home / বলিউড ও বিনোদন
অনুরাগের ‘লুডো’য় মিনির বিট্টুই কি কাবুলিওয়ালা ?

অনুরাগের ‘লুডো’য় মিনির বিট্টুই কি কাবুলিওয়ালা ?

অনুরাগ বসুর ‘লুডো’ ( Ludo ) নেটফ্লিক্সে মুক্তি পাওয়ার পরেই সাড়া ফেলেছে নেটিজেনদের মধ্যে । দর্শকরাও মুগ্ধ, একইসঙ্গে সমালোচকদেরও প্রশংসা পেয়েছে লুডো । টাইম ও স্পেসকে ব্যবহার করে এক দারুণ স্টোরিলাইন লিখেছেন পরিচালক । লুডো বোর্ডের রূপকের ব্যবহার করে পরিচালক দর্শকদের উদ্দেশে কী বার্তা দিতে চেয়েছেন, সেখানেই খেলা শুরু মানে সিনেমার গল্প শুরু ! চারটি প্রধান চরিত্র চারটি রঙের । সেই চরিত্রগুলিকে ব্যবহার করেই ন্যারেটিভ লিখেছেন পরিচালক । চরিত্রের সঙ্গে সময় ও স্পেসকে মিলিয়ে দিয়েছেন । একই সময় বারবার ফিরে ফিরে এসেছে ছবিতে, এক একে চরিত্রের সঙ্গে । যেন চরিত্ররা একে অপরকে আগেই চিনত আবার চিনতও না । তবে লুডোর স্ক্রিপ্ট, সিনেমাটোগ্রাফি ও অন্যান্য বিষয়ের যথেষ্ট প্রশংসা হয়েছে । এমনকী প্রতিটা চরিত্রকে যে পরিচালক নিখুঁতভাবে লিখেছেন, তাও স্পষ্ট । সেভাবেই অসাধারণ এক ডার্ক কমেডির মধ্যেও অনুভূতিগুলো যথেষ্ট বেশি প্রাধান্য পেয়েছে অনুরাগের সিনেমায় ।

ডার্ক কমেডির সঙ্গেই গুরুত্ব পেয়েছে অনুভূতি

আসলে অনুরাগ বসুর ছবির একটি নির্দিষ্ট নিজস্ব কায়দা আছে । সেই শৈলী বজায় রেখে অনুরাগ প্রতিবার ছবির স্পেস, টাইম, প্লট এবং চরিত্রদের নিয়ে খেলেন । অনুভূতি এবং সময় অনুরাগের ছবির খুব গুরুত্বপূর্ণ অংশ । বরফি, লাইফ ইন আ মেট্রো, জগ্গা জসুসেও আমরা দেখেছি, অনুরাগের স্ক্রিপ্টে অনুভূতি বা ইমোশান খুব বেশি গুরুত্ব পায় । একটি সহজ ন্যারেটিভকে অসাধারণ মাত্রায় নিয়ে যান পরিচালক । আর এক্ষেত্রেও তার কোনও বিকল্প হয়নি । তবে যেমনভাবে প্রশংসা পেয়েছে ছবির এই জনরা (genre) , একইভাবে পরিচালকের শ্রদ্ধার্ঘ্যও একইভাবে স্পষ্ট । এমনকি সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে পরিচালক নিজেও সে কথা জানিয়েছেন যে, ছবিতে তাঁর হোমেজ বা শ্রদ্ধার্ঘ্য স্পষ্ট ।

ADVERTISEMENT

প্রাণ খোলা মিনির সঙ্গেই আলাপ হয়ে যায় বিট্টুর

ADVERTISEMENT

সমালোচকদেরও প্রশংসা পেয়েছে লুডো

লুডো ছববিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিষেক বচ্চন, আদিত্য রায় কাপুর, রাজকুমার রাও, রোহিত সুরেশ । চারটি গুটির চারটি রঙের মতোও এই চারটি চরিত্রের চারটি রঙ আছে । আরও এক বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অভিনয় করেছেন পঙ্কজ ত্রিপাঠী, ইনিই এই প্রত্যেকটি চরিত্রের যোগসূত্র । ছবির সম্পূর্ণ অংশ নিয়ে ইতিমধ্যেই অনেক প্রশংসা এসেছে । একাধিক সমালোচক লুডোকে এই বছরের শ্রেষ্ঠ ছবিও বলছেন । 

ADVERTISEMENT

মিনির মধ্যে নিজের মেয়েকে খুঁজে পায় বিট্টু

মিনির বিট্টুর মধ্যেই কি অনুরাগ খুঁজে পেয়েছেন কাবুলিওয়ালাকে ?

বিট্টু (অভিনয়ে অভিষেক ) এবং মিনি (অভিনয়ে ইনায়ত বার্মা) চরিত্রটির মধ্যেই রবীন্দ্রনাথের কাবুলিওয়ালার এক ছাপ দেখতে পাওয়া যায় ( ludo reminds tagore’s kabuliwala ) । সেই একইরকম কাবুলিওয়ালার চরিত্রের মতোই যেন বিট্টু চরিত্রটি । নিজের মেয়ে কাছে নেই, হঠাৎই মিনি নামে একটি ছোট্ট মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কের বাঁধনে বাঁধা পড়ে কাবুলিওয়ালা । রবীন্দ্রনাথের গল্পের কাবুলিওয়ালা মেয়ের স্মৃতি হিসেবে মেয়ের পায়ের ছাপ নিয়ে ঘুরত, জেলেও তাঁর কাছে সেই স্মৃতি ছিল । বিট্টুর কাছেও মেয়ের হাতের একটি বালা ছিল সবসময়, মেয়ের স্মৃতি হিসেবে । সেই স্মৃতি আগলে রাখতে রাখতে বিট্টুও ভুলে গিয়েছিল, তাঁর মেয়ে বড় হয়েছে । তবে মিনির সঙ্গে বিট্টুর মিষ্টি সম্পর্ক ছুঁয়ে গিয়েছে দর্শকের মনকে । আর হয়তো ইচ্ছে করেই ছোট্ট মেয়েটির চরিত্রের নাম মিনি রেখেছেন অনুরাগ বসু । তাঁকে এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন, প্রতিটি হোমেজ তাঁর ছবিতে স্পষ্ট ( ludo reminds tagore’s kabuliwala ) ।

ADVERTISEMENT

অর্থাৎ, কেউ যদি লুডো দেখতে দেখতে বিট্টু ও মিনির মধ্যে হঠাৎই কাবুলিওয়ালা ও মিনিকে খঁজে পান, তাহলে তাঁর খুঁজে পাওয়াই হয়তো সত্যি । আজ অনেক বছর পরেও রবি ঠাকুরের কাবুলিওয়ালা একইভাবে প্রাসঙ্গিক, ফিরে আসে সমসাময়িক ছবিতে । বিট্টু ও মিনির সম্পর্কে, অনুরাগের স্ক্রিপ্টে…

 

ADVERTISEMENT

মূল ছবি সৌজন্যে : নেটফ্লিক্স 

https://bangla.popxo.com/article/mirzapur-becomes-most-watched-show-of-all-time-on-prime-video-india-in-bengali-918812

POPxo এখন চারটে ভাষায়!ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!
বাড়িতে
থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন
#POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন
নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

ADVERTISEMENT
17 Nov 2020
good points

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text