home / রূপচর্চা ও বিউটি টিপস
ত্বকের যত্নে আমন্ড অয়েলের উপকারিতা 

ত্বকের যত্নে আমন্ড অয়েলের উপকারিতা 

আমন্ড বাদাম শুধু ড্রাই ফ্রুট হিসেবেই ব্যবহার হয় না, আমাদের সৌন্দর্য রক্ষাতেও (skin care benefits of almond oil) এর ভূমিকা অনেক। চুল এবং ত্বক থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য রক্ষা পর্যন্ত করে আমন্ড বাদাম এবং সেখান থেকে নিঃসৃত তেল। এতে আছে ভিটামিন, ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম আর ম্যাগনেশিয়ামের মতো উপাদান আর প্রয়োজনীয় খনিজ। এই বাদাম ও তেলের এত গুণ আছে যে বলে শেষ করা যাবে না। ত্বকের জন্য আমন্ড তেল খুবই ভালো। ত্বকের বিভিন্ন সমস্যায় এবং ত্বকে উজ্জ্বলতা আনতে নিয়মিত ব্যবহার করা উচিৎ আমন্ড তেল।

ত্বকের স্বাস্থ্য ফেরাতে আমন্ড অয়েল

বাদাম তেল আমাদের ত্বক কোমল ও পেলব করে। আর্দ্রতাকে ত্বকের মধ্যে ধরে রাখে এই তেল। ত্বকে পুষ্টিও যোগায় বাদাম তেল।

উজ্জ্বল ত্বকের জন্য আমন্ড অয়েল

নিয়মিত আমন্ড তেল মুখে মালিশ করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি হয়। এতে আছে প্রচুর পরিমাণে অ্যানটি অক্সিডেন্ট যা আমাদের ত্বকে উজ্জ্বলতা নিয়ে আসে।

ডার্ক সার্কল দূর করতে আমন্ড অয়েল

সারাদিন পরিশ্রম করার জন্য এবং নানারকম স্ট্রেসের কারণে চোখের নিচে ও চারপাশে ডার্ক সার্কল তৈরি হওয়া কোনও নতুন কিছু নয়। এই জাতীয় সমস্যা আমাদের অনেকেরই থাকে। অনেকেই নানা প্রোডাক্ট ব্যবহার করেন ডার্ক সার্কল থেকে মুক্তি পেতে। কিন্তু অনেক দামি প্রোডাক্ট ব্যবহার করেও যে নিশ্চিতভাবে এই ডার্ক সার্কল থেকে মুক্তি পাওয়া যায় তা কিন্তু নয়। এই টোটকা ট্রাই করে দেখুন তো। হাতে নাতে ফল পাবেন কথা দিলাম।  রাত্রে শুতে যাওয়ার আগে চোখের নিচে নিয়মিত আমন্ড তেল মালিশ করলে ডার্ক সার্কল ধীরে ধীরে কম হয়ে যায়।

অ্যানটি এজিং দূর করতে আমন্ড অয়েল

এই তেলে (skin care benefits of almond oil) আছে ভিটামিন আর ফ্যাটি অ্যাসিড যা ত্বকের কোষে প্রাণ দান করে। ফলে আমাদের ত্বক হয়ে ওঠে তরতাজা আর এর স্বাভাবিক রঙও বজায় থাকে। নিয়মিত এই তেল ব্যবহার করলে আপনি বয়সের কাঁটা উল্টো দিকে ঘুরিয়ে দিতে পারবেন। অনেকেরই দূষণ ও অন্যান্য নানা কারণে চোখের চারপাশে বলিরেখা পড়ে যায়। প্রতিদিন রাতে শুতে যাওয়ার আগে চোখের চারপাশে আঙুল দিয়ে আমন্ড তেল মাসাজ করুন। প্রতিদিন এই মাসাজ করলে দেখবেন চোখের চারপাশের বলিরেখা অনেক কম হয়ে গেছে।

ট্যানিং দূর করতে আমন্ড অয়েল

অনেকেই হয়তো জানেন না যে আমন্ড অয়েল হল একটি স্বাভাবিক সানস্ক্রিন।বাজার চলতি সানস্ক্রিনের উপর আপনার যদি ভরসা না থাকে তাহলে চোখ বুজে আমন্ড তেল ব্যবহার করা শুরু করে দিন। বিশেষ করে আপনাকে যদি প্রতিদিন বাড়ির বাইরে বেরোতে হয় তাহলে আমরা পরামর্শ দিচ্ছি আপনি আজ থেকেই এই তেল ব্যবহার শুরু করুন। কারণ ট্যানিং দূর করতে আর সানবার্ন কমাতে তো এই তেল কাজে আসেই, উপরন্তু সূর্য রশ্মির বাজে প্রভাব যেমন ধরুন অতিবেগুনি রশ্মির বাজে প্রভাব এই তেল অনেকটা কম করে।

ত্বকে স্বচ্ছতা আনতে আমন্ড অয়েল

এমন পোরসেলিনের মত ত্বক পেতে রোজ ব্যবহার করতে হবে আমন্ড অয়েল

আপনার ত্বকে যদি ব্রণ, ফুসকুড়ি, মেচেতা ইত্যাদি থাকে তাহলে সেগুলোও দূর হবে নিয়মিত আমন্ড তেল ব্যবহার করলে। আর এটা যে সম্ভব সেটা রীতিমত প্রমাণিত। ত্বকে জ্বালা বা চুলকানি দূর করে আমন্ড তেল ত্বককে করে সুন্দর আর স্বচ্ছ। ত্বক যাতে আরও পরিষ্কার আর দাগছোপহীন দেখায় তার জন্য এই প্রক্রিয়া ট্রাই করে দেখুন। দু চামচ আমন্ড তেলের সঙ্গে এক চামচ লেবুর রস মেশান। এবার এটি মুখে লাগিয়ে নিন। ৩০ মিনিট এটি মুখে রেখে দিন তারপর ঠাণ্ডা জলের ঝাপটা দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দু থেকে তিনবার এটি করে দেখুন আমস খানেক পর আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন আপনার ত্বকে কীরকম ম্যাজিক গ্লো এসেছে।

শুষ্কতা দূর করতে আমন্ড অয়েল

আপনার ত্বক যদি শুষ্ক, প্রাণহীন আর খসখসে হয়ে যায় তাহলে নিয়মিত বাদাম তেল (skin care benefits of almond oil) দিয়ে মুখে মাসাজ করুন। এটি আপনার ত্বককে শুষ্ক হওয়া থেকে বাঁচায়। বিশেষ করে শিতকালে এই তেল ওষুধের মতো কাজ করে।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!        

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

01 Jun 2022

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text