলু এবং বেকিং সোডার জুড়ি মেলা ভার। এক্ষেত্রে অর্ধেক আলুতে বেকিং সোডা লাগিয়ে তা দিয়ে জং ধরা জায়গাটা ভাল করে ঘষতে হবে, তাতেই দেখবেন বাসনপত্রের চেহারা একেবারে পাল্টে যাবে। ইচ্ছা হলে বেকিং সোডার পরিবর্তে আলুতে নুন লাগিয়েও ঘষতে পারেন। এতেও সমান উপকার পাওয়া যায়।

৫. লেবুর রস

এক চামচ Borax পাউডারের সঙ্গে সম পরিমাণ পাতিলেবুর রস মিশিয়ে তৈরি পেস্ট, জংয়ের উপর লাগিয়ে মিনিটকুড়ি রেখে দিন। সময় হওয়া মাত্র টুথব্রাশ দিয়ে জায়গাটা ভাল করে ঘষে নিয়ে বাসনটা জল দিয়ে ধুয়ে নিন, তাতেই দেখবেন জং উঠে যাবে।

স্টিল, ননস্টিক এবং পোর্সেলিনের বাসনপত্র পরিষ্কার করার নিয়ম

ঠিক ঠিক নিয়ম মেনে বাসনপত্র পরিষ্কার না করলে সেগুলি কিন্তু অল্প দিনেই নষ্ট হয়ে যাবে। তাই কোন ধরনের বাসন, কেমন ভাবে পরিষ্কার করা উচিত, সে সম্পর্কে স্পষ্ট ধরণা থাকাটা একান্ত প্রয়োজন। এক্ষেত্রে যে যে বিষয়গুলি মাথায় রাখতে হবে, সেগুলি হল…

১. স্টেনলেস স্টিলের বাসনপত্র বেশ কিছু দিন ব্যবহারের পরেই তাতে ছোপ ছোপ দাগ পড়তে শুরু করে। এই ধরনের দাগ তুলতে চামচ তিনেক সাদা ভিনিগারের সঙ্গে সম পরিমাণ জল মিশিয়ে তৈরি মিশ্রণটি বাসনে ছড়িয়ে মিনিটপনেরো অপেক্ষা করতে হবে। তারপর গরম জল দিয়ে ধুয়ে ফেললেই বাসনগুলি একেবারে নতুনের মতো হয়ে যাবে। অনেক সময় স্টিলের কড়াই বা পাত্রে মিনারেল জমার কারণে এর সৌন্দর্য কমে যায়। এক্ষেত্রেও এই পদ্ধতিতে বাসন মাজলে উপকার মেলে।

২. বড় একটা পাত্রে গরম জল নিয়ে তাতে চামচ তিনেক বেকিং সোডা মিশিয়ে সেই জলে স্টিলের বাসনপত্র ঘন্টা খানেক চুবিয়ে রাখুন। সময় হওয়া মাত্র সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই পদ্ধতিতে স্টিলের বাসনপত্র পরিষ্কার করলে বহু বছর পরেও একেবারে নতুনের মতো থাকবে।

৩. চামচ তিনেক বেকিং সোডার সঙ্গে চামচ দুয়েক জল মিশিয়ে তৈরি পেস্ট, স্টিলের বাসনের ভিতরে-বাইরে লাগিয়ে মিনিটকুড়ি রেখে দিন। তারপর পরিষ্কার কাপড় দিয়ে পেস্টটা তুলে নিয়ে জল দিয়ে বাসনগুলি আরেকবার ভাল করে ধুয়ে ফেলুন। এই পদ্ধতিতে স্টিলের বাসনপত্র পরিষ্কার করলে যে কোনও ধরনের দাগ-ছোপই দূর হবে।

৪. রান্না শেষ হওয়া মাত্র সাবান জল দিয়ে ননস্টিক বাসনপত্রগুলি ধুয়ে ফেলুন। বেশিক্ষণ ফেলে রাখলেই ঘষে-ঘষে ধোওয়ার প্রয়োজন পড়বে। তাতে ননস্টিক বাসনগুলি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এক্ষেত্রে আরেকটা বিষয় মাথায় রাখাও একান্ত প্রয়োজন। তা হল ভুলেও স্ক্রাবার দিয়ে ননস্টিক প্যান বা এই ধরনের বাসন পরিষ্কার করা উচিত নয়। তাতে অল্প দিনেই বাসন নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকবে।

৫. ঈষদুষ্ণ গরম জলে এক চামচ লিকুইড সাবান মিশিয়ে তাতে ননস্টিক (non stick pan) বাসনগুলি মিনিটকুড়ি চুবিয়ে রেখে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তাতে যে কোনও ধরনের দাগ-চোপ উঠে যাবে এবং বাসনপত্রগুলি দীর্ঘদিন একেবারে নতুনের মতো থাকবে।

৬. ননস্টিক বাসন ধুতে বেকিং সোডাকেও কাজে লাগানো যেতে পারে। চামচ তিনেক বেকিং সোডায় সঙ্গে সম পরিমাণ জল মিশিয়ে তৈরি পেস্ট sponge-এর সাহায্যে ননস্টিক বাসনের ভিতরে-বাইরে লাগিয়ে মিনিটকুড়ি রেখে দিন। সময় হওয়া মাত্র ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৭. ব্লিচ বা কেমিক্যাল রয়েছে এমন কোনও জিনিস দিয়ে পোর্সেলিনের বাসনপত্র পরিষ্কার করা উচিত নয়। পরিবর্তে বেকিং সোডা দিয়ে পরিষ্কার করা যেতে পারে। এক্ষেত্রে পরিমাণ মতো বেকিং সোডা বাসনের উপর ছড়িয়ে দিয়ে স্পঞ্জের সাহায্যে একটু ঘষে নিয়ে ধুয়ে ফেললেই দাগ-ছাপ দূর হবে।

৮. নুন এবং ভিনিগারের সাহায্যেও পোর্সেলিনের কাপ-ডিশ পরিষ্কার করতে পারেন। চামচ দুয়েক সাদা ভিনিগারের সঙ্গে সম পরিমাণ নুন মিশিয়ে সেই মিশ্রণ বাসনে লাগিয়ে ঘন্টাখানেক রেখে দিন। সময় হলেই ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৯. পোর্সেলিনের বাসনপত্র ধুতে অতিরিক্ত peroxide রয়েছে এমন পোর্সেলিন ক্লিনারও ব্যবহার করা যেতে পারে। এই জিনিসটি যে কোনও হার্ডওয়্যার শপ গেলেই পেয়ে যাবেন।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty – POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়…